পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধিতে গোয়েন্দারা মাঠে নেমেছে

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ২০:৩২ | অনলাইন সংস্করণ

পেঁয়াজের আড়ৎ
পেঁয়াজের আড়ৎ। ফাইল ছবি

পেঁয়াজের দাম বাড়ার নেপথ্যে যে সব ব্যবসায়ীর কারসাজি আছে তাদের বিরুদ্ধে সরকার ব্যবস্থা নিতে বদ্ধপরিকর জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, কারা এই পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধির সঙ্গে যুক্ত, তা বের করতে গোয়েন্দারা মাঠে নেমেছে। যারা এ পেঁয়াজের মূল্য বাড়িয়েছেন, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সরকার বদ্ধপরিকর। মানুষকে জিম্মি করে এভাবে ভোগ্যপণ্যের দাম বাড়ানো কোনোভাবেই ব্যবসার নীতি হতে পারে না।

রোববার জাতীয় প্রেস ক্লাবে ভাসানী ঐক্যজোট আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, পেঁয়াজের এ উচ্চমূল্য থাকবে না। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, বিদেশ থেকে বিমানে করে পেঁয়াজ আসছে। দেশে উৎপাদিত পেঁয়াজও বাজারে এসেছে। সুতরাং খুব সহসাই পেঁয়াজের দাম কমে আসবে।

পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বিএনপির বিক্ষোভ কর্মসূচি প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি যে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে অপরাজনীতি থেকে পেঁয়াজে আশ্রয় নিয়েছে, এটি ভালো। আমি আপনাদের অনুরোধ জানাব, আপনারা অবশ্যই সরকারের সমালোচনা করুন। সরকারের ব্যর্থতা তুলে ধরুন। কিন্তু সরকার যে বিভিন্ন ক্ষেত্রে সফল, যেটি আন্তর্জাতিক মহল থেকে প্রশংসিত, সেটিও আপনারা করবেন।

মওলানা ভাসানীর অনুসারীরা বেশিরভাগই আদর্শ ত্যাগ করে অন্য দলে চলে গেছেন- এমন দাবি করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপির বড় বড় নেতা অনেকেই মওলানা ভাসানীর অনুসারী ছিলেন। যেখানে মওলানা ভাসানীর ক্ষমতার জন্য কোনো লোভ ছিল না, তার কিছু অনুসারীর এরকম অধঃপতন সত্যি আমাদের পীড়া দেয়। বিএনপির অনেক বড় বড় নেতা যারা মন্ত্রী ছিলেন, যারা আজকে স্থায়ী কমিটির সদস্য এবং ভাইস-চেয়ারম্যান, অনেকেই আছেন যারা মওলানা ভাসানীর দল করতেন, তার অনুসারী ছিলেন। অর্থাৎ ক্ষমতার জন্য জিয়াউর রহমান যখন ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট বিলিয়ে দিলেন, তখন সেই ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট গ্রহণের জন্য, তারা দল ত্যাগ করে বিএনপিতে যোগ দিয়েছিলেন। আবার অনেকে জাতীয় পার্টিতেও যোগ দিয়েছিলেন। অর্থাৎ তারা ক্ষমতার জন্য দল ত্যাগ করেছেন।

তিনি বলেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও অন্য দল করতেন। রিজভী আহমেদও ছাত্রজীবনে অন্য দল করতেন। মওদুদ আহমদ সব দল করেছেন। তাদের প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই বলতে চাই, তারা সবাই দলছুট নেতা। বিএনপির বড় বড় নেতা বেশিরভাগই হচ্ছেন দলছুট।

ক্ষমতার জন্য যারা রাজনীতি করে দেশের উন্নয়ন দেখলে তাদের গাত্রদাহ হয়, এমন দাবি করে হাছান মাহমুদ বলেন, যারা ক্ষমতার জন্য রাজনীতি করেন, তারা যখন দীর্ঘদিন ক্ষমতা থেকে দূরে থাকেন, তখন তাদের প্রচুর কষ্ট হয়। কারণ, তারা ক্ষমতার জন্যই তো রাজনীতি করেন। তারা যখন দেখেন ক্ষমতাসীনরা দেশের উন্নয়ন করছে, মানুষের মধ্যে স্বস্তি এবং শান্তি আছে, প্রতিটি মানুষের জীবনমানের উন্নয়ন হয়েছে, তখন তাদের গাত্রদাহ হয়। কারণ, এটি (উন্নয়ন) হলে তাদের নির্বাচনের মাধ্যমে জয়লাভ করা হয় না। সে কারণে আজকে দেশে যে উন্নয়ন হচ্ছে, তাতে তাদের গাত্রদাহ হচ্ছে।

ভাসানী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান এম এ ভাসানীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহে আলম মুরাদ, আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, লিয়াকত আলী প্রমুখ।

ঘটনাপ্রবাহ : পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধি

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×