বিএসএমএমইউতে চালু হচ্ছে ৩৭০ শয্যার‘করোনা সেন্টার’ 
jugantor
বিএসএমএমইউতে চালু হচ্ছে ৩৭০ শয্যার‘করোনা সেন্টার’ 

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০২ জুলাই ২০২০, ১৯:২৮:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ)

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুযায়ী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ৩৭০ শয্যার ‘করোনা সেন্টার’ চালু করা হচ্ছে।

শনিবার থেকে করোনা রোগীদের চিকিৎসায় এই সেবা চালু করার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া।

বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রশান্ত কুমার মজুমদার জানান, ৩৭০ শয্যার মধ্যে ‘কেবিন ব্লকে’ শয্যার সংখ্যা ২৫০টি এবং ‘বেতার ভবনে’ শয্যার সংখ্যা ১২০টি। ‘কেবিন ব্লকে’ ২৫০ শয্যার মধ্যে ইমার্জেন্সি রোগীদের জন্য রয়েছে ২৪টি শয্যা এবং আইসিইউ শয্যা সংখ্যা হল ১৫টি।

কেবিন ব্লকে ‘সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্ল্যান্ট’ স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়াও রোগীদের সেবা নিশ্চিত করার জন্য হাইফ্লো ন্যাসাল ক্যানুলা, নন ইনভেসিভ ভেন্টিলেটর, যেমন- সি-প্যাপ, অক্সিজেন কনসানট্রেটর ইত্যাদি স্থাপন করার কাজ প্রায় সম্পন্নের দিকে। প্রতিটি শয্যায় রয়েছে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সাপোর্টসহ অন্যান্য চিকিৎসা সুবিধাসমূহ। মূলত গুরুতর অসুস্থ রোগীরাই এখানে ভর্তি হবেন।

এদিকে, বেতার ভবনের ১২০ শয্যায় ভর্তি হবেন করোনায় আক্রান্ত মডারেট রোগাক্রান্ত রোগীরা।

ইতিমধ্যে ‘কেবিন ব্লক’ ও ‘বেতার ভবনে’ করোনা সেন্টার চালুর জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়ার সভাপতিত্বে সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক, ডাক্তার, নার্সসহ সব পর্যায়ের স্বাস্থ্যকর্মীদের সাথে অনুষ্ঠিত সফল সভাসমূহে প্রয়োজনীয় দিক-নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

বিএসএমএমইউতে চালু হচ্ছে ৩৭০ শয্যার‘করোনা সেন্টার’ 

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০২ জুলাই ২০২০, ০৭:২৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ)
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ)। ফাইল ছবি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুযায়ী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ৩৭০ শয্যার ‘করোনা সেন্টার’ চালু করা হচ্ছে। 

শনিবার থেকে করোনা রোগীদের চিকিৎসায় এই সেবা চালু করার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রশান্ত কুমার মজুমদার জানান, ৩৭০ শয্যার মধ্যে ‘কেবিন ব্লকে’ শয্যার সংখ্যা ২৫০টি এবং ‘বেতার ভবনে’ শয্যার সংখ্যা ১২০টি। ‘কেবিন ব্লকে’ ২৫০ শয্যার মধ্যে ইমার্জেন্সি রোগীদের জন্য রয়েছে ২৪টি শয্যা এবং আইসিইউ শয্যা সংখ্যা হল ১৫টি।

কেবিন ব্লকে ‘সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্ল্যান্ট’ স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়াও রোগীদের সেবা নিশ্চিত করার জন্য হাইফ্লো ন্যাসাল ক্যানুলা, নন ইনভেসিভ ভেন্টিলেটর, যেমন- সি-প্যাপ, অক্সিজেন কনসানট্রেটর ইত্যাদি স্থাপন করার কাজ প্রায় সম্পন্নের দিকে। প্রতিটি শয্যায় রয়েছে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সাপোর্টসহ অন্যান্য চিকিৎসা সুবিধাসমূহ। মূলত গুরুতর অসুস্থ রোগীরাই এখানে ভর্তি হবেন।

এদিকে, বেতার ভবনের ১২০ শয্যায় ভর্তি হবেন করোনায় আক্রান্ত মডারেট রোগাক্রান্ত রোগীরা। 

ইতিমধ্যে ‘কেবিন ব্লক’ ও ‘বেতার ভবনে’ করোনা সেন্টার চালুর জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়ার সভাপতিত্বে সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক, ডাক্তার, নার্সসহ সব পর্যায়ের স্বাস্থ্যকর্মীদের সাথে অনুষ্ঠিত সফল সভাসমূহে প্রয়োজনীয় দিক-নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস