অধিকাংশ দুর্ঘটনার কারণ বাস: বুয়েটের গবেষণা

  যুগান্তর রিপোর্ট ২০ মার্চ ২০১৯, ২০:৩৬ | অনলাইন সংস্করণ

বাস চাপায় নিহত তিন শিক্ষার্থী রাজু, মিম ও  আবরার।
বাস চাপায় নিহত তিন শিক্ষার্থী রাজু, মিম ও আবরার।

রাজধানীতে অধিকাংশ সড়ক দুর্ঘটনা বাসের কারণে ঘটছে বলে এক গবেষণায় জানিয়েছে বুয়েটের দুর্ঘটনা গবেষণা ইনস্টিটিউটের (এআরআই)। গবেষণায় আরও জানানো হয় সাম্প্রতিক আলোচিত সড়ক দুর্ঘটনাগুলোর সবগুলোই বাসের বেপরোয়া চালক দায়ী।

মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর প্রগতি সরণি সড়ক পার হওয়ার সময় সু-প্রভাত পরিবহনের একটি বাসের ধাক্কায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালের (বিইউপি) আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ছাত্র আবরার আহমেদ চৌধুরী নিহত হন। পরে সহপাঠীর মৃত্যুর প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করে আন্দোলনে নামেন বিইউপির শতাধিক শিক্ষার্থী।

বুধবার নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের সব কর্মসূচি আগামী ২৮ মার্চ পর্যন্ত স্থগিত ঘোষণা করেছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলামের সঙ্গে বৈঠকের পর আন্দোলনকারীরা তাদের এ সিদ্ধান্তের কথা জানান।

এর আগে গত বছরের ৩ এপ্রিল কারওয়ান বাজারে দুই বাসের রেষারেষিতে পড়ে হাত বিচ্ছিন্ন হয় তিতুমীর কলেজের ছাত্র রাজিব হোসেনের। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৬ এপ্রিল মারা যান রাজিব। একই বছরে রাজধানীর জাহাঙ্গীর গেটে বাসচাপায় নিহত হন একাত্তর টিভির বিপণন বিভাগের কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন।

গত বছরের ২৯ জুলাই বিমানবন্দর সড়কে জাবালে নূর পরিবহনের একটি বাসের চাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হয়। এ ঘটনার পর বিক্ষোভে ফেটে পড়ে ওই কলেজের শিক্ষার্থীরা। নিরাপদ সড়কের দাবিতে তারা রাস্তায় নেমে আসে। রাজধানীর অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরাও রাস্তায় নেমে আসে। নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ে সারা দেশেই।

রাজধানীর বেশির ভাগ সড়ক দুর্ঘটনা কী কারণে ঘটে থাকে, এর ওপর একটি গবেষণা পরিচালনা করেছেন বুয়েটের দুর্ঘটনা গবেষণা ইনস্টিটিউটের (এআরআই)। গবেষণায় রাজধানীতে বেশির ভাগ সড়ক দুর্ঘটনার কারণ হিসেবে উঠে এসছে বেপরোয়া বাস।

বুয়েটের এআরআই থেকে জানা যায়, ২০১৬ সালের মার্চ থেকে ২০১৮ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ৬৬৬টি দুর্ঘটনায় ৬৯৯ জন নিহত এবং এক হাজার ২২৭ জন আহত হয়েছে। এর মধ্যে ৩৫৪টি দুর্ঘটনাই বাসের কারণে ঘটেছে।

এছাড়া ১৩০টি মোটরসাইকেল, ১১৩টি ট্রাক, ৭৩টি পিকআপ এবং ৫৬টি ব্যক্তিগত গাড়ি দুর্ঘটনা ঘটিয়েছে বলে এআরআইর তথ্য।

২০১৬ সালের মার্চ থেকে থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত ঢাকায় ১২৩টি দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ১৩৭ জন, আহত হয়েছেন ৩৩৭ জন।

২০১৭ সালে ঢাকায় ২৬৩টি দুর্ঘটনা ঘটার তথ্য দিচ্ছে এআরই। তাতে ২৭৬ জন নিহত হওয়ার পাশাপাশি ৩৫৮ জন আহত হয়েছিল। সে বছর ১৪৫টি দুর্ঘটনায় বাসের সম্পৃক্ততা ছিল।

২০১৮ সালে ঢাকায় ২৮০টি সড়ক দুর্ঘটনায় ২৮৬ জন নিহত হয়। আহত হয়েছিল ৫৩২ জন। সে বছর ১৩৪টি দুর্ঘটনার কারণ বাস।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত সড়ক দুর্ঘটনার খবর পর্যালোচনা করে এসব তথ্য জানা গেছে বলে জানিয়েছেন বুয়েটের সহকারী অধ্যাপক কাজী সাইফুন নেওয়াজ।

তিনি জানান, রাজধানীতে অধিকাংশ দুর্ঘটনাগুলো ঘটছে গণপরিবহন ব্যবস্থায় বিশৃঙ্খলার কারণেই। বিশেষ করে বাসচালকরা বেশি বেপরোয়া। তাদের, বেপরোয়াভাবে বাস চালানো যাত্রীদের জীবন ঝুঁকিপূর্ণ করছে। এছাড়া তাদের আচরণগত সমস্যাও রয়েছে। রাজধানী যেসব সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে তার মধ্যে প্রথমে রয়েছে বাস। তার পরেই রয়েছে ট্রাক ও মোটরসাইকেল।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×