পুরান রড দিয়ে ব্রিজ নির্মাণের খবরে দুদকের হানা, ঠিকাদারের কারাদণ্ড

প্রকাশ : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২০:৪৪ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

প্রতীকী ছবি

পুরাতন রড ব্যবহার করে সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জে ব্রিজের সংস্কার কাজ চলছিল। কিন্তু খবরটি আর গোপন থাকেনি। এলাকাবাসী দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) হটলাইন ১০৬-এ অভিযোগ করে ঘটনাটি জানায়। অভিযোগ পেয়ে দুদকের একটি টিম শুক্রবার অভিযান চালায়।

দুদকের মহাপরিচালক (প্রশাসন) ও এনফোর্সমেন্ট ইউনিটের প্রধান সমন্বয়ক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরীর নির্দেশে দুদকের সিলেট কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোস্তাফা বোরহান উদ্দিন ও উপসহকারী পরিচালক মো. আশরাফ উদ্দিনের সমন্বয়ে গঠিত এনফোর্সমেন্ট টিম অভিযানে অংশ নেয়। দুদক টিমের সঙ্গে অভিযানে অংশ নেন ফেঞ্চুগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

দুদক টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেখতে পায় ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার সিলেট-মৌলভীবাজার সড়কের ফরিদপুর এলাকার  ৪০ ফুট বাই ১৭ ফুট একটি ব্রিজের সংস্কারে পুরাতন ব্রিজের রড ব্যবহার করা হচ্ছে। দুদকের টিমের সঙ্গে থাকা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ঘটনাস্থলে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন।

এ সময় ঠিকাদারকে ১ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়।  এই কার্যক্রমের সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন সড়ক ও জনপথের সিলেট জেলার নির্বাহী প্রকৌশলী ও উপবিভাগীয় প্রকৌশলী। দুর্নীতি দমন কমিশনের নির্দেশে ওই  ব্রিজের কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে।

এ ছাড়া  দুদকের এনফোর্সমেন্ট টিম কটালপুর বাজার সংলগ্ন সরকারের সামাজিক বনায়নের বহুমূল্যবান গাছ কেটে ক্ষতিগ্রস্ত করার তথ্যপ্রমাণ পেয়েছে। এ ঘটনার সঙ্গে কারা কারা জড়িত এ সম্পর্কে প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করছে দুদক টিম।

এই অভিযান প্রসঙ্গে দুদকের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী যুগান্তরকে বলেন, দেশের যে কোনো প্রান্ত থেকে দুর্নীতি ও সরকারি স্বার্থের ক্ষতিসাধনের তথ্য পাওয়ামাত্র দুদক তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিচ্ছে। এসব ঘটনার বিরুদ্ধে দুদক অনুসন্ধান করবে এবং দুর্নীতি প্রমাণিত হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেবে।