ময়নাতদন্তের পর লাশ শনাক্তের সুযোগ পাবেন স্বজনরা

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৩ মার্চ ২০১৮, ১৭:২৬ | অনলাইন সংস্করণ

নেপাল
ফাইল ছবি

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ও ইউএস-বাংলার জনসংযোগ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক কামরুল ইসলাম জানিয়েছেন, নেপালে বিমান বিধ্বস্তে নিহতদের ময়নাতদন্ত শেষ হওয়ার পর কিছু আনুষঙ্গিক প্রক্রিয়া আছে এরপর মরদেহগুলো শনাক্তের সুযোগ পাবেন বাংলাদেশ থেকে আসা স্বজনরা।

ইউএস-বাংলার জনসংযোগ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক কামরুল ইসলাম বলেন, নেপালে উড়োজাহাজ দুর্ঘটনায় নিহতদের মরদেহ সেখান থেকে যে কোনো সময়ে নিয়ে আসার জন্য আমরা প্রস্তুত।

মঙ্গলবার দুপুরে তিনি জানান, নেপালে মৃতদেহের ফরেনসিকসহ কিছু আনুষঙ্গিক প্রক্রিয়া আছে। সেগুলো যখনই শেষ হয়ে যাবে সঙ্গে সঙ্গে মৃতদেহগুলো ফিরিয়ে আনা হবে। সে প্রস্তুতি আমরা নিয়ে রেখেছি।

কামরুল ইসলাম আরও বলেন, ইতিমধ্যেই আমাদের একটা প্রতিনিধিদল নেপালস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে বৈঠক করেছে। সেখান থেকে তারা সব হাসপাতালে ভিজিট করে তথ্য পাঠানোর পর আমি হতাহত এবং মৃতের প্রকৃত সংখ্যা দিতে পারব।

এর আগে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, হতাহতের চিকিৎসা এবং নিহতদের লাশ স্বজনের কাছে ফিরিয়ে দেয়ার যাবতীয় খরচ ইউএস-বাংলা বহন করবে। এছাড়া যাত্রীদের ইন্স্যুরেন্সের বিষয়টি একটি প্রক্রিয়া। তাও পরবর্তীতে সম্পন্ন করা হবে।

নেপালের মহারাজগঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মরদেহগুলোর ময়নাতদন্ত হচ্ছে বলে জানা যায়।

উল্লেখ্য, সোমবার দুপুরে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজ কাঠমান্ডুর উদ্দেশে রওনা হয়। এরপর বিমানটি কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত হয়। এতে চার ক্রুসহ ৭১ জন আরোহী ছিলেন। এর মধ্যে কমপক্ষে ৫০ জন আরোহী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ২১ জন।

ঘটনাপ্রবাহ : নেপালে ইউএস বাংলা বিধ্বস্ত

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter