জি কে শামীমের ৪ দেহরক্ষীর জামিন আবেদন খারিজ
jugantor
জি কে শামীমের ৪ দেহরক্ষীর জামিন আবেদন খারিজ

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১০ মার্চ ২০২০, ১৮:১৯:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

জি কে শামীমের ৪ দেহরক্ষীর জামিন আবেদন খারিজ

বিতর্কিত ঠিকাদার এস এম গোলাম কিবরিয়া শামীমের (জিকে শামীম) চার দেহরক্ষীর জামিন প্রশ্নে জারি করা রুল খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কেএম হাফিজুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন। আদালতে দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল হেলেনা বেগম চায়না।

পরে আমিন উদ্দিন মানিক বলেন, জি কে শামীমের চার দেহরক্ষীর জামিনের বিষয়ে রুল খারিজ করে চার মাসের মধ্যে তদন্ত শেষ করার জন্য তদন্তকারী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

তিনি আরও বলেন, এর আগে ৩ মার্চ হাইকোর্ট জিকে শামীমের চার দেহরক্ষী কীভাবে, কোন্ যোগ্যতায় অস্ত্রের লাইসেন্স পেলেন- তা জানতে চেয়েছিলেন। সঙ্গে তাদের আয়কর রিটার্ন ও অস্ত্র মামলা কেন হয়েছে, সে সব বিষয়ে হলফনামা হাইকোর্টে দাখিল করার জন্য তাদের আইনজীবীকে নির্দেশ দিয়েছিলেন। গত সোমবার আইনজীবী হলফনামা আকারে কাগজপত্র দাখিল করেন।

গত ৩ ফেব্রুয়ারি তাদের জামিন প্রশ্নে রুল জারি করেছিলেন হাইকোর্ট। জামিন আবেদনকারী আসামিরা হলেন মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম, মো. শহীদুল ইসলাম, মো. কামাল হোসেন, মো. শামশাদ হোসেন। গত ২৪ ডিসেম্বর ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের অবকাশকালীন বেঞ্চ তাদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করলে তারা হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন।

মামলার এজাহার থেকে উল্লেখ করে আমিন উদ্দিন মানিক জানান, জি কে শামীমকে অবৈধ চাঁদাবাজ, টেন্ডারবাজ, অবৈধ মাদক এবং জুয়া ব্যবসায় (ক্যাসিনো) জড়িত থাকার অপরাধে গ্রেফতার করা হয়। আর এই আসামিরা হলেন তার এ সব কর্মের সহযোগী। তাদের গ্রেফতার করে গত বছরের ২১ সেপ্টেম্বর গুলশান থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

জি কে শামীমের ৪ দেহরক্ষীর জামিন আবেদন খারিজ

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১০ মার্চ ২০২০, ০৬:১৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
জি কে শামীমের ৪ দেহরক্ষীর জামিন আবেদন খারিজ
জি কে শামীমকে ঘিরে দেহরক্ষীরা। ফাইল ছবি

বিতর্কিত ঠিকাদার এস এম গোলাম কিবরিয়া শামীমের (জিকে শামীম) চার  দেহরক্ষীর জামিন প্রশ্নে জারি করা রুল খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। 

মঙ্গলবার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কেএম হাফিজুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন। আদালতে দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল হেলেনা বেগম চায়না।

পরে আমিন উদ্দিন মানিক বলেন, জি কে শামীমের চার দেহরক্ষীর জামিনের বিষয়ে রুল খারিজ করে চার মাসের মধ্যে তদন্ত শেষ করার জন্য তদন্তকারী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। 

তিনি আরও বলেন, এর আগে ৩ মার্চ হাইকোর্ট জিকে শামীমের চার দেহরক্ষী কীভাবে, কোন্ যোগ্যতায় অস্ত্রের লাইসেন্স পেলেন- তা জানতে চেয়েছিলেন। সঙ্গে তাদের আয়কর রিটার্ন ও অস্ত্র মামলা কেন হয়েছে, সে সব বিষয়ে হলফনামা হাইকোর্টে দাখিল করার জন্য তাদের আইনজীবীকে নির্দেশ দিয়েছিলেন। গত সোমবার আইনজীবী হলফনামা আকারে কাগজপত্র দাখিল করেন। 

গত ৩ ফেব্রুয়ারি তাদের জামিন প্রশ্নে রুল জারি করেছিলেন হাইকোর্ট।  জামিন আবেদনকারী আসামিরা হলেন মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম, মো. শহীদুল ইসলাম, মো. কামাল হোসেন, মো. শামশাদ হোসেন। গত ২৪ ডিসেম্বর ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের অবকাশকালীন বেঞ্চ তাদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করলে তারা হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন। 

মামলার এজাহার থেকে উল্লেখ করে আমিন উদ্দিন মানিক জানান, জি কে শামীমকে অবৈধ চাঁদাবাজ, টেন্ডারবাজ, অবৈধ মাদক এবং জুয়া ব্যবসায় (ক্যাসিনো) জড়িত থাকার অপরাধে গ্রেফতার করা হয়। আর এই আসামিরা হলেন তার এ সব কর্মের সহযোগী। তাদের গ্রেফতার করে গত বছরের ২১ সেপ্টেম্বর গুলশান থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ক্যাসিনোয় অভিযান