‘অর্থনৈতিক লেনদেনে খুবই স্বচ্ছ ছিলেন আল্লামা শফী’
jugantor
‘অর্থনৈতিক লেনদেনে খুবই স্বচ্ছ ছিলেন আল্লামা শফী’

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২১:০৪:০১  |  অনলাইন সংস্করণ

আল্লামা শফী কোথাও সফরে গেলে প্রথমে এসে মাদ্রাসা হিসাব বিভাগে ঢুকে হিসাব দিতেন। ফাইল ছবি

হেফাজত ইসলামের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী ছিলেন অত্যন্ত সহজ সরল। খুবই কর্তব্যনিষ্ঠ ছিলেন তিনি। ঈমান-আক্বীদার বিষয়ে ছিলেন আপসহীন। বিশেষ করে তিনি অর্থনৈতিক লেনদেনে খুবই স্বচ্ছ একজন মানুষ ছিলেন।

হেফাজতের আমির আল্লামা শফীর সান্নিধ্যে দীর্ঘ ২৩ বছর থাকা মাওলানা মুনির আহমেদ যুগান্তরকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন।

আল্লামা শফীর স্মৃতিচারণ করে তার সাবেক প্রেস সচিব মাওলানা মুনির আহমেদ বলেন, হুজুর অত্যন্ত সহজ, সরল ছিলেন। ব্যক্তি জীবনে খুবই কর্তব্যনিষ্ঠ ছিলেন। ঈমান-আক্বীদার বিষয়ে ছিলেন আপসহীন। তার সবচেয়ে বড় গুণ ছিল তিনি অর্থনৈতিক লেনদেনে খুবই স্বচ্ছ ছিলেন। কখনও বাইরে গেলে মাদ্রাসা আসার পর প্রথমেই হিসাব বিভাগে ঢুকতেন। তিনি সবার আগে হিসাব দেয়ার পর অন্য বিভাগে যেতেন।

মাওলানা মুনির আহমেদ বলেন, হাটহাজারী মাদ্রাসার উন্নয়নের জন্য তিনি ব্যাপক ভূমিকা পালন করেছেন। তিনি মাদ্রাসার উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করেছেন। আল্লাহ তাঁকে জান্নাত নসীব করুন।

প্রসঙ্গত, হেফাজত আমির আল্লামা আহমদ শফী শুক্রবার বিকালে রাজধানীর আজগর আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন।

এর আগে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের আইসিইউতে থাকা আল্লামা শফীর শারীরিক অবস্থা অবনতি হওয়ায় তাকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে তাকে ঢাকায় আনা হয়েছিল। শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৪টায় হেফাজত ইসলামের আমিরকে আজগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

প্রায় শতবর্ষী আল্লামা আহমদ শফী দীর্ঘদিন যাবৎ তিনি বার্ধক্যজনিত দুর্বলতার পাশাপাশি ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন।

‘অর্থনৈতিক লেনদেনে খুবই স্বচ্ছ ছিলেন আল্লামা শফী’

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আল্লামা শফী কোথাও সফরে গেলে প্রথমে এসে মাদ্রাসা হিসাব বিভাগে ঢুকে হিসাব দিতেন। ফাইল ছবি
আল্লামা শফী কোথাও সফরে গেলে প্রথমে এসে মাদ্রাসা হিসাব বিভাগে ঢুকে সবার আগে তার হিসাব দিতেন। ফাইল ছবি

হেফাজত ইসলামের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী ছিলেন অত্যন্ত সহজ সরল।  খুবই কর্তব্যনিষ্ঠ ছিলেন তিনি। ঈমান-আক্বীদার বিষয়ে ছিলেন আপসহীন। বিশেষ করে তিনি অর্থনৈতিক লেনদেনে খুবই স্বচ্ছ একজন মানুষ ছিলেন।

হেফাজতের আমির আল্লামা শফীর সান্নিধ্যে দীর্ঘ ২৩ বছর থাকা মাওলানা মুনির আহমেদ যুগান্তরকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন।

আল্লামা শফীর স্মৃতিচারণ করে তার সাবেক প্রেস সচিব মাওলানা মুনির আহমেদ বলেন,  হুজুর অত্যন্ত সহজ, সরল ছিলেন। ব্যক্তি জীবনে খুবই কর্তব্যনিষ্ঠ ছিলেন। ঈমান-আক্বীদার বিষয়ে ছিলেন আপসহীন। তার সবচেয়ে বড় গুণ ছিল তিনি অর্থনৈতিক লেনদেনে খুবই স্বচ্ছ ছিলেন। কখনও বাইরে গেলে মাদ্রাসা আসার পর প্রথমেই হিসাব বিভাগে ঢুকতেন। তিনি সবার আগে হিসাব দেয়ার পর অন্য বিভাগে যেতেন।

মাওলানা মুনির আহমেদ বলেন, হাটহাজারী মাদ্রাসার উন্নয়নের জন্য তিনি ব্যাপক ভূমিকা পালন করেছেন। তিনি মাদ্রাসার উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করেছেন। আল্লাহ তাঁকে জান্নাত নসীব করুন।

প্রসঙ্গত, হেফাজত আমির আল্লামা আহমদ শফী শুক্রবার বিকালে রাজধানীর আজগর আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন।

এর আগে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের আইসিইউতে থাকা আল্লামা শফীর শারীরিক অবস্থা অবনতি হওয়ায় তাকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে তাকে ঢাকায় আনা হয়েছিল।  শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৪টায় হেফাজত ইসলামের আমিরকে আজগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।  

প্রায় শতবর্ষী আল্লামা আহমদ শফী দীর্ঘদিন যাবৎ তিনি বার্ধক্যজনিত দুর্বলতার পাশাপাশি ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন।

 

ঘটনাপ্রবাহ : আল্লামা শফী আর নেই