‘অভিযোগ প্রমাণিত হলে অতিরিক্ত ডিআইজিও রেহাই পাবে না’

  যুগান্তর রিপোর্ট ১১ জুলাই ২০১৯, ১৭:৫৪ | অনলাইন সংস্করণ

অতিরিক্ত ডিআইজি গাজী মোজাম্মেল হক
অতিরিক্ত ডিআইজি গাজী মোজাম্মেল হক। ছবি: সংগৃহীত

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, জোর করে বৃদ্ধের জমিজমা ও গাড়িবাড়ি লিখে নেয়ার অভিযোগ প্রমাণিত হলে অতিরিক্ত ডিআইজি (উপ-মহাপরিদর্শক) গাজী মোজাম্মেল হকও রেহাই পাবে না। তারও সঠিক বিচার হবে।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে কর্মরত সাংবাদিকদের সংগঠন বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরামের (বিএসআরএফ) নবনির্বাচিত কার্যনির্বাহী কমিটির নেতা ও সদস্যদের সঙ্গে মতবিনিময়ে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জোর করে বৃদ্ধের জমিজমা ও গাড়িবাড়ি লিখে নেয়ার অভিযোগ প্রমাণিত হলে অতিরিক্ত ডিআইজি (উপ-মহাপরিদর্শক) গাজী মোজাম্মেল হকের সঠিক বিচার হবে।

অস্ত্রের মুখে নির্যাতন চালিয়ে জাহের আলী নামের জনৈক বৃদ্ধের জমিজমা ও গাড়িবাড়ি লিখে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে পুলিশ সদর দফতরে কর্মরত অতিরিক্ত ডিআইজি গাজী মোজাম্মেল হক ও তার স্ত্রী ফারজানা মোজাম্মেলের বিরুদ্ধে। এ নিয়ে মহানগর হাকিম আদালতে মামলা করা হয়েছে।

এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আপনি যথার্থই বলেছেন। আমি এ নিউজটি শুনেছি এবং দেখেছি। আমি আগেও বলেছি, কেউ অপরাধ করে যদি পার পেয়ে যায়, তাহলে আমরা বসে আছি কেন?

‘আমরা নিশ্চয়ই এটা দেখব। আমাদের দেখার কাজ শুরু হয়ে গেছে। আপনারা নিশ্চিন্ত থাকেন, তিনি যদি এ বিষয়ে জড়িত থাকেন, যদি প্রমাণিত হয়, তবে তার বিচারও সঠিকভাবে হবে।’

শিশু ধর্ষণের ঘটনা বিবেককে নাড়া দেয় উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, হত্যাকাণ্ড ও শিশু ধর্ষণের মতো অমানবিক ঘটনাগুলো আমাদের বিবেককে নাড়া দেয়। দেশের সামাজিক শাসন ক্ষয়ে গেছে। সামাজিক মূল্যবোধ কমে গেছে। এগুলো রোধ করতে পারলে, আমরা কিছুটা ফল পাব।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×