সড়ক দুর্ঘটনার ৯ কারণ

প্রকাশ : ১৮ আগস্ট ২০১৯, ১৮:০৩ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

রোববার দুপুরে কুমিল্লায় তিশা পরিবহনের সঙ্গে সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষ। ছবি: যুগান্তর

এবারের ঈদযাত্রায় সড়ক, রেল ও নৌপথে মোট ২৪৪টি দুর্ঘটনায় ২৫৩ জন নিহত ও ৯০৮ জন আহত হয়েছেন।  এর মধ্যে শুধু সড়কপথে ২০৩টি দুর্ঘটনায় মারা গেছেন ২২৪ জন ও আহত হয়েছেন ৮৬৬ জন।

এ ছাড়া রেলপথে ১৭টি দুর্ঘটনায় ১৩ জন নিহত ও ১৫ জন আহত এবং নৌপথে ২৪টি দুর্ঘটনায় ১৬ জন নিহত, ৫৯ জন নিখোঁজ ও ২৭ জন আহত হয়েছেন। গত ৬ আগস্ট থেকে ১৭ আগস্ট পর্যন্ত ১২দিনে এ সব হতাহতের ঘটনা ঘটে। 

রোববার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ঈদযাত্রায় হতাহতের এ তথ্য জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রীকল্যাণ সমিতি।  এ সময় যাত্রীকল্যাণ সমিতির সহ-সভাপতি তাওহীদুল হক, যাত্রী অধিকার আন্দোলনের আহ্বায়ক কেফায়েত শাকিল, কনসাস কনজ্যুমারস সোসাইটির (সিসিএস) নির্বাহী পরিচালক পলাশ মাহমুদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এ সব দুর্ঘটনার জন্য বেপরোয়া গতিতে যানবাহন চালানোসহ ৯টি কারণ চিহ্নিত করেছে সংগঠনটি।  দুর্ঘটনা কমিয়ে আনতে ১২টি সুপারিশও করেছে।

দুর্ঘটনার ৯টি কারণ চিহ্নিত করা হয়েছে।  সেগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে- যানবাহনের বেপরোয়া গতি, ফিটনেসবিহীন যানবাহন ও পণ্যবাহী গাড়িতে যাত্রী বহন, পণ্যবাহী যানবাহন বন্ধের সিদ্ধান্ত অমান্য করা, অদক্ষ চালক ও হেলপার দিয়ে যানবাহন চালানো। 

দুর্ঘটনা কমাতে ১২টি সুপারিশের মধ্যে রয়েছে- অতিরিক্ত ভাড়া-নৈরাজ্য বন্ধ করা, চালকের প্রশিক্ষণ, ঈদযাত্রায় মোটরসাইকেল নিষিদ্ধ করা, ঈদের পরে মনিটরিং কার্যক্রম বহাল রাখা, চালক-শ্রমিকদের বেতন-বোনাস ও কর্মঘণ্টা নিশ্চিত করা, জাতীয় সড়ক নিরাপত্তা কাউন্সিলকে কার্যকর প্রতিষ্ঠানে গড়ে তোলা।