ভুল-ভ্রান্তি হলেও ইভিএম ব্যবহারের বিকল্প নেই: সিইসি

প্রকাশ : ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১৭:২৭ | অনলাইন সংস্করণ

  ফরিদপুর ব্যুরো

ফরিদপুর সদর উপজেলার স্মার্টজাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা বলেছেন, নির্বাচনকে ডিজিটাল পদ্ধতিতে নিয়ে আসতে দেশের সব নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করা হবে।

তিনি বলেন, ইভিএম নিয়ে অনেক সমালোচনা থাকবে, কিছু ভুল-ভ্রান্তিও হবে, তবুও ইভিএমের ব্যবহার করা হবে। কারণ সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে ইভিএম ব্যবহারের বিকল্প নেই।

বুধবার দুপুরে ফরিদপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে ফরিদপুরের সদর উপজেলার স্মার্টজাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধান নির্বাচন কমিশনার এ কথা বলেন।

সিইসির এ উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে সদর উপজেলার ৩ লাখ ৩৬ হাজার ১০৪ জনের স্মার্ট জাতীয় পরিচয় বিতরণ কার্যক্রম শুরু হলো।

সিইসি বলেন, স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র হলো নাগরিকের তথ্যভাণ্ডার, এর মধ্যে ২৬ ধরনের তথ্য সংরক্ষিত থাকবে। নাগরিক জীবনে স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্রের গুরুত্ব অনেক।

তিনি জানান, দেশের এক কোটি ৪১ লাখ নাগরিককে স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদান করা হবে।

রোহিঙ্গাদের ভুল তথ্য দিয়ে ভোটার হওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, রোহিঙ্গারা যখন এ দেশে প্রবেশ করেছে তার কিছুদিন পরই সব রোহিঙ্গাদের ১০ আঙুলের ছাপ নিয়ে রেখেছে সরকার। তাই উচ্ছা করলেই ভুল নাম বা ভুল তথ্য দিয়ে রোহিঙ্গারা ভোটার হতে পারবে না।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. আসলাম মোল্লার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ফরিদপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা নুরুজ্জামান তালুকদার, ফরিদপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. লোকমান হোসেন মৃধা, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সাইফুজ্জামান, জেলা নির্বাচন অফিসার নায়বুল ইসলাম, সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. নূরু আমীন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

পরে প্রধান অতিথি উপস্থিত কয়েকজনের মাঝে স্মার্ট জাতীয় পরিচয় বিতরণ করেন।

ফরিদপুরের আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ২৫ এপ্রিল ২০১৯ থেকে ২৮ আগস্ট ২০১৯ পর্যন্ত সদর উপজেলার ৩ লাখ ৩৬ হাজার ১০৪ জন ভোটারদের মধ্যে স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ করা হবে।