ক্যাসিনোকাণ্ডের হোতা এনু-রুপনকে কেন জামিন দেয়া হবে না: হাইকোর্ট
jugantor
ক্যাসিনোকাণ্ডের হোতা এনু-রুপনকে কেন জামিন দেয়া হবে না: হাইকোর্ট

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫:১১:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

ক্যাসিনোকাণ্ডের হোতা গেণ্ডারিয়ার আওয়ামী লীগ নেতা এনামুল হক এনু ও রুপন ভূঁইয়াকে কেন জামিন দেয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের করা পৃথক মামলায় দুই ভাইয়ের জামিন আবেদনের শুনানি নিয়ে মঙ্গলবার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এরুল জারি করেন।

আগামীদুই সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্টদের এরুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদালতে এনু-রুপনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী সৈয়দ মামুন মাহবুব। দুদকের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক।

গত ১৫ জুন দুই ভাইয়ের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন ঢাকার মহানগর সি‌নিয়র স্পেশাল জজ আদালত। এরপর দুই ভসি হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন।

ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের শেয়ারহোল্ডার এনু ছিলেন গেন্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি। আর তার ভাই রুপন ছিলেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

গত বছর সেপ্টেম্বরে ওই ক্লাব থেকে ক্যাসিনোর সরঞ্জাম উদ্ধারের পর দুই দফায় তাদের দুটি বাড়ি থেকে কয়েক কোটি টাকা উদ্ধার করে র‌্যাব। এরপর এনু ও রুপনের অবৈধ সম্পদের খোজ পেয়ে তাদের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা করে দুদক।

এনুর বিরুদ্ধে ২১ কোটি ৮৯ লাখ ৪৩ হাজার টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা করা হয়। দুদকের সহকারী পরিচালক মামুনুর রশীদ চৌধুরী বাদী হয়ে এ মামলাটি করেন।

অপরদিকে ১৪ কোটি ১২ লাখ ৯৫ হাজার ৮৮২ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে রুপনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। দুদকের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নেয়ামুল আহসান গাজী বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

ক্যাসিনোকাণ্ডের হোতা এনু-রুপনকে কেন জামিন দেয়া হবে না: হাইকোর্ট

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩:১১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ক্যাসিনোকাণ্ডের হোতা গেণ্ডারিয়ার আওয়ামী লীগ নেতা এনামুল হক এনু ও রুপন ভূঁইয়াকে কেন জামিন দেয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের করা পৃথক মামলায় দুই ভাইয়ের জামিন আবেদনের শুনানি নিয়ে মঙ্গলবার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করেন। 

আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্টদের এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদালতে এনু-রুপনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী সৈয়দ মামুন মাহবুব। দুদকের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক।

গত ১৫ জুন দুই ভাইয়ের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন ঢাকার মহানগর সি‌নিয়র স্পেশাল জজ আদালত। এরপর দুই ভসি হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন।

ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের শেয়ারহোল্ডার এনু ছিলেন গেন্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি। আর তার ভাই রুপন ছিলেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। 

গত বছর সেপ্টেম্বরে ওই ক্লাব থেকে ক্যাসিনোর সরঞ্জাম উদ্ধারের পর দুই দফায় তাদের দুটি বাড়ি থেকে কয়েক কোটি টাকা উদ্ধার করে র‌্যাব। এরপর এনু ও রুপনের অবৈধ সম্পদের খোজ পেয়ে তাদের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা করে দুদক। 

এনুর বিরুদ্ধে ২১ কোটি ৮৯ লাখ ৪৩ হাজার টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা করা হয়। দুদকের সহকারী পরিচালক মামুনুর রশীদ চৌধুরী বাদী হয়ে এ মামলাটি করেন।

অপরদিকে ১৪ কোটি ১২ লাখ ৯৫ হাজার ৮৮২ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে রুপনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। দুদকের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নেয়ামুল আহসান গাজী বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ক্যাসিনোয় অভিযান