জাতিসংঘের আইকাও এক্সপার্ট স্বীকৃতি পেলেন শফিউল আজম
jugantor
জাতিসংঘের আইকাও এক্সপার্ট স্বীকৃতি পেলেন শফিউল আজম

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০৮ আগস্ট ২০২০, ২১:৪৬:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

শফিউল আজম। ফাইল ছবি
শফিউল আজম। ফাইল ছবি

জাতিসংঘের আইকাও (আর্ন্তজাতিক সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেশন) বিশেষজ্ঞ হিসাবে স্বীকৃতি পেলেন বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) এয়ারওয়ার্দিনেস ইন্সপেক্টর শফিউল আজম। এই স্বীকৃতির ফলে শফিউল আজম জাতিসংঘের অধিনস্ত আইকাও তালিকাভুক্ত ১৯৩টি দেশে এভিয়েশন অডিট করতে পারবেন। 

জানা গেছে, দক্ষিণ এশিয়ায় এই স্বীকৃতি মাত্র দু‘জনের রয়েছে। অপরজন হলেন ভারতীয় নাগরিক। 

শফিউল আজমের আগে ২০১৮ সালে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) এভিয়েশন বিশেষজ্ঞ হিসাবে স্বীকৃতি অর্জন করেছিলেন। তখন ইইউ’র পক্ষ থেকে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী বরাবর চিঠি দিয়ে স্বীকৃতির বিষয়টি জানানো হয়েছিল। চিঠিতে তার এই অভিজ্ঞতা এই অঞ্চলের অন্যান্য দেশে শেয়ার করার জন্য ইইউ তখন সরকারের কাছে অনুরোধ জানায়।

শফিউল আজম বেবিচকের সিনিয়র এয়ার ওয়ার্দিনেস ইন্সপেক্টর হিসাবে কর্মরত রয়েছেন। তিনি চট্টগ্রাম প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। এছাড়া একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ ডিগ্রি অর্জন করেন। ইতিমধ্যে তিনি যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে এভিয়েশন এক্সপার্ট হিসাবে সরকারের পক্ষে প্রতিনিধিত্ব করেছেন।

এ প্রসঙ্গে শফউল আজম বলেন, তার এই স্বীকৃতি অর্জনের জন্য ২০ মাসের বেশি সময় লেগেছে। যদিও নিজ উদ্যোগে তিনি এ স্বীকৃতির জন্য কাজ করেছেন তারপরও তার কর্মস্থল সিভিল এভিয়েশনের চেয়ারম্যান, মেম্বার থেকে শুরু করে সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সহযোগিতা ছিল বলে জানান। তিনি এজন্য সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। 

তিনি বলেন, দীর্ঘ ২০ মাস ধরে তিনি কয়েক দফায় লিখিত পরীক্ষা, ডুমমেন্ট অ্যাভুলেশন, এক্সপেরিয়েন্স ভেরিফিকেশন ও সর্বশেষ মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে এই স্বীকৃতি অর্জন করেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অসংখ্য পক্ষার্থীর মধ্যে এ বছর তিনি এই স্বীকৃতি অর্জন করেন বলেও জানান। 

তিনি বলেন, তার পরীক্ষায় সন্তুষ্ট হয়ে জাতিসংঘ তার সব ধরনের ফি মওকুফ করে দেন।

জাতিসংঘের আইকাও এক্সপার্ট স্বীকৃতি পেলেন শফিউল আজম

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০৮ আগস্ট ২০২০, ০৯:৪৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
শফিউল আজম। ফাইল ছবি
শফিউল আজম। ফাইল ছবি

জাতিসংঘের আইকাও (আর্ন্তজাতিক সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেশন) বিশেষজ্ঞ হিসাবে স্বীকৃতি পেলেন বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) এয়ারওয়ার্দিনেস ইন্সপেক্টর শফিউল আজম। এই স্বীকৃতির ফলে শফিউল আজম জাতিসংঘের অধিনস্ত আইকাও তালিকাভুক্ত ১৯৩টি দেশে এভিয়েশন অডিট করতে পারবেন।

জানা গেছে, দক্ষিণ এশিয়ায় এই স্বীকৃতি মাত্র দু‘জনের রয়েছে। অপরজন হলেন ভারতীয় নাগরিক।

শফিউল আজমের আগে ২০১৮ সালে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) এভিয়েশন বিশেষজ্ঞ হিসাবে স্বীকৃতি অর্জন করেছিলেন। তখন ইইউ’র পক্ষ থেকে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী বরাবর চিঠি দিয়ে স্বীকৃতির বিষয়টি জানানো হয়েছিল। চিঠিতে তার এই অভিজ্ঞতা এই অঞ্চলের অন্যান্য দেশে শেয়ার করার জন্য ইইউ তখন সরকারের কাছে অনুরোধ জানায়।

শফিউল আজম বেবিচকের সিনিয়র এয়ার ওয়ার্দিনেস ইন্সপেক্টর হিসাবে কর্মরত রয়েছেন। তিনি চট্টগ্রাম প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। এছাড়া একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ ডিগ্রি অর্জন করেন। ইতিমধ্যে তিনি যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে এভিয়েশন এক্সপার্ট হিসাবে সরকারের পক্ষে প্রতিনিধিত্ব করেছেন।

এ প্রসঙ্গে শফউল আজম বলেন, তার এই স্বীকৃতি অর্জনের জন্য ২০ মাসের বেশি সময় লেগেছে। যদিও নিজ উদ্যোগে তিনি এ স্বীকৃতির জন্য কাজ করেছেন তারপরও তার কর্মস্থল সিভিল এভিয়েশনের চেয়ারম্যান, মেম্বার থেকে শুরু করে সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সহযোগিতা ছিল বলে জানান। তিনি এজন্য সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।

তিনি বলেন, দীর্ঘ ২০ মাস ধরে তিনি কয়েক দফায় লিখিত পরীক্ষা, ডুমমেন্ট অ্যাভুলেশন, এক্সপেরিয়েন্স ভেরিফিকেশন ও সর্বশেষ মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে এই স্বীকৃতি অর্জন করেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অসংখ্য পক্ষার্থীর মধ্যে এ বছর তিনি এই স্বীকৃতি অর্জন করেন বলেও জানান।

তিনি বলেন, তার পরীক্ষায় সন্তুষ্ট হয়ে জাতিসংঘ তার সব ধরনের ফি মওকুফ করে দেন।

 
আরও খবর