মাদকবিরোধী অভিযান জোরদারের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশ : ২০ জানুয়ারি ২০১৯, ১২:১৯ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

ফাইল ছবি

মাদকের বিরুদ্ধে জনসচেতনতা বাড়ানোর পাশাপাশি ব্যাপকভাবে মাদকবিরোধী অভিযান চালানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

আজ রোববার সকালে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে এ নির্দেশ দেন।

 

’৭৫-পরবর্তী সরকার দেশে দুর্নীতির গোড়াপত্তন করেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, দুর্নীতি মরণব্যাধির মতো ছেয়ে আছে। এর গোড়াপত্তন '৭৫-এর পরের শক্তি করেছে। সমাজকে এ ব্যাধিমুক্ত করতে হবে।

 

শেখ হাসিনা বলেন, দেশে জঙ্গিবাদ সৃষ্টিতে বিএনপি-জামায়াত সরকারের সহায়তা ছিল। এ সময় জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও দুর্নীতিমুক্ত দেশ গড়তে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সব কর্মকর্তাকে একযোগে কাজ করার নির্দেশ দেন তিনি।

 

গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর কাজের প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রযুক্তির সহায়তায় গোয়েন্দা সংস্থা ভালো কাজ করছে। তিনি বলেন, কর্মকর্তাদের বেতন বাড়ানো হয়েছে; করা হয়েছে আবাসনের ব্যবস্থা। তাই কোনো ধরনের দুর্নীতি সহ্য করা হবে না।

 

যানজট নিরসনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দায়িত্বে করা মনে করিয়ে দিয়ে তিনি বলেন, ট্রাফিক সমস্যা এখন বড় সমস্যা। দুর্ঘটনার জন্য চালকের পাশাপাশি, পথচারী ও নাগরিকরাও দায়ী। জীবনের ঝুঁকি নিয়েও মানুষ কেন অস্বাভাবিক আচরণ করে, তা বুঝি না। যানজট নিরসনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে আরও কার্যকর ভূমিকা রাখতে হবে।

 

মানুষের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে আরও কার্যকর ভূমিকা পালনের নির্দেশ দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, দেশের উন্নয়ন প্রকল্পগুলো যাতে যথাযথভাবে বাস্তবায়ন হয়, সে জন্য আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতিসহ সার্বিক নিরাপত্তা বজায়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে কার্যকর ভূমিকা রাখতে হবে৷ সার্বিকভাবে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ধরে পুলিশকে আরও জোরালো ভূমিকা রাখতে হবে।

 

এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান জনসাধারণের নিরাপত্তা নিশ্চিতে পুলিশ বাহিনীতে জনবল বাড়ানোর অনুমোদন প্রার্থনা করেন।

 

বিভিন্ন মন্ত্রণালয় সফরের অংশ হিসেবে রোববার সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রী স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পৌঁছলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, জননিরাপত্তা বিভাগ এবং সেবা সুরক্ষা বিভাগের সচিবসহ বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রধানরা স্বাগত জানান।

 

এর পর তিনি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে মতবিনিময় করে তাদের প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা প্রদান করেন।