ট্রেনের ৫০ শতাংশ টিকিট বিক্রি হবে অ্যাপে

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ১০:৪৪ | অনলাইন সংস্করণ

রেলপথ মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন।
রেলপথ মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন। ফাইল ছবি

আগামী ২৮ এপ্রিল থেকে অ্যাপের মাধ্যমে ৫০ শতাংশ টিকিট বিক্রি হবে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন।

বৃহস্পতিবার কমলাপুর স্টেশনে অংশীজন সভাশেষে তিনি এ কথা জানান।

রেলমন্ত্রী বলেন, আগামী ২৮ এপ্রিল থেকে অ্যাপে পাওয়া যাবে ট্রেনের টিকিট। ৫০ শতাংশ টিকিট বিক্রি হবে অ্যাপের মাধ্যমে। টিকিটের দাম পরিশোধ করা যাবে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমেও। বাকি টিকিট বিক্রি হবে স্টেশনের কাউন্টার থেকে।

তিনি বলেন, ঈদযাত্রার আগাম টিকিটের ভিড় এড়াতে এবারের ঈদে কমলাপুরের বাইরেও বিক্রি হবে ট্রেনের টিকিট। ঈদের আগে ঢাকা-পঞ্চগড় রুটে নতুন ট্রেন চালু হবে। ঢাকা থেকে পার্বতীপুর পর্যন্ত বিরতিহীন চলবে এ ট্রেন। ঈদের পর বিরতিহীন ট্রেন চালু হবে ঢাকা-বেনাপোল রুটে।

মন্ত্রী বলেন, গণমাধ্যম, যাত্রী ও রেলের সেবাগ্রহীতাদের প্রবেশাধিকার না থাকায় তিনি দুঃখিত। শিগগির তিনি সবাইকে নিয়ে একটি উন্মুক্ত গণশুনানি করবেন। সেখানে রেল সম্পর্কে যাত্রী ও সেবাগ্রহীতাদের অভিযোগ শুনবেন।

আওয়ামী লীগ টানা তৃতীয়বারের মতো ক্ষমতায় এলেও রেলের বিদ্যমান দুর্দশার জন্য বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারকেই দায়ী করেন রেলমন্ত্রী। তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার রেলকে মেরে ফেলেছিল। ১৯৯১ সালে একদিনে রেলের ১০ হাজার কর্মীকে বিদায় দেয়া হয়। বহু স্টেশন ও রেলপথ বন্ধ করে দেয়। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে সেগুলো চালু করছে।

নুরুল ইসলাম সুজন বলেন, ৮০ শতাংশ যাত্রী পরিবহন হয় সড়কপথে। তিনি চেষ্টা করছেন রেলের 'যৌবন' ফিরিয়ে যাত্রী পরিবহন বাড়াতে।

বর্তমানে রেলের ২৫ শতাংশ টিকিট বিক্রি হয় মোবাইল ও অনলাইনে। ১০ শতাংশ চলে যায় কোটায়। বাকিটা বিক্রি হয় কাউন্টার থেকে। সেখানে কালোবাজারি ও ভোগান্তির অভিযোগ রয়েছে।

রেলমন্ত্রী জানান, ২৮ এপ্রিল অ্যাপ চালু হলে কালোবাজারি বন্ধ হয়ে যাবে। টিকিট পেতে ভোগান্তিও থাকবে না।

নুরুল ইসলাম সুজন আরও জানান, এবারের ঈদযাত্রায় কমলাপুর ছাড়াও বিমানবন্দর ও জয়দেবপুর স্টেশন থেকে আগাম টিকিট বিক্রি করা হবে। এ ছাড়া গুলিস্তানের ফুলবাড়িয়ার পুরনো স্টেশন থেকে টিকিট বিক্রি হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা চলছে, যেন টিএসসি থেকেও টিকিট বিক্রি করা যায়। এ ছাড়া মিরপুরে পুলিশ কনভেশন সেন্টার থেকেও টিকিট বিক্রির চেষ্টা করা হচ্ছে। মোট ছয় জায়গা থেকে টিকিট বিক্রি হবে, যা আগে শুধু কমলাপুর থেকে হতো।

মন্ত্রী জানান, আগামী ২৬ এপ্রিল ঢাকা-রাজশাহী রুটে বিরতিহীন ট্রেন 'বনলতা এক্সপ্রেস' উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন রেল সচিব মোফাজ্জেল হোসেন, রেলের মহাপরিচালক কাজী মো. রফিকুল আলম প্রমুখ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×