যে কারণে হিজাব ও টাকনুর উপর কাপড় পরার নির্দেশনা দিয়েছিলেন জনস্বাস্থ্য পরিচালক 
jugantor
যে কারণে হিজাব ও টাকনুর উপর কাপড় পরার নির্দেশনা দিয়েছিলেন জনস্বাস্থ্য পরিচালক 

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৯ অক্টোবর ২০২০, ২১:০৮:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

আলোচিত সেই নোটিশ যাকে ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা আলোচনা তৈরি হয়

জনস্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটে কর্মরত মুসলমান নারীদের পর্দা ও পুরুষদের টাকনুর ওপর কাপড় পরিধানের নিদের্শনা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক আলোচনা ও সমালোচনা তৈরি হয়। এরই প্রেক্ষিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে জনস্বাস্থ্য পরিচালককে নোটিশ দেয়া হয়েছে। পরে ওই নির্দেশনা প্রত্যাহার করে দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক ডা. মুহাম্মদ আবদুর রহিম।

কেন এই নির্দেশনা?

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় যমুনা টিভিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ওই নির্দেশনার বিষয়ে ডা. আবদুর রহীম বলেছেন, আমি এ নির্দেশনাটি সবার জন্য দিইনি। শুধু মুসলিম নারী-পুরুষের জন্য দিয়েছিলাম।

তার কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেন, গত কয়েকদিন ধরে ধর্ষণের ঘটনা বিভিন্ন প্রচারমাধ্যমে দেখে আমি খুবই বিস্মিত। আমরা জানি, ধর্ষণে কবীরা গুনাহ হয়। আমি চিন্তা করলাম, আমাদের জন্য কত সহজ যে আমরা এরকম আরও অনেক কবীরা গুনাহ এভয়েড করতে পারি। টাকনুর নিচে পুরুষ কাপড় পড়বে, আর মহিলারা টাকনুর নিচে কাপড় পড়বে।

তিনি বলেন, ধর্ম একটা ব্যক্তিগত বিষয়, এটা চাপিয়ে দেয়া নয়। এটা তার জ্ঞানগর্ভে একটু নাড়া দেয়া। মুসলমানরা জানেন, টাকনুর নিচে কাপড় পড়লে কী হয়।
তিনি বলেন, এটা তো আমি ফেসবুকে দেই নাই, এটা আমি দিয়েছি, আমার ইন্সটিটিউটে আমার স্টাফরা যাতে কবীরা গুনাহ থেকে বাঁচে।

ডা. আবদুর রহীম বলেন, আমাকে ডিজি স্যার বলেছেন, তুমি এরকম চিঠি দিয়েছো তা বাতিল করো তখনই আমি তাৎক্ষণিক বাতিল করে দিয়েছি। আমি এজন্য গোটা জাতির কাছে দুঃখিত ও আন্তরিকভাবে ক্ষমাপ্রার্থী। ভবিষ্যতে এরকম ভুল আর হবে না, এই প্রতিজ্ঞাও করেছি।

আর শোকজ নোটিশের জবাব তিনি মন্ত্রণালয়কে ভেবেচিন্তে দেবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

যে কারণে হিজাব ও টাকনুর উপর কাপড় পরার নির্দেশনা দিয়েছিলেন জনস্বাস্থ্য পরিচালক 

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৯ অক্টোবর ২০২০, ০৯:০৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আলোচিত সেই নোটিশ যাকে ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা আলোচনা তৈরি হয়
আলোচিত সেই নোটিশ যাকে ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা আলোচনা তৈরি হয়

জনস্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটে কর্মরত মুসলমান নারীদের পর্দা ও পুরুষদের টাকনুর ওপর কাপড় পরিধানের নিদের্শনা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক আলোচনা ও সমালোচনা তৈরি হয়।  এরই প্রেক্ষিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে জনস্বাস্থ্য পরিচালককে নোটিশ দেয়া হয়েছে।  পরে ওই নির্দেশনা প্রত্যাহার করে দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক  ডা. মুহাম্মদ আবদুর রহিম।

কেন এই নির্দেশনা?

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় যমুনা টিভিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ওই নির্দেশনার বিষয়ে ডা. আবদুর রহীম বলেছেন, আমি এ নির্দেশনাটি সবার জন্য দিইনি। শুধু মুসলিম নারী-পুরুষের জন্য দিয়েছিলাম।

তার কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেন, গত কয়েকদিন ধরে ধর্ষণের ঘটনা বিভিন্ন প্রচারমাধ্যমে দেখে আমি খুবই বিস্মিত।  আমরা জানি, ধর্ষণে কবীরা গুনাহ হয়।  আমি চিন্তা করলাম, আমাদের জন্য কত সহজ যে আমরা এরকম আরও অনেক কবীরা গুনাহ এভয়েড করতে পারি।  টাকনুর নিচে পুরুষ কাপড় পড়বে, আর মহিলারা টাকনুর নিচে কাপড় পড়বে। 

তিনি বলেন, ধর্ম একটা ব্যক্তিগত বিষয়, এটা চাপিয়ে দেয়া নয়।  এটা তার জ্ঞানগর্ভে একটু নাড়া দেয়া।  মুসলমানরা জানেন, টাকনুর নিচে কাপড় পড়লে কী হয়। 
তিনি বলেন, এটা তো আমি ফেসবুকে দেই নাই, এটা আমি দিয়েছি, আমার ইন্সটিটিউটে আমার স্টাফরা যাতে কবীরা গুনাহ থেকে বাঁচে। 

ডা. আবদুর রহীম বলেন, আমাকে ডিজি স্যার বলেছেন, তুমি এরকম চিঠি দিয়েছো তা বাতিল করো তখনই আমি তাৎক্ষণিক বাতিল করে দিয়েছি।  আমি এজন্য গোটা জাতির কাছে দুঃখিত ও আন্তরিকভাবে ক্ষমাপ্রার্থী।  ভবিষ্যতে এরকম ভুল আর হবে না, এই প্রতিজ্ঞাও করেছি। 

আর শোকজ নোটিশের জবাব তিনি মন্ত্রণালয়কে ভেবেচিন্তে দেবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।