আমরা কোনো ‘কমপ্রোমাইজ’ করব না: সিইসি
jugantor
আমরা কোনো ‘কমপ্রোমাইজ’ করব না: সিইসি

  রংপুর ব্যুরো  

৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৯:১২:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

রংপুরের জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে রংপুর- ৩ আসনের উপনির্বাচন উপলক্ষে আইন-শৃংখলা বিষয়ক সভায় সিইসি কেএম নুরুল হুদা

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদা বলেছেন, রংপুর সদর- ৩ আসনের উপ নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রে ভোটাররা নিরাপদে ভোট দিতে আসবেন। তারা নিরাপদে ভোট দিয়ে বাড়িতে ফিরে যাবেন এ জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

তিনি হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, নির্বাচনে কারচুপি কিংবা ভোটকেন্দ্র দখলসহ যে কোনো অনিয়মের খবর পেলে সেই ভোটকেন্দ্র বন্ধ করে দেয়া হবে। এ ব্যাপারে কোনো অনিয়ম বরদাশত করা হবে না। আমরা এ সবের সঙ্গে কোনো ‘কমপ্রোমাইজ’ করব না।

সোমবার দুপুরে রংপুরের জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে রংপুর- ৩ আসনের উপনির্বাচন উপলক্ষে আইন-শৃংখলা বিষয়ক সভা শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে কেএম নুরুল হুদা এসব কথা বলেন।

রোহিঙ্গাদের ভোটার হওয়ার বিষয়টি নির্বাচনের ব্যার্থতা নয় দাবি করে সিইসি বলেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত করা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনের সার্ভারে ১০ কোটি ৪০ লাখ ভোটারের সব ডাটা আছে। সেখানে কোনো রোহিঙ্গাদের নাম ওঠেনি। ১১ লাখ রোহিঙ্গা আছে এদের মধ্যে দুষ্ট প্রকৃতির যারা তাদের আমরা প্রতিহত করেছি। খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এটা প্রতিহত করা সম্ভব হয়েছে।

নির্বাচন কমিশনের সার্ভার থেকে নয় ওরা অন্যভাবে ভোটার আইডি কার্ড জালিয়াতি করার চেষ্টা করেছে বলে সিইসি জানান।

আইন-শৃংখলা কমিটির সভায় জেলা প্রশাসক আসিব আহসানের সভাপতিত্বে নির্বাচন কমিশনের সিনিয়র সচিব আলমগীর হোসেন, রিটার্নিং কর্মকর্তা সাহতাব উদ্দিনসহ নির্বাচন কমিশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ এবং আইন-শৃংখলা কমিটির কর্মকর্তাবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

আমরা কোনো ‘কমপ্রোমাইজ’ করব না: সিইসি

 রংপুর ব্যুরো 
৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৭:১২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
রংপুরের জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে রংপুর- ৩ আসনের উপনির্বাচন উপলক্ষে আইন-শৃংখলা বিষয়ক সভায় সিইসি কেএম নুরুল হুদা
রংপুরের জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে রংপুর- ৩ আসনের উপনির্বাচন উপলক্ষে আইন-শৃংখলা বিষয়ক সভায় সিইসি কেএম নুরুল হুদা

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদা বলেছেন, রংপুর সদর- ৩ আসনের উপ নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রে ভোটাররা নিরাপদে ভোট দিতে আসবেন।  তারা নিরাপদে ভোট দিয়ে বাড়িতে ফিরে যাবেন এ জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

তিনি হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, নির্বাচনে কারচুপি কিংবা ভোটকেন্দ্র দখলসহ যে কোনো অনিয়মের খবর পেলে সেই ভোটকেন্দ্র বন্ধ করে দেয়া হবে।  এ ব্যাপারে কোনো অনিয়ম বরদাশত করা হবে না।  আমরা এ সবের সঙ্গে কোনো ‘কমপ্রোমাইজ’ করব না।

সোমবার দুপুরে রংপুরের জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে রংপুর- ৩ আসনের উপনির্বাচন উপলক্ষে আইন-শৃংখলা বিষয়ক সভা শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে কেএম নুরুল হুদা এসব কথা বলেন।

রোহিঙ্গাদের ভোটার হওয়ার বিষয়টি নির্বাচনের ব্যার্থতা নয় দাবি করে সিইসি বলেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত করা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনের সার্ভারে ১০ কোটি ৪০ লাখ ভোটারের সব ডাটা আছে।  সেখানে কোনো রোহিঙ্গাদের নাম ওঠেনি।  ১১ লাখ রোহিঙ্গা আছে এদের মধ্যে দুষ্ট প্রকৃতির যারা তাদের আমরা প্রতিহত করেছি।  খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এটা প্রতিহত করা সম্ভব হয়েছে।

নির্বাচন কমিশনের সার্ভার থেকে নয় ওরা অন্যভাবে ভোটার আইডি কার্ড জালিয়াতি করার চেষ্টা করেছে বলে সিইসি জানান।

আইন-শৃংখলা কমিটির সভায় জেলা প্রশাসক আসিব আহসানের সভাপতিত্বে নির্বাচন কমিশনের সিনিয়র সচিব আলমগীর হোসেন, রিটার্নিং কর্মকর্তা সাহতাব উদ্দিনসহ নির্বাচন কমিশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ এবং আইন-শৃংখলা কমিটির কর্মকর্তাবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

 

ঘটনাপ্রবাহ : পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ