সন্দেহ হলেই গণপিটুনি নয়, ৯৯৯-এ কল দিন
jugantor
সন্দেহ হলেই গণপিটুনি নয়, ৯৯৯-এ কল দিন

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৩ জুলাই ২০১৯, ১০:২৫:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

সন্দেহ হলেই গণপিটুনি নয়, ৯৯৯-এ কল দিন
সন্দেহ হলেই গণপিটুনি নয়, ৯৯৯-এ কল দিন

সম্প্রতি গণপিটুনিতে কয়েকটি হত্যার ঘটনার প্রেক্ষাপটে সন্দেহের ওপর ভিত্তি করে আইন হাতে তুলে না নিয়ে পুলিশকে জানাতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সরকার।

সোমবার এক তথ্য বিবরণীতে গুজব ও গণপিটুনি নিয়ে এ সতর্কবার্তা দেয়া হয়।

গুজব ছড়ানো ও আইন নিজের হাতে তুলে নেয়া যে দণ্ডনীয় অপরাধ, সে বিষয়েও নাগরিকদের সতর্ক করে দেয়া হয়েছে।

পদ্মা সেতু নির্মাণকাজে ‘মানুষের মাথা লাগবে’ বলে সম্প্রতি ফেসবুকে যে গুজব ছড়ানো হয়, যাতে বিভ্রান্ত না হতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছিল সরকার। গুজব ছড়ানোর অভিযোগে বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতারও করা হয়।

এর মধ্যে গত বৃহস্পতিবার নেত্রকোনা শহরে এক যুবকের ব্যাগ তল্লাশি করে শিশুর মাথা পাওয়ার পর তাকে পিটিয়ে হত্যা করে এলাকাবাসী।

তার পর দেশের বিভিন্ন স্থানে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনির ঘটনা ঘটে চলছে। এতে ইতিমধ্যে অন্তত ছয়জন নিহত এবং অর্ধশতাধিক আহত হয়েছেন।

তথ্য বিবরণীতে বলা হয়, ‘একটি স্বার্থান্বেষী মহল কর্তৃক গুজব ছড়িয়ে ছেলেধরা সন্দেহে নিরীহ মানুষ পিটিয়ে হতাহত করা সংক্রান্ত খবরের প্রতি সরকারের দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে।

ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত যে কোনো ধরনের গুজব ছড়ানো ও আইন নিজের হাতে তুলে নেয়া দেশের প্রচলিত আইনের পরিপন্থী ও গুরুতর দণ্ডনীয় অপরাধ।’

এতে আরও বলা হয়, ‘কোনো বিষয়ে কাউকে সন্দেহজনক মনে হলে নিজের হাতে আইন তুলে না নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে জানানোর জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে। এ ধরনের পরিস্থিতিতে ৯৯৯-এ কল করে দ্রুত পুলিশের সাহায্য নেয়া যেতে পারে।’

সন্দেহ হলেই গণপিটুনি নয়, ৯৯৯-এ কল দিন

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৩ জুলাই ২০১৯, ১০:২৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সন্দেহ হলেই গণপিটুনি নয়, ৯৯৯-এ কল দিন
সন্দেহ হলেই গণপিটুনি নয়, ৯৯৯-এ কল দিন

সম্প্রতি গণপিটুনিতে কয়েকটি হত্যার ঘটনার প্রেক্ষাপটে সন্দেহের ওপর ভিত্তি করে আইন হাতে তুলে না নিয়ে পুলিশকে জানাতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সরকার।

সোমবার এক তথ্য বিবরণীতে গুজব ও গণপিটুনি নিয়ে এ সতর্কবার্তা দেয়া হয়।

গুজব ছড়ানো ও আইন নিজের হাতে তুলে নেয়া যে দণ্ডনীয় অপরাধ, সে বিষয়েও নাগরিকদের সতর্ক করে দেয়া হয়েছে।

পদ্মা সেতু নির্মাণকাজে ‘মানুষের মাথা লাগবে’ বলে সম্প্রতি ফেসবুকে যে গুজব ছড়ানো হয়, যাতে বিভ্রান্ত না হতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছিল সরকার। গুজব ছড়ানোর অভিযোগে বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতারও করা হয়।

এর মধ্যে গত বৃহস্পতিবার নেত্রকোনা শহরে এক যুবকের ব্যাগ তল্লাশি করে শিশুর মাথা পাওয়ার পর তাকে পিটিয়ে হত্যা করে এলাকাবাসী।

তার পর দেশের বিভিন্ন স্থানে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনির ঘটনা ঘটে চলছে। এতে ইতিমধ্যে অন্তত ছয়জন নিহত এবং অর্ধশতাধিক আহত হয়েছেন।

তথ্য বিবরণীতে বলা হয়, ‘একটি স্বার্থান্বেষী মহল কর্তৃক গুজব ছড়িয়ে ছেলেধরা সন্দেহে নিরীহ মানুষ পিটিয়ে হতাহত করা সংক্রান্ত খবরের প্রতি সরকারের দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে।

ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত যে কোনো ধরনের গুজব ছড়ানো ও আইন নিজের হাতে তুলে নেয়া দেশের প্রচলিত আইনের পরিপন্থী ও গুরুতর দণ্ডনীয় অপরাধ।’

এতে আরও বলা হয়, ‘কোনো বিষয়ে কাউকে সন্দেহজনক মনে হলে নিজের হাতে আইন তুলে না নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে জানানোর জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে। এ ধরনের পরিস্থিতিতে ৯৯৯-এ কল করে দ্রুত পুলিশের সাহায্য নেয়া যেতে পারে।’