ফের দুদকের জিজ্ঞাসাবাদে পাপিয়া ও তার স্বামী
jugantor
ফের দুদকের জিজ্ঞাসাবাদে পাপিয়া ও তার স্বামী

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬:৫৫:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমান

নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুদক। আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় সোমবার দুপুরে কারাগার থেকে তাদের দুদক কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়।

এরপর তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপপরিচালক শাহিন আরা মমতাজের তদন্ত দল তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন।

এর আগে গত ১৪ ডিসেম্বর আদালত তাদের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আজ রিমান্ডের প্রথম দিন।

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে গত ৪ আগস্ট দুপুরে শামিমা নূর পাপিয়ার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন শাহীন আরা মমতাজ।

মামলায় পাপিয়ার বিরুদ্ধে ৬ কোটি ২৪ লাখ ১৮ হাজার টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়েছে। দুদকের অনুসন্ধানে পাওয়া পাপিয়ার অবৈধ সম্পদের মধ্যে আছে বিলাসবহুল হোটেল ওয়েস্টিনে বিল হিসাবে জমা দেওয়া সাড়ে ৩ কোটি টাকা, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানে উদ্ধার করা ৬০ লাখ টাকা ও নরসিংদীর একটি বাড়ি।

এ অভিযোগ অনুসন্ধানে গত ২০ জুলাই বিশেষ ব্যবস্থায় পাপিয়া ও তার স্বামী মো. মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরীকে কাশিমপুর জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুদক।

পাপিয়া ও তার স্বামীর বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসা, জাল টাকার ব্যবসা ও অন‌্যান‌্য উপায়ে কোটি কোটি টাকা আয় করে বিদেশে পাচারসহ জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ ছিল।

চলতি বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর বিদেশে পালিয়ে যাওয়ার সময় ঢাকার বিমানবন্দর থেকে তাদের গ্রেফতার করে র‍্যাব। আটক করার সময় তাদের কাছ থেকে সাতটি পাসপোর্ট, দুই লাখ ১২ হাজার ২৭০ টাকা, ২৫ হাজার ৬০০ জাল টাকা, ৩১০ ভারতীয় রুপি, ৪২০ শ্রীলংকান মুদ্রা, ১১ হাজার ৯১ মার্কিন ডলার ও সাতটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।

এর আগে গত ১২ অক্টোবর অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামীর সর্বোচ্চ ২০ বছর করে কারাদণ্ড দেন আদালত।

ফের দুদকের জিজ্ঞাসাবাদে পাপিয়া ও তার স্বামী

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২১ ডিসেম্বর ২০২০, ০৪:৫৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমান
শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমান। ফাইল ছবি

নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুদক।  আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় সোমবার দুপুরে কারাগার থেকে তাদের দুদক কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়। 

এরপর তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপপরিচালক শাহিন আরা মমতাজের তদন্ত দল তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন।  

এর আগে গত ১৪ ডিসেম্বর আদালত তাদের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আজ রিমান্ডের প্রথম দিন।

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে গত ৪ আগস্ট দুপুরে শামিমা নূর পাপিয়ার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন শাহীন আরা মমতাজ।

মামলায় পাপিয়ার বিরুদ্ধে ৬ কোটি ২৪ লাখ ১৮ হাজার টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়েছে। দুদকের অনুসন্ধানে পাওয়া পাপিয়ার অবৈধ সম্পদের মধ্যে আছে বিলাসবহুল হোটেল ওয়েস্টিনে বিল হিসাবে জমা দেওয়া সাড়ে ৩ কোটি টাকা, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানে উদ্ধার করা ৬০ লাখ টাকা ও নরসিংদীর একটি বাড়ি।

এ অভিযোগ অনুসন্ধানে গত ২০ জুলাই বিশেষ ব্যবস্থায় পাপিয়া ও তার স্বামী মো. মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরীকে কাশিমপুর জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুদক।

পাপিয়া ও তার স্বামীর বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসা, জাল টাকার ব্যবসা ও অন‌্যান‌্য উপায়ে কোটি কোটি টাকা আয় করে বিদেশে পাচারসহ জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ ছিল।

চলতি বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর বিদেশে পালিয়ে যাওয়ার সময় ঢাকার বিমানবন্দর থেকে তাদের গ্রেফতার করে র‍্যাব। আটক করার সময় তাদের কাছ থেকে সাতটি পাসপোর্ট, দুই লাখ ১২ হাজার ২৭০ টাকা, ২৫ হাজার ৬০০ জাল টাকা, ৩১০ ভারতীয় রুপি, ৪২০ শ্রীলংকান মুদ্রা, ১১ হাজার ৯১ মার্কিন ডলার ও সাতটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। 

এর আগে গত ১২ অক্টোবর অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামীর সর্বোচ্চ ২০ বছর করে কারাদণ্ড দেন আদালত।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : পাপের রাজ্যে পাপিয়া