খাসোগি হত্যার খবর প্রকাশের জেরে সৌদিতে তুরস্কের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা নিষিদ্ধ
jugantor
খাসোগি হত্যার খবর প্রকাশের জেরে সৌদিতে তুরস্কের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা নিষিদ্ধ

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১৫ এপ্রিল ২০২০, ০০:০৫:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

খাসোগি হত্যার খবর প্রকাশের জেরে সৌদিতে তুরস্কের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা নিষিদ্ধ
ফাইল ছবি

তুরস্কের সরকারি বার্তা সংস্থা আনাদলুর ওয়েবসাইট নিষিদ্ধ করে দিয়েছে সৌদি আরব। আল-মারসাদ পত্রিকা জানায়, সূত্রের মাধ্যমে তারা জানতে পেরেছে তুরস্কের বিভিন্ন গণমাধ্যম সৌদিতে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

এসব গণমাধ্যমের একটি হচ্ছে আনাদলু। সৌদি-সংক্রান্ত খবর শেয়ার করা একটি টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে বলা হয়েছে, সৌদি আরবে আনাদলু সংবাদ সংস্থা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

মার্কিন দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্টের সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে ২০১৮ সালের ২ অক্টোবর ইস্তানবুলের সৌদি দূতাবাসে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। এই হত্যাকাণ্ডে তখন সারা দুনিয়াজুড়ে আলোড়ন সৃষ্টি করে।

এই সাংবাদিককে হত্যাকাণ্ড নিয়ে খবর প্রচার করায় ক্ষিপ্ত হয়ে সৌদি সরকার এমন উদ্যোগ নিয়েছে বলে জানিয়েছেন বার্তা সংস্থাটির এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের প্রধান করেসপন্ডেন্ট সারওয়ার আলম।

মঙ্গলবার রাতে ভার্চুয়াল মাধ্যমে যুগান্তরকে দেয়া সংক্ষিপ্ত সাক্ষাৎকারে সারওয়ার আলম বলেন, আনাদলু এজেন্সি সৌদিতে বন্ধ করার ব্যাপারে আমরা খবর পেয়েছি। সংবাদটি যদি সত্যি হয় এবং সেটা যদি সরকারের পক্ষ থেকে করা হয়; তবে তা হবে গণমাধ্যমের স্বাধীনতার ওপর এক চরম করাঘাত। 

তিনি বলেন, আনাদলু এজেন্সি সত্য উদ্ঘাটনে এবং বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনে বদ্ধপরিকর। এ সংবাদ সংস্থাটি কোনও দেশ, জাতি বা সরকারে শত্রু নয়।

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এ তুর্কি সাংবাদিক আরও বলেন, সারা বিশ্বে আনাদলুর লক্ষ পাঠক গ্রাহকই এর জ্বলন্ত প্রমাণ। গণমাধ্যমের মুখ বন্ধ করে সত্যকে চাপিয়ে রাখা যায় না; বরং এর মাধ্যমে নিজেদেরই সংকীর্ণতার প্রকাশ পায়।
সৌদির গণমাধ্যম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত অনুসারে, আনাদুলুর আরবি সংস্করণের ওয়েবসাইট দেশটিতে নিষিদ্ধ করার কথা জানিয়েছেন রিয়াদের টুইটার ব্যবহারকারী, বিভিন্ন গণমাধ্যম, সাংবাদিক ও সুপরিচিত ব্যক্তিরা।

তবে সোমবার পর্যন্ত সৌদি আরব কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়নি।

বার্তা সংস্থা আনাদুলু নিষিদ্ধের খবর নিশ্চিত করে টুইট করেছেন সাংবাদিক খালাফ আল-দোসারি। তিনি সৌদি সাংবাদিক সমিতির একজন সদস্য।

গত সপ্তাহে টুইটারে আনাদুলু সংস্থাকে ‘বৈদ্যুতিক মশা’ আখ্যায়িত করে সমালোচনা করে সৌদি সরকারপন্থী বিভিন্ন সামাজিকমাধ্যম। এতে তুর্কি সংবাদসংস্থাটি বন্ধেরও দাবি করা হয়েছে।

সৌদি আরবের বিভিন্ন কার্যক্রম অনুসরণ করা লোকজন বলেন, এটা ছিল আনাদলুকে নিষিদ্ধের আনুষ্ঠানিক প্রস্তাবনা। সোমবার সংবাদ সংস্থাটি তার প্রতিষ্ঠার শতবর্ষ উদযাপন করেছে। ১৯২০ সালের ৬ এপ্রিল এটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

খাসোগি হত্যার খবর প্রকাশের জেরে সৌদিতে তুরস্কের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা নিষিদ্ধ

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১৫ এপ্রিল ২০২০, ১২:০৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
খাসোগি হত্যার খবর প্রকাশের জেরে সৌদিতে তুরস্কের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা নিষিদ্ধ
ফাইল ছবি

তুরস্কের সরকারি বার্তা সংস্থা আনাদলুর ওয়েবসাইট নিষিদ্ধ করে দিয়েছে সৌদি আরব। আল-মারসাদ পত্রিকা জানায়, সূত্রের মাধ্যমে তারা জানতে পেরেছে তুরস্কের বিভিন্ন গণমাধ্যম সৌদিতে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

এসব গণমাধ্যমের একটি হচ্ছে আনাদলু। সৌদি-সংক্রান্ত খবর শেয়ার করা একটি টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে বলা হয়েছে, সৌদি আরবে আনাদলু সংবাদ সংস্থা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

মার্কিন দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্টের সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে ২০১৮ সালের ২ অক্টোবর ইস্তানবুলের সৌদি দূতাবাসে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। এই হত্যাকাণ্ডে তখন সারা দুনিয়াজুড়ে আলোড়ন সৃষ্টি করে।

এই সাংবাদিককে হত্যাকাণ্ড নিয়ে খবর প্রচার করায় ক্ষিপ্ত হয়ে সৌদি সরকার এমন উদ্যোগ নিয়েছে বলে জানিয়েছেন বার্তা সংস্থাটির এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের প্রধান করেসপন্ডেন্ট সারওয়ার আলম।

মঙ্গলবার রাতে ভার্চুয়াল মাধ্যমে যুগান্তরকে দেয়া সংক্ষিপ্ত সাক্ষাৎকারে সারওয়ার আলম বলেন, আনাদলু এজেন্সি সৌদিতে বন্ধ করার ব্যাপারে আমরা খবর পেয়েছি। সংবাদটি যদি সত্যি হয় এবং সেটা যদি সরকারের পক্ষ থেকে করা হয়; তবে তা হবে গণমাধ্যমের স্বাধীনতার ওপর এক চরম করাঘাত।

তিনি বলেন, আনাদলু এজেন্সি সত্য উদ্ঘাটনে এবং বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনে বদ্ধপরিকর। এ সংবাদ সংস্থাটি কোনও দেশ, জাতি বা সরকারে শত্রু নয়।

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এ তুর্কি সাংবাদিক আরও বলেন, সারা বিশ্বে আনাদলুর লক্ষ পাঠক গ্রাহকই এর জ্বলন্ত প্রমাণ। গণমাধ্যমের মুখ বন্ধ করে সত্যকে চাপিয়ে রাখা যায় না; বরং এর মাধ্যমে নিজেদেরই সংকীর্ণতার প্রকাশ পায়।
সৌদির গণমাধ্যম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত অনুসারে, আনাদুলুর আরবি সংস্করণের ওয়েবসাইট দেশটিতে নিষিদ্ধ করার কথা জানিয়েছেন রিয়াদের টুইটার ব্যবহারকারী, বিভিন্ন গণমাধ্যম, সাংবাদিক ও সুপরিচিত ব্যক্তিরা।

তবে সোমবার পর্যন্ত সৌদি আরব কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়নি।

বার্তা সংস্থা আনাদুলু নিষিদ্ধের খবর নিশ্চিত করে টুইট করেছেন সাংবাদিক খালাফ আল-দোসারি। তিনি সৌদি সাংবাদিক সমিতির একজন সদস্য।

গত সপ্তাহে টুইটারে আনাদুলু সংস্থাকে ‘বৈদ্যুতিক মশা’ আখ্যায়িত করে সমালোচনা করে সৌদি সরকারপন্থী বিভিন্ন সামাজিকমাধ্যম। এতে তুর্কি সংবাদসংস্থাটি বন্ধেরও দাবি করা হয়েছে।

সৌদি আরবের বিভিন্ন কার্যক্রম অনুসরণ করা লোকজন বলেন, এটা ছিল আনাদলুকে নিষিদ্ধের আনুষ্ঠানিক প্রস্তাবনা। সোমবার সংবাদ সংস্থাটি তার প্রতিষ্ঠার শতবর্ষ উদযাপন করেছে। ১৯২০ সালের ৬ এপ্রিল এটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

 

ঘটনাপ্রবাহ : সাংবাদিক জামাল খাসোগি নিখোঁজ

আরও খবর