চলতি অর্থবছরে রেমিট্যান্স ১৫ হাজার মিলিয়ন ডলার
jugantor
চলতি অর্থবছরে রেমিট্যান্স ১৫ হাজার মিলিয়ন ডলার

  সংসদ রিপোর্টার  

২২ জুন ২০১৯, ১৯:০০:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

সংসদ অধিবেশন
সংসদ অধিবেশন। ফাইল ছবি

চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরের মে ২০১৯ পর্যন্ত প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রেরিত রেমিট্যান্সের পরিমাণ ১৫ হাজার ৫৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। 

শনিবার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে মো. আনোয়ারুল আজীমের  প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

অর্থমন্ত্রী বলেন, চলতি অর্থবছরে মে ২০১৯ পযন্ত প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রেরিত রেমিট্যান্সের পরিমাণ ১৫ হাজার ৫৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। যা গত অর্থবছরের এই সময়ের তুলনায় এক হাজার ৪৬২ মিলিয়ন ডলার বেশি।

মো. মামুনুর রশীদ কিরণের এক প্রশ্নের জবাবে মুস্তফা কামাল  বলেন, বর্তমানে দেশে মোট টিআইএনধারী করদাতার সংখ্যা ৪০ লাখ ৩৭ হাজার ৪২৯ জন।

শহীদুজ্জামান সরকারের এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, চলতি অর্থবছরে দেশে রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ২ লাখ ৮০হাজার ৬৩ কোটি টাকা (সংশোধিত)। 

বিগত অর্থবছরে (২০১৭-১৮) এ লক্ষ্যমাত্রা ছিল দুই লাখ ২৫ হাজার কোটি টাকা। আহরণ হয়েছে দুই লাখ দুই হাজার ৩১৪ দশমিক ৯৪ কোটি টাকা। অর্থাৎ লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়নি।

চলতি অর্থবছরে রেমিট্যান্স ১৫ হাজার মিলিয়ন ডলার

 সংসদ রিপোর্টার 
২২ জুন ২০১৯, ০৭:০০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সংসদ অধিবেশন
সংসদ অধিবেশন। ফাইল ছবি

চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরের মে ২০১৯ পর্যন্ত প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রেরিত রেমিট্যান্সের পরিমাণ ১৫ হাজার ৫৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

শনিবার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে মো. আনোয়ারুল আজীমের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

অর্থমন্ত্রী বলেন, চলতি অর্থবছরে মে ২০১৯ পযন্ত প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রেরিত রেমিট্যান্সের পরিমাণ ১৫ হাজার ৫৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। যা গত অর্থবছরের এই সময়ের তুলনায় এক হাজার ৪৬২ মিলিয়ন ডলার বেশি।

মো. মামুনুর রশীদ কিরণের এক প্রশ্নের জবাবে মুস্তফা কামাল বলেন, বর্তমানে দেশে মোট টিআইএনধারী করদাতার সংখ্যা ৪০ লাখ ৩৭ হাজার ৪২৯ জন।

শহীদুজ্জামান সরকারের এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, চলতি অর্থবছরে দেশে রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ২ লাখ ৮০হাজার ৬৩ কোটি টাকা (সংশোধিত)।

বিগত অর্থবছরে (২০১৭-১৮) এ লক্ষ্যমাত্রা ছিল দুই লাখ ২৫ হাজার কোটি টাকা। আহরণ হয়েছে দুই লাখ দুই হাজার ৩১৪ দশমিক ৯৪ কোটি টাকা। অর্থাৎ লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়নি।