টঙ্গীতে ডাকাতের কবলে ডিআরইউ সম্পাদক

  গাজীপুর প্রতিনিধি ০১ মার্চ ২০১৯, ২১:৫৫ | অনলাইন সংস্করণ

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক কবির আহমেদ খান
ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক কবির আহমেদ খান

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক টঙ্গীতে ডাকাত দলের কবলে পড়ে সর্বস্ব খুইয়েছন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাধারণ সম্পাদক কবির আহমেদ খান।

সশস্ত্র ডাকাত দল জ্যামে আটকা পড়া কবির আহমেদের ব্যক্তিগত গাড়ির গ্লাস ভেঙে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার, আইফোন, গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্রসহ সর্বস্ব লুটে নিয়েছে।

এ সময় গাড়িতে তার স্ত্রী ও দুই সন্তানও সঙ্গে ছিলেন।

ডাকাতদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে কবির আহমেদ আহত হয়েছেন। তিনি তাৎক্ষণিকভাবে টঙ্গী পশ্চিম থানার সহযোগিতা চেয়ে ফোন করে পুলিশের সহযোগিতা পাননি বলে অভিযোগ করেছেন।

কবির আহমেদ জানান, বৃহস্পতিবার রাতে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে প্রাইভেটকারে তিনি গ্রামের বাড়ি ত্রিশালে যাচ্ছিলেন। রাত ১টায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের টঙ্গীর গাজীপুরা বাঁশপট্টির কাছে পৌঁছলে ৫-৬ জনের একটি ডাকাত দল রাম দা ও চাপাতি দিয়ে প্রথমেই তার গাড়ির ড্রাইভিং ছিটের পাশের জানালার গ্লাস ভেঙে ফেলে।

তিনি জানান, ডাকাতরা ফিল্মি কায়দায় তার দুই শিশুসন্তানের গলায় ধারালো অস্ত্র ঠেকিয়ে তাদেরকে সব কিছু দিয়ে দিতে বলে। এ সময় তার স্ত্রী সন্তানদের প্রাণরক্ষায় একে একে তারা সব স্বর্ণালঙ্কার খুলে দিতে বাধ্য হন। এভাবে ডাকাতরা স্বর্ণের ৩টি রিং ও এক জোড়া চুড়ি নেয়ার পর ভ্যানেটি ব্যাগ ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ সব কিছু লুটে নেয়।

এ সময় ঘটনাস্থলের বিপরীত পাশে চেকপোস্টের পুলিশ নির্লিপ্ত ভূমিকায় ছিল বলে কবির আহমেদ অভিযোগ করেন।

ঘটনাটি সঙ্গে সঙ্গে জিএমপির টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসিকে জানানোর পরও পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নেয়নি বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

এ ব্যাপারে টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসি ইমদাদুল হক বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল কিন্তু মহাসড়কে জ্যামের কারণে পুলিশ যথাসময়ে পৌঁছাতে পারেনি।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় কবির আহাম্মেদ খান বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ৫-৬ জনকে আসামি করে থানায় মামলা দিয়েছেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×