করোনার টিকার জন্য আলাদা অর্থ রাখা হয়েছে: অর্থমন্ত্রী
jugantor
করোনার টিকার জন্য আলাদা অর্থ রাখা হয়েছে: অর্থমন্ত্রী

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১২ আগস্ট ২০২০, ১৬:৩৭:১৩  |  অনলাইন সংস্করণ

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল
অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। ফাইল ছবি

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, টিকার জন্য একটি সোর্সের ওপর নির্ভর না করে একাধিক সোর্স থেকে টিকা সংগ্রহের ব্যবস্থা করতে হবে। যারাই টিকা তৈরি করে তাদের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ করতে হবে। এজন্য আমরা কিছু অর্থ রেখে দিয়েছি যখন প্রয়োজন হবে তখন যাতে টিকা কিনতে পারি।

বুধবারসরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, করোনার টিকার বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মিটিং করবেন সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য যে, আমরা কাদের কাছ থেকে টিকা সংগ্রহ করব। তাছাড়া ইতিমধ্যে সংগ্রহের কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে কিনা তা আমরা জানতে পারব। যেহেতু আমরা এখনো এ নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত পাইনি তাই আমার মনে হয় আমার চূড়ান্তভাবে কিছু বলা ঠিক হবে না।

মুস্তফা কামাল বলেন, টিকা নিয়ে আমার সাধারণ জ্ঞানে যা বুঝি যে, একটি সিঙ্গেল সোর্সের ওপর বসে থাকলে হয়তো কষ্ট হবে। সেজন্য একাধিক সোর্স থেকে এই টিকা আমরা যদি সংগ্রহ করতে পারি। ইতিমধ্যেই দেখেছি পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে অগ্রিম টাকা পয়সাও দিয়েছে। আমি স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে সে কথাই বলেছি আমাদেরও সে ধরনের ব্যবস্থায় যেতে হবে।

অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, অক্সফোর্ড ইতিমধ্যে ভারতসহ বিভিন্ন দেশের সঙ্গে চুক্তি করেছে। আমরা যদি সরাসরি অক্সফোর্ডের সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে না পারি তাহলে ভারতের কোম্পানির সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে পারি। আমাদের পিছিয়ে থাকলে হবে না। অন্য সোর্স থেকে চেষ্টা করতে হবে যেখান থেকে পাব সেখান থেকেই আমাদের ভ্যাকসিন বা টিকা নিতে হবে। টিকা আমাদের লাগবে। যদিও রাশিয়া টিকা প্রয়োগ করেছে। যারাই টিকা তৈরি করে তাদের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ করতে হবে। এজন্য আমরা কিছু অর্থ রেখে দিয়েছি। যাতে করে যখনই প্রয়োজন হবে তখন আমরা অর্থায়ন করতে পারি সেই টিকা কেনার জন্য।

করোনার টিকার জন্য আলাদা অর্থ রাখা হয়েছে: অর্থমন্ত্রী

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১২ আগস্ট ২০২০, ০৪:৩৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল
অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। ফাইল ছবি

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, টিকার জন্য একটি সোর্সের ওপর নির্ভর না করে একাধিক সোর্স থেকে টিকা সংগ্রহের ব্যবস্থা করতে হবে। যারাই টিকা তৈরি করে তাদের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ করতে হবে। এজন্য আমরা কিছু অর্থ রেখে দিয়েছি যখন প্রয়োজন হবে তখন যাতে টিকা কিনতে পারি।

বুধবারসরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, করোনার টিকার বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মিটিং করবেন সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য যে, আমরা কাদের কাছ থেকে টিকা সংগ্রহ করব। তাছাড়া ইতিমধ্যে সংগ্রহের কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে কিনা তা আমরা জানতে পারব। যেহেতু আমরা এখনো এ নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত পাইনি তাই আমার মনে হয় আমার চূড়ান্তভাবে কিছু বলা ঠিক হবে না।

মুস্তফা কামাল বলেন, টিকা নিয়ে আমার সাধারণ জ্ঞানে যা বুঝি যে, একটি সিঙ্গেল সোর্সের ওপর বসে থাকলে হয়তো কষ্ট হবে। সেজন্য একাধিক সোর্স থেকে এই টিকা আমরা যদি সংগ্রহ করতে পারি। ইতিমধ্যেই দেখেছি পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে অগ্রিম টাকা পয়সাও দিয়েছে। আমি স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে সে কথাই বলেছি আমাদেরও সে ধরনের ব্যবস্থায় যেতে হবে।

অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, অক্সফোর্ড ইতিমধ্যে ভারতসহ বিভিন্ন দেশের সঙ্গে চুক্তি করেছে। আমরা যদি সরাসরি অক্সফোর্ডের সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে না পারি তাহলে ভারতের কোম্পানির সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে পারি। আমাদের পিছিয়ে থাকলে হবে না। অন্য সোর্স থেকে চেষ্টা করতে হবে যেখান থেকে পাব সেখান থেকেই আমাদের ভ্যাকসিন বা টিকা নিতে হবে। টিকা আমাদের লাগবে। যদিও রাশিয়া টিকা প্রয়োগ করেছে। যারাই টিকা তৈরি করে তাদের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ করতে হবে। এজন্য আমরা কিছু অর্থ রেখে দিয়েছি। যাতে করে যখনই প্রয়োজন হবে তখন আমরা অর্থায়ন করতে পারি সেই টিকা কেনার জন্য।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও খবর