পরিবর্তন হতে পারে সিনহা হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা
jugantor
পরিবর্তন হতে পারে সিনহা হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১৪ আগস্ট ২০২০, ০১:৩৬:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

পরিবর্তন হতে পারে সিনহা হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা
ফাইল ছবি

সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পরিবর্তন করা হতে পারে। 

র‌্যাব-১৫ এর সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) জামিলুল হক মামলাটির তদন্ত করছিলেন। তার স্থলে নতুন একজন তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগের সম্ভাবনা আছে। 

বৃহস্পতিবার রাতে র‌্যাব-১৫ এর উপঅধিনায়ক মেজর মেহেদী হাসান যুগান্তরকে বলেন, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পরিবর্তন করার পর কারাগারে থাকা রিমান্ড মঞ্জুর হওয়া আসামিদের র‌্যাব হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে। 

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় কক্সবাজার জেলা কারাগারে গিয়েছিলেন মামলার তদন্তকারী সংস্থা র‌্যাবের একদল সদস্য। তারা দীর্ঘক্ষণ জেল সুপারের অফিসে বসেছিলেন। কিন্তু রিমান্ডপ্রাপ্ত কোনো আসামিকে হেফাজতে না নিয়েই কারাগার থেকে বেরিয়ে আসে ওই দলটি।

গত ৩১ জুলাই পুলিশের গুলিতে খুন হন সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহা মো. রাশেদ খান। এ ঘটনায় তার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস পুলিশের ৯ জনকে আসামি করে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গত ৫ আগস্ট হত্যা মামলা দায়ের করেন। 

অন্যদিকে পুলিশের পক্ষ থেকে এর আগে রামু ও টেকনাফ থানায় ৩টি মামলা দায়ের করা হয়। এই ৩টি মামলায় আসামি করা হয়েছে সিনহার সঙ্গি সাহেদুল ইসলাম সিফাত ও শিপ্রা রাণী দেবনাথকে। ৪টি মামলারই তদন্তভার দেয়া হয়েছে র‌্যাবকে।

পরিবর্তন হতে পারে সিনহা হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১৪ আগস্ট ২০২০, ০১:৩৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পরিবর্তন হতে পারে সিনহা হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা
ফাইল ছবি

সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পরিবর্তন করা হতে পারে।

র‌্যাব-১৫ এর সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) জামিলুল হক মামলাটির তদন্ত করছিলেন। তার স্থলে নতুন একজন তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগের সম্ভাবনা আছে।

বৃহস্পতিবার রাতে র‌্যাব-১৫ এর উপঅধিনায়ক মেজর মেহেদী হাসান যুগান্তরকে বলেন, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পরিবর্তন করার পর কারাগারে থাকা রিমান্ড মঞ্জুর হওয়া আসামিদের র‌্যাব হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় কক্সবাজার জেলা কারাগারে গিয়েছিলেন মামলার তদন্তকারী সংস্থা র‌্যাবের একদল সদস্য। তারা দীর্ঘক্ষণ জেল সুপারের অফিসে বসেছিলেন। কিন্তু রিমান্ডপ্রাপ্ত কোনো আসামিকে হেফাজতে না নিয়েই কারাগার থেকে বেরিয়ে আসে ওই দলটি।

গত ৩১ জুলাই পুলিশের গুলিতে খুন হন সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহা মো. রাশেদ খান। এ ঘটনায় তার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস পুলিশের ৯ জনকে আসামি করে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গত ৫ আগস্ট হত্যা মামলা দায়ের করেন।

অন্যদিকে পুলিশের পক্ষ থেকে এর আগে রামু ও টেকনাফ থানায় ৩টি মামলা দায়ের করা হয়। এই ৩টি মামলায় আসামি করা হয়েছে সিনহার সঙ্গি সাহেদুল ইসলাম সিফাত ও শিপ্রা রাণী দেবনাথকে। ৪টি মামলারই তদন্তভার দেয়া হয়েছে র‌্যাবকে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : মেজর সিনহার মৃত্যু