বাবরি মস‌জিদ মামলার রায় নিয়ে যা বললেন আল্লামা শফী

  হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি ১০ নভেম্বর ২০১৯, ২৩:৩৪ | অনলাইন সংস্করণ

আল্লামা শাহ আহমদ শফী
আল্লামা শাহ আহমদ শফী। ফাইল ছবি

ভারতের বহু বিতর্কিত বাবরি মসজিদ মামলা বা অযোধ্যা মামলা নি‌য়ে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট যে রায় দি‌য়ে‌ছে তা চরম পক্ষপাতমূলক। মূলত ক্ষমতাসীন হিন্দুত্ববাদী ‌মোদী সরকার‌কে খু‌শি কর‌তে এ রায়‌ প্রদান করে‌ছে ভারতীয় সুপ্রি‌ম কোর্ট। মুস‌লিম বিশ্ব এ রায় ঘৃণাভ‌রে প্রত্যাখ্যান ক‌রে‌ছে।

র‌োববার রাতে গণমাধ্যমে পাঠা‌নো এক বিবৃ‌তি‌তে হেফাজ‌তে ইসলাম বাংলাদেশের আমির, দারুল উলূম হাটহাজারীর মহাপ‌রিচালক আল্লামা শাহ আহমদ শফী বাবরি মস‌জি‌দের বিতর্কিত রায় প্রসঙ্গে তীব্র প্রতিবাদ জা‌নি‌য়ে একথা ব‌লেন।

‌তি‌নি ব‌লেন, ১৫২৮ সা‌লে মোঘল সম্রাট বাবরের সেনাপতি মীর বাকি কর্তৃক তৈ‌রি করা হয় বাবরি মসজিদ। ওই স্থা‌নে কথিত ও ক‌ল্পিত রাম মন্দির থাকার অজুহা‌তে ১৯৯২ সা‌লের ৬ ডিসেম্বর উগ্রবাদী হিন্দু কর্তৃক বাবরি মসজিদ শহীদ ক‌রে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টি করে শত শত মুসলমানকে শহীদ করা হয়। মুস‌লিম বিশ্ব সে ক্ষত এখ‌নো ভু‌লে‌নি।

হেফাজত আমির ব‌লেন, বাবরি মস‌জিদের বিতর্কিত মামলার ‌পক্ষপাতমূলক রায় এমন সময় দেয়া হ‌লো, যখন ভারতের মুস‌লিম জন‌গো‌ষ্ঠি হিন্দু‌দের হা‌তে চরমভা‌বে নির্যা‌তিত হ‌চ্ছে। গোমাংস ভক্ষণ ও জয়‌শ্রীরাম না বলায় পি‌টি‌য়ে হত্যা করা হচ্ছে। বা‌ড়িঘ‌রে অগ্নি‌সং‌যোগ করা হ‌চ্ছে। আমি ম‌নে ক‌রি, এ রা‌য়ে হিন্দু‌দের খু‌শি করা হ‌য়ে‌ছে। এর মাধ্যমে কট্টর হিন্দুদের উগ্রতা আরও বেড়ে যা‌বে।

আল্লামা আহমদ শফী আরও ব‌লেন, প্রত্নতত্ত্ববিদগ‌ণের বহুবার অনুসন্ধানের পরও সেখা‌নে কোনো ম‌ন্দি‌রের অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায়নি। এরপরও বাব‌রি মস‌জি‌দের স্থা‌নে রাম মন্দির স্থাপ‌নের অযৌক্তিক রায় দেয়া হ‌য়ে‌ছে। আমা‌দের আশঙ্কা এতে‌ সাম্প্রদায়িক সম্প্রী‌‌তির চরম অবন‌তি হ‌বে। এহেন মুহূ‌র্তে মুস‌লিম বি‌শ্বের বাবরি মস‌জি‌দ ইস্যু‌তে শক্তিশালী অবস্থান তৈ‌রি করা এবং ভারতীয় মু‌সলিমদের পা‌শে দাঁড়া‌নো উচিৎ।

ঘটনাপ্রবাহ : বাবরি মসজিদ মামলার রায়

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×