টাকা পেলেই জঙ্গিদের পক্ষে আদালতে দাঁড়ানো যাবে না: র‌্যাবপ্রধান
jugantor
টাকা পেলেই জঙ্গিদের পক্ষে আদালতে দাঁড়ানো যাবে না: র‌্যাবপ্রধান

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০২ জুন ২০১৯, ১৫:১০:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমদ
র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমদ। ফাইল ছবি

আইনজীবীদের উদ্দেশে র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমদ বলেছেন, চুরি-ডাকাতি ও ছিনতাইয়ের মতো অন্য আট-দশটি অপরাধের মতো জঙ্গিবাদকে দেখা যাবে না। টাকা পেলেই জঙ্গিদের পক্ষে আদালতে দাঁড়ানো যাবে না।

ঈদের আগে নিরাপত্তা প্রস্তুতি নিয়ে জানাতে রোববার এক সংবাদ সম্মলনে তিনি এ কথা বলেন। 

জঙ্গিদের কোনো আইনি সহায়তা না দিতে আইনজীবীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে র‌্যাব মহাপরিচালক বলেন, তাদের আইনি সহায়তা দেয়া হবে আত্মঘাতী।

তিনি আরও বলেন, ২০১৬ সালের ১ জুলাই রাতে গুলশানে ভয়াবহ ওই জঙ্গি হামলার পর থেকে এ পর্যন্ত ৫১২ জঙ্গিকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। তাদের মধ্যে প্রায় ৩০০ জন জামিনে বেরিয়ে গেছে। যারা জামিনে গেছে তাদের অধিকাংশই এখন পলাতক।

বেনজীর আহমদ বলেন, আপনারা যাদের পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করে জামিনের ব্যবস্থা করেছেন, তাদের আবার কোর্টে হাজির করেন, সমস্যা নেই। কিন্তু দেখেন, তারা প্রায় সবাই পলাতক। তাই আপনাদের প্রতি অনুরোধ, জঙ্গিদের বিষয়টাকে আপনার ভিন্নভাবে দেখবেন।

তিনি বলেন, জামিনে পলাতক জঙ্গিরা আবারও সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করছে। তবে এ নিয়ে দেশবাসীকে আতঙ্কিত না হওয়ার আহ্বান জানান র‌্যাব মহাপরিচালক।

‘জঙ্গিরা বেশিদিন এ ধরনের তৎপরতা চালাতে পারবে না বলেই আমার বিশ্বাস।’

বেনজীর বলেন, ঈদুল ফিতরে রাজধানীসহ সারা দেশে পর্যাপ্ত নিরাপত্তাব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। রেল, নৌ ও সড়কপথে নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেয়ার পাশাপাশি বাসাবাড়ি, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের সুরক্ষার বিষয়েও র‌্যাবের নজরদারি রয়েছে।

তিনি বলেন, এ জন্য ১৫টি ক্যাম্প এবং ২৪ মনিটরিং সেল করা হয়েছে যারা নিরাপত্তা বিষয়টি দেখভাল করছে।

ঈদযাত্রা কেন্দ্র করে রাজধানীর বাস, ট্রেন ও লঞ্চ টার্মিনালে ১৫টি অস্থায়ী ক্যাম্প করেছে র‌্যাব। এ ছাড়া যানজট ও দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকা চিহ্নিত করে ২৪ মনিটরিং সেল করা হয়েছে নিরাপত্তার বিষয়টি দেখভাল করার জন্য।   

ঈদে ফাঁকা শহরগুলোতে যেন কোনো অপরাধ না ঘটে, সে বিষয়ে আলাদা পরিকল্পনা রয়েছে বলেও জানান র‌্যাব প্রধান।

টাকা পেলেই জঙ্গিদের পক্ষে আদালতে দাঁড়ানো যাবে না: র‌্যাবপ্রধান

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০২ জুন ২০১৯, ০৩:১০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমদ
র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমদ। ফাইল ছবি

আইনজীবীদের উদ্দেশে র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমদ বলেছেন, চুরি-ডাকাতি ও ছিনতাইয়ের মতো অন্য আট-দশটি অপরাধের মতো জঙ্গিবাদকে দেখা যাবে না। টাকা পেলেই জঙ্গিদের পক্ষে আদালতে দাঁড়ানো যাবে না।

ঈদের আগে নিরাপত্তা প্রস্তুতি নিয়ে জানাতে রোববার এক সংবাদ সম্মলনে তিনি এ কথা বলেন।

জঙ্গিদের কোনো আইনি সহায়তা না দিতে আইনজীবীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে র‌্যাব মহাপরিচালক বলেন, তাদের আইনি সহায়তা দেয়া হবে আত্মঘাতী।

তিনি আরও বলেন, ২০১৬ সালের ১ জুলাই রাতে গুলশানে ভয়াবহ ওই জঙ্গি হামলার পর থেকে এ পর্যন্ত ৫১২ জঙ্গিকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। তাদের মধ্যে প্রায় ৩০০ জন জামিনে বেরিয়ে গেছে। যারা জামিনে গেছে তাদের অধিকাংশই এখন পলাতক।

বেনজীর আহমদ বলেন, আপনারা যাদের পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করে জামিনের ব্যবস্থা করেছেন, তাদের আবার কোর্টে হাজির করেন, সমস্যা নেই। কিন্তু দেখেন, তারা প্রায় সবাই পলাতক। তাই আপনাদের প্রতি অনুরোধ, জঙ্গিদের বিষয়টাকে আপনার ভিন্নভাবে দেখবেন।

তিনি বলেন, জামিনে পলাতক জঙ্গিরা আবারও সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করছে। তবে এ নিয়ে দেশবাসীকে আতঙ্কিত না হওয়ার আহ্বান জানান র‌্যাব মহাপরিচালক।

‘জঙ্গিরা বেশিদিন এ ধরনের তৎপরতা চালাতে পারবে না বলেই আমার বিশ্বাস।’

বেনজীর বলেন, ঈদুল ফিতরে রাজধানীসহ সারা দেশে পর্যাপ্ত নিরাপত্তাব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। রেল, নৌ ও সড়কপথে নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেয়ার পাশাপাশি বাসাবাড়ি, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের সুরক্ষার বিষয়েও র‌্যাবের নজরদারি রয়েছে।

তিনি বলেন, এ জন্য ১৫টি ক্যাম্প এবং ২৪ মনিটরিং সেল করা হয়েছে যারা নিরাপত্তা বিষয়টি দেখভাল করছে।

ঈদযাত্রা কেন্দ্র করে রাজধানীর বাস, ট্রেন ও লঞ্চ টার্মিনালে ১৫টি অস্থায়ী ক্যাম্প করেছে র‌্যাব। এ ছাড়া যানজট ও দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকা চিহ্নিত করে ২৪ মনিটরিং সেল করা হয়েছে নিরাপত্তার বিষয়টি দেখভাল করার জন্য।

ঈদে ফাঁকা শহরগুলোতে যেন কোনো অপরাধ না ঘটে, সে বিষয়ে আলাদা পরিকল্পনা রয়েছে বলেও জানান র‌্যাব প্রধান।