হাইস্কুলের পাঠ্যবইয়ে আইন বিষয় চেয়ে স্মারকলিপি

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৭ জানুয়ারি ২০১৯, ১৭:৩৩ | অনলাইন সংস্করণ

হাইস্কুলের পাঠ্যবইয়ে আইন বিষয় চেয়ে স্মারকলিপি
হাইস্কুলের পাঠ্যবই। ফাইল ছবি

হাইস্কুলের পাঠ্যবইয়ে আইন বিষয় অন্তর্ভুক্তির দাবি জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি দেয়া হয়েছে। মাদার তেরেসা ব্লাড ব্যাংক নামে একটি সংগঠন এ স্মারকলিপি দেয়।

এর আগে সংবাদ সম্মেলন করে সংগঠনটি তাদের দাবি তুলে ধরে। সংগঠনটির আহ্বায়ক শাহ্ মো. রবি জানান, হাইস্কুলের পাঠ্যসূচিতে আইন বিষয় অন্তর্ভুক্তি করা না হলে শেষ পর্যন্ত তারা উচ্চ আদালতেও যাবেন।

স্মারকলিপিতে শাহ্ মো. রবি বলেন, দেশের হাইস্কুলগুলোতে যে পাঠ্যসূচি আছে সেখানে আইন বিষয়ে একটি বই অন্তর্ভুক্ত করতে হবে এবং প্রত্যেক বিদ্যালয়ে একজন আইনের শিক্ষক নিয়োগ করতে হবে। যিনি ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত আইন বিষয়ে পাঠদান করাবেন। এতে কিশোর-কিশোরীরা অপরাধ ও শাস্তি বিষয়ে জীবনের প্রথম থেকেই জ্ঞান লাভ করবে, যা পরবর্তী জীবনে তাদের আইন মানার মানসিকতা তৈরি হবে।

স্মারকলিপিতে আরও বলা হয়, একজন আইনজীবী একটি মামলা পরিচালনা করার জন্য তার মক্কেলের কাছ থেকে কী পরিমাণ অর্থ গ্রহণ করবেন এমন কোনো সরকারি নীতিমালা নেই। এই সুযোগে কিছু অসাধু আইনজীবী দ্বারা প্রতিনিয়ত প্রতারিত হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। তারা একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ নিচ্ছেন। তারপর বিভিন্ন রকম ভুল তথ্য প্রদান করে দীর্ঘ সময় পার করে পুনরায় অর্থ দাবি করছেন তারা।

দাবিকৃত অর্থ না দিলে তারা মামলা ফেরত নিতে চাপ দেন। কিন্তু ফেরত দিলেও প্রথম দিকে নেয়া অর্থ তারা ফেরত দেন না। তখন একজন মক্কেল চিন্তা করেন নতুন আরেকজন আইনজীবীর কাছে গেলে আমার পুনরায় সমপরিমাণ অর্থ দিতে হবে। এর চেয়ে দাবিকৃত অর্থ আমি দিয়ে দিই।

স্মারকলিপিতে শাহ্ মো. রবি বলেন, মানুষকে যদি এ বিষয়ে সচেতন করা যায়, আদালতের বিভিন্ন নিয়মকানুন সম্পর্কে যদি তাদের জানানো যায়, তবে অসাধু আইনজীবীরা ভুল তথ্য দিয়ে প্রতারণা করতে পারবেন না। সরকারের কাছে আবেদন আইনজীবীদের জন্য যেন একটা আর্থিক নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়।

এতে বলা হয়, গত ১৩ জানুয়ারি শিক্ষামন্ত্রী বরাবরে একটি স্মারকলিপি দিয়েছি। এতে কোনো সাড়া না পেলে দ্রুত আমরা উচ্চ আদালতে যাব।

এর আগে ঝিনাইদহে প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করে এ সংগঠনটি। এতে মাদার তেরেসা ব্লাড ব্যাংক সংগঠনটির আহ্বায়ক শাহ্ মো. রবি বক্তব্য রাখেন।

সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির কর্মী শেখ জালাল আহমেদ, ফজলে রাব্বি উনু, দিনদার হোসেন রনি, মিজানুর রহমান, মিঠুন বসু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×