এনু-রুপনের জামিন নাকচ
jugantor
এনু-রুপনের জামিন নাকচ

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১২ মার্চ ২০২০, ২২:১৫:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

এনু-রুপনের জামিন নাকচ

অবৈধ সম্পদ অর্জনের পৃথক দুই মামলায় গেণ্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাবেক নেতা এনামুল হক এনু ও তার ভাই রুপন ভূঁইয়ার জামিন নাকচ করেছেন আদালত।

এনু ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের শেয়ারহোল্ডার ও গেণ্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি। আর তার ভাই রুপন ছিলেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

বৃহস্পতিবার আসামিপক্ষে জামিন আবেদন করা হয়। অপর দিকে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষ থেকে আসামিদের জামিনের বিরোধিতা করা হয়। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত আসামিদের জামিন নাকচের ওই আদেশ দেন।

একই সঙ্গে এদিন মামলা দুটির তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ধার্য ছিল। কিন্তু এদিন দুদক তা দাখিল করেনি। এজন্য একই আদালত আগামী ২৬ এপ্রিল মামলা দুটির তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য করেন।

এনু ও রুপনের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে গত ২৩ অক্টোবর পৃথক দুই মামলা করে দুদক। এনুর বিরুদ্ধে ২১ কোটি ৮৯ লাখ ৪৩ হাজার টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা করা হয়। দুদকের সহকারী পরিচালক মামুনুর রশীদ চৌধুরী বাদী হয়ে এ মামলাটি করেন।

অপরদিকে, ১৪ কোটি ১২ লাখ ৯৫ হাজার ৮৮২ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে রুপনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। দুদকের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নেয়ামুল আহসান গাজী বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

গত বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর রাজধানীর কয়েকটি ক্লাবে অভিযান চালিয়ে জুয়ার সরঞ্জাম, কয়েক লাখ টাকা ও মদ উদ্ধার করে র‌্যাব। এরপর গত বছরের ২৪ সেপ্টেম্বর প্রথমে এনু ও রুপনের বাড়িতে এবং পরে তাদের এক কর্মচারী ও এক বন্ধুর বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে পাঁচটি সিন্দুকভর্তি প্রায় পাঁচ কোটি টাকা, আট কেজি স্বর্ণ ও ছয়টি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়। এরপর সাতটি মামলা করা হয় এনু ও রুপনের বিরুদ্ধে। এছাড়া আদালত প্রাঙ্গণে সাংবাদিক মারধরের অভিযোগে আরও একটি মামলা হয় তাদের বিরুদ্ধে।

গত ১৩ জানুয়ারি সকালে ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে এনু ও রুপন এবং তাদের সহযোগী সানিকে ৪০ লাখ টাকাসহ গ্রেফতার করে সিআইডি। বর্তমানে তারা কারাগারে আছেন।

এনু-রুপনের জামিন নাকচ

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১২ মার্চ ২০২০, ১০:১৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
এনু-রুপনের জামিন নাকচ
সিআইডির হাতে গ্রেফতার এনু ও রুপন। ফাইল ছবি

অবৈধ সম্পদ অর্জনের পৃথক দুই মামলায় গেণ্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাবেক নেতা এনামুল হক এনু ও তার ভাই রুপন ভূঁইয়ার জামিন নাকচ করেছেন আদালত। 

এনু ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের শেয়ারহোল্ডার ও গেণ্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি। আর তার ভাই রুপন ছিলেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

বৃহস্পতিবার আসামিপক্ষে জামিন আবেদন করা হয়। অপর দিকে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষ থেকে আসামিদের জামিনের বিরোধিতা করা হয়। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত আসামিদের জামিন নাকচের ওই আদেশ দেন। 

একই সঙ্গে এদিন মামলা দুটির তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ধার্য ছিল। কিন্তু এদিন দুদক তা দাখিল করেনি। এজন্য একই আদালত আগামী ২৬ এপ্রিল মামলা দুটির তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য করেন।

এনু ও রুপনের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে গত ২৩ অক্টোবর পৃথক দুই মামলা করে দুদক। এনুর বিরুদ্ধে ২১ কোটি ৮৯ লাখ ৪৩ হাজার টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা করা হয়। দুদকের সহকারী পরিচালক মামুনুর রশীদ চৌধুরী বাদী হয়ে এ মামলাটি করেন। 

অপরদিকে, ১৪ কোটি ১২ লাখ ৯৫ হাজার ৮৮২ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে রুপনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। দুদকের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নেয়ামুল আহসান গাজী বাদী হয়ে মামলাটি করেন। 

গত বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর রাজধানীর কয়েকটি ক্লাবে অভিযান চালিয়ে জুয়ার সরঞ্জাম, কয়েক লাখ টাকা ও মদ উদ্ধার করে র‌্যাব। এরপর গত বছরের ২৪ সেপ্টেম্বর প্রথমে এনু ও রুপনের বাড়িতে এবং পরে তাদের এক কর্মচারী ও এক বন্ধুর বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে পাঁচটি সিন্দুকভর্তি প্রায় পাঁচ কোটি টাকা, আট কেজি স্বর্ণ ও ছয়টি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়। এরপর সাতটি মামলা করা হয় এনু ও রুপনের বিরুদ্ধে। এছাড়া আদালত প্রাঙ্গণে সাংবাদিক মারধরের অভিযোগে আরও একটি মামলা হয় তাদের বিরুদ্ধে। 

গত ১৩ জানুয়ারি সকালে ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে এনু ও রুপন এবং তাদের সহযোগী সানিকে ৪০ লাখ টাকাসহ গ্রেফতার করে সিআইডি। বর্তমানে তারা কারাগারে আছেন।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ক্যাসিনোয় অভিযান