ডেঙ্গুতে ২৪ ঘণ্টায় ১৬১৫ রোগী হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশ : ১৯ আগস্ট ২০১৯, ১৪:৩১ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। সারাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১ হাজার ৬১৫ জন। এছাড়া সোমবার সকাল থেকে দুপুর এখন পর্যন্ত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তিন ডেঙ্গু রোগীর মৃত্যু হয়েছে। 

সোমবার স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

আগস্টের মাঝামাঝি ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত প্রতি বছরই বৃদ্ধি পায়। এর মধ্যে গত সাত দিনের বৃষ্টিতে মশার উৎসস্থল বাড়ায় ডেঙ্গু মোকাবেলায় তৈরি হয়েছে চ্যালেঞ্জ।

সোমবার মারা যাওয়া তিন জনের মধ্যে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এক সবজি বিক্রেতা, ফরিদপুর মেডিকেল হাসপাতালে এক মসজিদের খাদেম ও ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে একজনের মৃত্যু হয়েছে।

সবজি বিক্রেতা মিজানুর রহমান (৪০) গত বৃস্পতিবার থেকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। সোমবার সকাল ৭টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। তার বাড়ি খুলনার রূপসা উপজেলার খাঁজাডাঙ্গা গ্রামে।

খুলনার সিভিল সার্জন এ এস এম আব্দুর রাজ্জাক জানান, খুলনায় সোমবার পর্যন্ত ৫৭৩ জন ডেঙ্গেুতে আক্রান্ত হয়েছেন। হাসপাতালে ভর্তি ৮৯ জনের মধ্যে ২০ জন সোমবার ভর্তি হয়েছেন। বাকিরা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সোমবার ভোরে আনোয়ার হোসেন (৪০) নামে এক যুবক চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। হাসপাতালের উপ-পরিচালক লক্ষ্মী নারায়ণ মজুমদার বলেন, আনোয়ার ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে কয়েকদিন নেত্রকোণা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। রোববার দুপুরে তাকে ময়মনসিংহ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আনোয়ার নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলার আব্দুল লতিফের ছেলে।

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে দেলোয়ার হোসেন (৩৫) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। দেলোয়ার হোসেন ফরিদপুর সদর উপজেলার নর্থচ্যানেল ইউনিয়নের গোলডাঙ্গীচর এলাকার শেখ শফিউদ্দিনের ছেলে। তিনি শহরের পূর্বখাবাসপুর মসজিদের খাদেম হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক কামদা প্রসাদ সাহা বলেন, দেলোয়ার ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে রোববার হাসপাতালের পুরষ মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি হয়েছিলেন। সোমবার সাড়ে ১০টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

দেলোয়ারের বাবা শফিউদ্দিন শেখ জানান, ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হলে প্রথমে তাকে ফরিদপুর সদর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ফরিদপুর হাসপাতালে আনা হয়।

সরকারি হিসাব মতে এ বছর ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা ৫০ হাজার ছাড়িয়েছে।