বুয়েটের আবরার হত্যা মামলায় দুজনের সাক্ষ্যগ্রহণ
jugantor
বুয়েটের আবরার হত্যা মামলায় দুজনের সাক্ষ্যগ্রহণ

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০৮ অক্টোবর ২০২০, ১৬:১৩:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

বুয়েটের আবরার হত্যা মামলায় দুজনের সাক্ষ্যগ্রহণ

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় করা মামলায় দুজনের সাক্ষ্যগ্রহণ করেছেন আদালত।
বৃহস্পতিবার ঢাকার এক নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে মামলার রেকর্ডিং কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক সোহরাব হোসেন ও ক্যান্টিন বয় জনি সাক্ষ্য দেন। বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামানের আদালতে সাক্ষীর জবানবন্দি রেকর্ড করার পর আসামিপক্ষের আইনজীবীরা তাদের জেরা করেন। এ নিয়ে মামলার বাদীসহ চারজনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হলো।
এদিন মামলায় গ্রেফতার ২২ আসামিকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। পরে তাদের ফের কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত এ মামলার তিন আসামি পলাতক রয়েছেন।
আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় ২০১৯ সালের ১৩ নভেম্বর ২৫ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেন ডিবি পরিদর্শক ওয়াহিদুজ্জামান।
চার্জশিটভুক্ত আসামিরা হলেন- মেহেদী হাসান রাসেল, অনিক সরকার, ইফতি মোশাররফ সকাল, মেহেদী হাসান রবিন, মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন, মুনতাসির আলম জেমি, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির, মুজাহিদুর রহমান, মুহতাসিম ফুয়াদ, মনিরুজ্জামান মনির, আকাশ হোসেন, হোসেন মোহাম্মদ তোহা, মাজেদুর রহমান, শামীম বিল্লাহ, মোয়াজ আবু হুরায়রা, এ এস এম নাজমুস সাদাত, ইসতিয়াক আহম্মেদ মুন্না, অমিত সাহা, মিজানুর রহমান ওরফে মিজান, শামসুল আরেফিন রাফাত, মোর্শেদ অমত্য ইসলাম ও এসএম মাহমুদ সেতু।
২০১৯ সালের ৭ অক্টোবর ভোরে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের সিঁড়ি থেকে আবরার ফাহাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে জানা যায়, শিবির সন্দেহে তাকে ডেকে নিয়ে বন্ধ ঘরে পিটিয়ে মেরেছেন বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

বুয়েটের আবরার হত্যা মামলায় দুজনের সাক্ষ্যগ্রহণ

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০৮ অক্টোবর ২০২০, ০৪:১৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বুয়েটের আবরার হত্যা মামলায় দুজনের সাক্ষ্যগ্রহণ
ফাইল ছবি

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় করা মামলায় দুজনের সাক্ষ্যগ্রহণ করেছেন আদালত।
বৃহস্পতিবার ঢাকার এক নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে মামলার রেকর্ডিং কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক সোহরাব হোসেন ও ক্যান্টিন বয় জনি সাক্ষ্য দেন। বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামানের আদালতে সাক্ষীর জবানবন্দি রেকর্ড করার পর আসামিপক্ষের আইনজীবীরা তাদের জেরা করেন। এ নিয়ে মামলার বাদীসহ চারজনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হলো।
এদিন মামলায় গ্রেফতার ২২ আসামিকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। পরে তাদের ফের কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত এ মামলার তিন আসামি পলাতক রয়েছেন।
আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় ২০১৯ সালের ১৩ নভেম্বর ২৫ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেন ডিবি পরিদর্শক ওয়াহিদুজ্জামান।
চার্জশিটভুক্ত আসামিরা হলেন- মেহেদী হাসান রাসেল, অনিক সরকার, ইফতি মোশাররফ সকাল, মেহেদী হাসান রবিন, মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন, মুনতাসির আলম জেমি, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির, মুজাহিদুর রহমান, মুহতাসিম ফুয়াদ, মনিরুজ্জামান মনির, আকাশ হোসেন, হোসেন মোহাম্মদ তোহা, মাজেদুর রহমান, শামীম বিল্লাহ, মোয়াজ আবু হুরায়রা, এ এস এম নাজমুস সাদাত, ইসতিয়াক আহম্মেদ মুন্না, অমিত সাহা, মিজানুর রহমান ওরফে মিজান, শামসুল আরেফিন রাফাত, মোর্শেদ অমত্য ইসলাম ও এসএম মাহমুদ সেতু।
২০১৯ সালের ৭ অক্টোবর ভোরে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের সিঁড়ি থেকে আবরার ফাহাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে জানা যায়, শিবির সন্দেহে তাকে ডেকে নিয়ে বন্ধ ঘরে পিটিয়ে মেরেছেন বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

 

ঘটনাপ্রবাহ : বুয়েট ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০