সালাম নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য: ঢাবি অধ্যাপক জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা
jugantor
সালাম নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য: ঢাবি অধ্যাপক জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৫ অক্টোবর ২০২০, ১২:৫৬:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

‘আসসালামু আলাইকুম’ ও ‘আল্লাহ হাফেজ’ বলাকে জঙ্গিবাদের চর্চা বলে মন্তব্য করায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষকঅধ্যাপক জিয়া রহমানের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

রোববার সকালে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে বিচারক আসসামছ জগলুল হোসেনের আদালতে এইমামলা করা হয়।

মাসিক আল বাইয়্যিনাত ও দৈনিক আল ইহসানের সম্পাদক মুহম্মদ মাহবুব আলম বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলার আবেদন করেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী মুহাম্মদ হুজ্জাতুল ইসলাম খান আলফেসানী সংবাদমাধ্যমকে এই তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, মামলার আবেদন জমা দেয়া হয়েছে। কিছুক্ষণের মধ্যে এ বিষয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, ‘আসসালামু আলাইকুম’ বলা ও ‘আল্লাহ হাফেজ’ বলাকে গর্হিত, নিন্দনীয়, জঘন্য ব্যাখ্যা করেন অধ্যাপক জিয়ারহমান। এসবকে জঙ্গিবাদের সঙ্গে সম্পৃক্ত করেন তিনি।

সম্প্রতি ‘ডিবিসি নিউজ’ টেলিভিশন চ্যানেলের ‘উপসংহার’ নামক টকশোতে ‘ধর্মের অপব্যাখ্যায় জঙ্গিবাদ’বিষয়ক আলোচনায়মুসলিমদের শুদ্ধ উচ্চারণে ‘আসসালামু আলাইকুম’ বলা ও ‘আল্লাহ হাফেজ’ বলাকে গর্হিত, নিন্দনীয়, জঘন্য ব্যাখ্যা করেন অধ্যাপক জিয়া রহমান।

বিষয়টি নিয়ে সামাজিকমাধ্যমে ব্যাপক সমলোচনা হয়। এর পর ২২ অক্টোবর অধ্যাপক জিয়াকে লিগ্যাল নেটিশ পাঠান মুহম্মদ মাহবুব আলমের পক্ষে সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী মুহম্মদ শেখ ওমর শরীফ। সেই সঙ্গে তার দেয়া বক্তব্য প্রত্যাহার করে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানানো হয়।

সালাম নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য: ঢাবি অধ্যাপক জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৫ অক্টোবর ২০২০, ১২:৫৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

‘আসসালামু আলাইকুম’ ও ‘আল্লাহ হাফেজ’ বলাকে জঙ্গিবাদের চর্চা বলে মন্তব্য করায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক জিয়া রহমানের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

রোববার সকালে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে বিচারক আসসামছ জগলুল হোসেনের আদালতে এই মামলা করা হয়।

মাসিক আল বাইয়্যিনাত ও দৈনিক আল ইহসানের সম্পাদক মুহম্মদ মাহবুব আলম বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলার আবেদন করেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী মুহাম্মদ হুজ্জাতুল ইসলাম খান আলফেসানী সংবাদমাধ্যমকে এই তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, মামলার আবেদন জমা দেয়া হয়েছে। কিছুক্ষণের মধ্যে এ বিষয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, ‘আসসালামু আলাইকুম’ বলা ও ‘আল্লাহ হাফেজ’ বলাকে গর্হিত, নিন্দনীয়, জঘন্য ব্যাখ্যা করেন অধ্যাপক জিয়া রহমান। এসবকে জঙ্গিবাদের সঙ্গে সম্পৃক্ত করেন তিনি।

সম্প্রতি ‘ডিবিসি নিউজ’ টেলিভিশন চ্যানেলের ‘উপসংহার’ নামক টকশোতে ‘ধর্মের অপব্যাখ্যায় জঙ্গিবাদ’বিষয়ক আলোচনায় মুসলিমদের শুদ্ধ উচ্চারণে ‘আসসালামু আলাইকুম’ বলা ও ‘আল্লাহ হাফেজ’ বলাকে গর্হিত, নিন্দনীয়, জঘন্য ব্যাখ্যা করেন অধ্যাপক জিয়া রহমান।

বিষয়টি নিয়ে সামাজিকমাধ্যমে ব্যাপক সমলোচনা হয়। এর পর ২২ অক্টোবর অধ্যাপক জিয়াকে লিগ্যাল নেটিশ পাঠান মুহম্মদ মাহবুব আলমের পক্ষে সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী মুহম্মদ শেখ ওমর শরীফ। সেই সঙ্গে তার দেয়া বক্তব্য প্রত্যাহার করে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানানো হয়।