কাঠমান্ডু ট্রাজেডি

পঙ্গুত্ব নিয়েই বেঁচে থাকতে হবে কবিরকে

  শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি ২৭ মার্চ ২০১৮, ১৮:৪০ | অনলাইন সংস্করণ

কবির

নেপালে ইউএস-বাংলা বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় প্রাণে বেঁচে গেলেও পঙ্গুত্ব নিয়েই বাকি জীবন কাটাতে হবে মাদারীপুরের শিবচরের কসমেটিকস ব্যবসায়ী কবির হোসেনকে। কাঠমান্ডু ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান দুর্ঘটনার ১৬ দিন পর সিঙ্গাপুরের জেনারেল হাসপাতালে তিন ঘণ্টা অস্ত্রোপচারের পর তার ডান পায়ের মাঝামাঝি অংশ থেকে কেটে ফেলা হয়েছে। তবে কবির হোসেনের পা কাটা গেলেও তার বাঁচাটাই এখন স্ত্রী, সন্তান ও স্বজনদের চাওয়া।

সোমবার বাংলাদেশ সময় রাত ৯টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত তার পায়ে অস্ত্রোপচার করা হয় বলে নিশ্চিত করেন কবির হোসেনের কাছে থাকা তার বড় ছেলে শাওন মাদবর। তিনি জানান, কবির হোসেনের ডান পায়ের মাঝামাঝি অংশ কেটে ফেলার পড়েও তিনি এখনও শঙ্কামুক্ত নন। তার শ্বাস-প্রশ্বাসে অনেক কষ্ট হচ্ছে। শরীরে অতিরিক্ত ব্যাথা শুরু হলে দুটি চোখ দিয়ে শুধু পানি ঝরে। বেশ কিছু দিন ধরে কথাও বলতে পারছেন না তিনি। তরল খাবারও ঠিক মতো খেতে পারেন না। খাবারের পর শুধু বমি করেন তিনি। এরপর দেখা দেয় আবার অসুস্থতা। এভাবেই দিনরাত কাটছে জীবনমৃত্যুর সন্ধিক্ষণে থাকা কবির হোসেনের। বুকের ব্যাথা অনুভব হলে হাতের ইশারা দিয়ে কাছে থাকা স্বজনদের ডেকে দেখান। পোড়া অংশের ব্যাথায় ফুলে গেছে শরীরের বিভিন্ন স্থান।

শাওন আরও জানান, সোমবার মধ্য রাতে ৩ ঘণ্টা অস্ত্রোপচারের পর বাবার ডান পায়ের মাঝামাঝি অংশ থেকে কেটে ফেলা হয়েছে। অপারেশনের পরেও তিনি শঙ্কামুক্ত নন। শ্বাস-প্রশ্বাসে কষ্টসহ শরীরের বিভিন্ন যন্ত্রণায় সারাক্ষণ কাদছেন।

কবিরের স্ত্রী হেনা বেগম জানান, স্বামী পঙ্গু হওয়ার কষ্টকে মেনে নিয়েছি। তবুও সে জীবিত অবস্থায় আমার সন্তানদের ও স্বজনদের কাছে বেঁচে থাকুক। এটাই আমার শেষ চাওয়া বিধাতার কাছে।

উল্লেখ্য, গত ১২ মার্চ নেপালের কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলার বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ৫১ জন মারা যান। এর মধ্যে ২৬ জনই বাংলাদেশি। পরে সোমবার ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে ভর্তি শাহিন ব্যাপারী মারা যান। ফলে এ দুর্ঘটনায় মোট মৃতের সংখ্যা দাড়াল ৫২ জনে। বাংলাদেশি মৃতের সংখ্যা হলো ২৭।

নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় আহত কবির হোসেনকে বাংলাদেশে এনে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল। পরে রোববার দিবাগত রাত ১টার দিকে ঢামেক হাসপাতালের পুরাতন ভবনের আইসিইউ থেকে লাইফ সার্পোটে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় তার উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর নেয়া হয়।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter