দারিদ্র্যের হার বেড়ে ৪২ শতাংশ হওয়ার তথ্য সঠিক নয়
jugantor
দারিদ্র্যের হার বেড়ে ৪২ শতাংশ হওয়ার তথ্য সঠিক নয়

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৪ জানুয়ারি ২০২১, ২০:১৩:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান

দারিদ্র্যের হার বেড়ে ৪২ শতাংশ হয়েছে বলে এ বেসরকারি সংস্থা যে তথ্য দিয়েছে, তা কোনোভাবেই সঠিক নয় বলে মন্তব্য করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

এর আগে শনিবার সাউথ এশিয়ান নেটওয়ার্ক অন ইকোনমিক মডেলিংয়ের (সানেম) নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপক সেলিম রায়হান তাদের এক গবেষণা জরিপের তথ্য তুলে ধরে বলেছিলেন, করোনাভাইরাস মহামারির অর্থনৈতিক প্রতিঘাতে দুই বছরের মধ্যে বাংলাদেশের দারিদ্র্যের হার দ্বিগুণ বেড়ে ৪২ শতাংশ হয়েছে।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) ২০১৬ সালে দেশে দারিদ্র্যের হার ২৪ দশমিক ৩০ শতাংশ দেখিয়েছিল। তার উপর ভিত্তি করে ২০১৮ সালে সানেমের গবেষণায় দারিদ্র্যের হার ২১ দশমিক ৬০ শতাংশে নামার তথ্যও জানান তিনি।

এ দাবি প্রত্যাখ্যান করে পরিকল্পনা মন্ত্রী বলেন, প্রণোদনা প্যাকেজসহ সরকারের নানা পদক্ষেপের কারণে দেশের অর্থনীতি প্রায় আগের অবস্থায় ফিরে এসেছে।

রোববার ঢাকার এফডিসিতে ‘শিল্প খাতে করোনার অভিঘাত মোকাবিলায় সরকারি উদ্যোগ’ নিয়ে ছায়া সংসদ বিতর্ক প্রতিযোগিতায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন পরিকল্পনামন্ত্রী। ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।

তিনি বলেন, আমরা পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে একটি ‘ধারণা জরিপ’ করেছি। তাতে দেখা গেছে, দেশে বর্তমানে দারিদ্র্যের হার ২২ থেকে ২৩ শতাংশের মধ্যে। তাই সানেমের তথ্য মেনে নিতে পারছি না।

দারিদ্র্যের হার বেড়ে ৪২ শতাংশ হওয়ার তথ্য সঠিক নয়

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৪ জানুয়ারি ২০২১, ০৮:১৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান
পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। ফাইল ছবি

দারিদ্র্যের হার বেড়ে ৪২ শতাংশ হয়েছে বলে এ বেসরকারি সংস্থা যে তথ্য দিয়েছে, তা কোনোভাবেই সঠিক নয় বলে মন্তব্য করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

এর আগে শনিবার সাউথ এশিয়ান নেটওয়ার্ক অন ইকোনমিক মডেলিংয়ের (সানেম) নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপক সেলিম রায়হান তাদের এক গবেষণা জরিপের তথ্য তুলে ধরে বলেছিলেন, করোনাভাইরাস মহামারির অর্থনৈতিক প্রতিঘাতে দুই বছরের মধ্যে বাংলাদেশের দারিদ্র্যের হার দ্বিগুণ বেড়ে ৪২ শতাংশ হয়েছে।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) ২০১৬ সালে দেশে দারিদ্র্যের হার ২৪ দশমিক ৩০ শতাংশ দেখিয়েছিল। তার উপর ভিত্তি করে ২০১৮ সালে সানেমের গবেষণায় দারিদ্র্যের হার ২১ দশমিক ৬০ শতাংশে নামার তথ্যও জানান তিনি।

এ দাবি প্রত্যাখ্যান করে পরিকল্পনা মন্ত্রী বলেন, প্রণোদনা প্যাকেজসহ সরকারের নানা পদক্ষেপের কারণে দেশের অর্থনীতি প্রায় আগের অবস্থায় ফিরে এসেছে।

রোববার ঢাকার এফডিসিতে ‘শিল্প খাতে করোনার অভিঘাত মোকাবিলায় সরকারি উদ্যোগ’ নিয়ে ছায়া সংসদ বিতর্ক প্রতিযোগিতায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন পরিকল্পনামন্ত্রী। ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।

তিনি বলেন, আমরা পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে একটি ‘ধারণা জরিপ’ করেছি। তাতে দেখা গেছে, দেশে বর্তমানে দারিদ্র্যের হার ২২ থেকে ২৩ শতাংশের মধ্যে। তাই সানেমের তথ্য মেনে নিতে পারছি না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন