পরীক্ষা তো হবে না, আমরা দেখছি কী করা যায়: প্রধানমন্ত্রী
jugantor
পরীক্ষা তো হবে না, আমরা দেখছি কী করা যায়: প্রধানমন্ত্রী

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৭ আগস্ট ২০২০, ১৩:২৮:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

পরীক্ষা তো হবে না, আমরা দেখছি কী করা যায়: প্রধানমন্ত্রী

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বার্ষিক পরীক্ষা না নেয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বৃহস্পতিবার বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্বোধনের পর নোয়াখালীতে এক সুবিধাভোগী ছাত্রের বক্তব্য শোনার পর একথা বলেন।

সরকার প্রধান বলেন, যা কিছু করছি সব তোমাদের জন্য, ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য। এখন করোনাকাল চলছে। তোমরা স্কুলে যেতে পারছনা। তারপরও বই আছে। তোমরা ভালো করে পড়াশোনা করো। পরীক্ষা তো হবে না, হয়তো প্রমোশন দিতে হবে। আমরা দেখছি কী করা যায়।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশের ৩১টি উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়নের লক্ষ্যে দুটি পাওয়ার প্ল্যান্ট, ১১টি গ্রিড সাব-স্টেশন, ছয়টি নতুন সঞ্চালন লাইন উদ্বোধন করেন। পরে তিনি বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষের সঙ্গে কথা বলেন। নোয়াখারীর এক শিক্ষার্থীর কথার পরিপ্রেক্ষিতে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

করোনা পরিস্থিতিতে চলতি বছরের পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী (ইইসি) পরীক্ষা বাতিলের ঘোষণা দিয়েছে সরকার।

অন্যদিকে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে এ বছর অষ্টম শ্রেণির পরীক্ষাগুলো (জেএসসি-জেডিসি) নেয়া হবে কি হবে না, সে বিষয়ে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। একই সঙ্গে, সিদ্ধান্ত হয়নি এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়েও।

আজ বিদ্যুতায়ন কর্মসূচির উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনার কারণে ছেলেমেয়েরা স্কুলে যেতে পারছে না। এর ফলে ছেলেমেয়েরা লেখাপড়া করতে পারছে না। অনলাইনে শিক্ষা দেয়া হচ্ছে টেলিভিশনে। তোমারা সেখানে মনোযোগ দেবে। করোনাকালে প্রচুর সময় পাচ্ছ। তোমাদের পড়ার সুযোগ হয়েছে। এটা শুধু আমাদের দেশে নয়, সারাবিশ্বেই এ অবস্থা।

পরীক্ষা তো হবে না, আমরা দেখছি কী করা যায়: প্রধানমন্ত্রী

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৭ আগস্ট ২০২০, ০১:২৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পরীক্ষা তো হবে না, আমরা দেখছি কী করা যায়: প্রধানমন্ত্রী
ফাইল ছবি

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে  শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বার্ষিক পরীক্ষা না নেয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বৃহস্পতিবার বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্বোধনের পর নোয়াখালীতে এক সুবিধাভোগী ছাত্রের বক্তব্য শোনার পর একথা বলেন। 

সরকার প্রধান বলেন, যা কিছু করছি সব তোমাদের জন্য, ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য। এখন করোনাকাল চলছে। তোমরা স্কুলে যেতে পারছ না। তারপরও বই আছে। তোমরা ভালো করে পড়াশোনা করো। পরীক্ষা তো হবে না, হয়তো প্রমোশন দিতে হবে। আমরা দেখছি কী করা যায়।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশের ৩১টি উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়নের লক্ষ্যে দুটি পাওয়ার প্ল্যান্ট, ১১টি গ্রিড সাব-স্টেশন, ছয়টি নতুন সঞ্চালন লাইন উদ্বোধন করেন। পরে তিনি বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষের সঙ্গে কথা বলেন। নোয়াখারীর এক শিক্ষার্থীর কথার পরিপ্রেক্ষিতে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

করোনা পরিস্থিতিতে চলতি বছরের পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী (ইইসি) পরীক্ষা বাতিলের ঘোষণা দিয়েছে সরকার। 

অন্যদিকে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে এ বছর অষ্টম শ্রেণির পরীক্ষাগুলো (জেএসসি-জেডিসি) নেয়া হবে কি হবে না, সে বিষয়ে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। একই সঙ্গে, সিদ্ধান্ত হয়নি এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়েও। 

আজ  বিদ্যুতায়ন কর্মসূচির উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনার কারণে ছেলেমেয়েরা স্কুলে যেতে পারছে না। এর ফলে ছেলেমেয়েরা লেখাপড়া করতে পারছে না। অনলাইনে শিক্ষা দেয়া হচ্ছে টেলিভিশনে। তোমারা সেখানে মনোযোগ দেবে। করোনাকালে প্রচুর সময় পাচ্ছ। তোমাদের পড়ার সুযোগ হয়েছে। এটা শুধু আমাদের দেশে নয়, সারাবিশ্বেই এ অবস্থা।
 

 
আরও খবর