তিতাসের ব্যবস্থাপক নাসিরের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা
jugantor
প্রায় ২ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ
তিতাসের ব্যবস্থাপক নাসিরের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৭ অক্টোবর ২০২০, ১৮:৫৯:২৩  |  অনলাইন সংস্করণ

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপক সৈয়দ নাসির উদ্দিন আহম্মদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুদক।

মঙ্গলবার উপসহকারী পরিচালক ফেরদৌস রহমান বাদী হয়ে দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয়, ঢাকা-১ এ মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, সৈয়দ নাসির উদ্দিন আহাম্মদ দুর্নীতি দমন কমিশনে দাখিলকৃত সম্পদ বিবরণীতে ১ কোটি ১৬ লাখ ৭২ হাজার টাকা মূল্যের স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তির তথ্য গোপন করেন। তিনি ভিত্তিহীন বা মিথ্যা ঘোষণা প্রদান করেন। এ ছাড়া তিনি জ্ঞাত আয়ের উৎসের সঙ্গে অসংগতিপূর্ণ ৬৭ লাখ ৮৪ হাজার টাকা মূল্যের সম্পত্তির মালিকানা অসাধু উপায়ে অর্জন করেন। যা দুর্নীতি দমন কমিশন আইন, ২০০৪ এর ২৬(২) ও ২৭(১) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

এর আগে ২০১৯ সালের ২ এপ্রিল তার নিজের, স্ত্রীর ও তার ওপর নির্ভরশীল ব্যক্তদের স্বনামে/বেনামে অর্জিত যাবতীয় স্থাবর/অস্থাবর সম্পদ ও তা অর্জনের বিস্তারিত বিবরণী দাখিলের জন্য কমিশন থেকে আদেশ প্রদান করা হয়। এর প্রেক্ষিতে তিনি ২০১৯ সালের ৬ মে দুর্নীতি দমন কমিশনে সম্পদ বিবরণী দাখিল করেন।

দাখিলকৃত সম্পদ বিবরণী যাচাই ও দীর্ঘ অনুসন্ধান শেষে কমিশনের অনুমোদন সাপেক্ষে এ মামলাটি দায়ের করা হল।

প্রায় ২ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ

তিতাসের ব্যবস্থাপক নাসিরের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৬:৫৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপক সৈয়দ নাসির উদ্দিন আহম্মদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুদক।

মঙ্গলবার উপসহকারী পরিচালক ফেরদৌস রহমান বাদী হয়ে দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয়, ঢাকা-১ এ মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, সৈয়দ নাসির উদ্দিন আহাম্মদ দুর্নীতি দমন কমিশনে দাখিলকৃত সম্পদ বিবরণীতে ১ কোটি ১৬ লাখ ৭২ হাজার টাকা মূল্যের স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তির তথ্য গোপন করেন। তিনি ভিত্তিহীন বা মিথ্যা ঘোষণা প্রদান করেন। এ ছাড়া তিনি জ্ঞাত আয়ের উৎসের সঙ্গে অসংগতিপূর্ণ ৬৭ লাখ ৮৪ হাজার টাকা মূল্যের সম্পত্তির মালিকানা অসাধু উপায়ে অর্জন করেন। যা দুর্নীতি দমন কমিশন আইন, ২০০৪ এর ২৬(২) ও ২৭(১) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

এর আগে ২০১৯ সালের ২ এপ্রিল তার নিজের, স্ত্রীর ও তার ওপর নির্ভরশীল ব্যক্তদের স্বনামে/বেনামে অর্জিত যাবতীয় স্থাবর/অস্থাবর সম্পদ ও তা অর্জনের বিস্তারিত বিবরণী দাখিলের জন্য কমিশন থেকে আদেশ প্রদান করা হয়। এর প্রেক্ষিতে তিনি ২০১৯ সালের ৬ মে দুর্নীতি দমন কমিশনে সম্পদ বিবরণী দাখিল করেন।

দাখিলকৃত সম্পদ বিবরণী যাচাই ও দীর্ঘ অনুসন্ধান শেষে কমিশনের অনুমোদন সাপেক্ষে এ মামলাটি দায়ের করা হল।
 

 
আরও খবর