রাখাইনে শান্তিরক্ষী মোতায়েন দাবি রোহিঙ্গাদের

  অনলাইন ডেস্ক ০৭ জানুয়ারি ২০১৮, ১৮:০৯ | অনলাইন সংস্করণ

OIC
বাংলাদেশ-মিয়ানমারের তমরু সীমান্তে ওআইসি প্রতিনিধিদল।

ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) ইন্ডিপেন্ডেন্ট পার্মানেন্ট হিউম্যান রাইটস কমিশন (আইপিএইচআরসি) বাংলাদেশে তাদের তিন দিনের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশন পরিচালনা শেষে জানিয়েছে, মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ওপর নৃশংসতা জাতি নিধন ও মানবতার বিরুদ্ধে ভয়াবহ অপরাধের প্রমাণ।

ওআইসি মানবাধিকার কমিশন মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর নৃশংস নির্যাতন, অকল্পিত মানবাধিকার লঙ্ঘনের কড়া নিন্দা জানিয়েছে।

ওআইসির এ কমিশন মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের কাছে রাখাইনে মানবাধিকার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য বারবার অনুমতি চায়। কিন্তু তারা কোনো ইতিবাচক সাড়া দেয়নি। ফলে তারা কক্সবাজারে রোহিঙ্গাদের আশ্রয়শিবিরগুলো পরিদর্শন করে। এময় রোহিঙ্গারা রাখাইনে শান্তিরক্ষী মোতায়েদের দাবি জানান।

আইপিএইচআরসি জানিয়েছে, মিয়ানমারে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গারা এখনও ভয়াবহ নির্যাতন ও প্রাতিষ্ঠানিক মানবাধিকার লঙ্ঘনের শিকার হচ্ছে। জাতি, ধর্ম ও বর্ণের কারণে তাদের ওপর ভয়াবহ আকারে এ নির্যাতন চালানো হচ্ছে।

অবিলম্বে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সহিংসতা বন্ধে পদক্ষেপ নিতে মিয়ানমার সরকারের কাছে উদাত্ত আহ্বান জানিয়েছে ওআইসির আইপিএইচআরসি। নৃশংসতার জন্য যারা দায়ী তাদের বিচারের আহ্বান জানানো হয়েছে। রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে বৈষম্যের শিকড় সন্ধানে কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।

একই সঙ্গে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়, ওআইসির সদস্য দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের মানবাধিকার রক্ষায় তাদের আন্তর্জাতিক বাধ্যবাধকতা পূরণে যে যা পারেন, সেই ব্যবস্থা নিতে। আহ্বান জানানো হয়েছে রোহিঙ্গাদের জন্য সার্বিক মানবিক সহায়তার।

মিয়ানমারের ভেতরে যেসব রোহিঙ্গা বাস্তুচ্যুত হয়েছেন এবং যারা নৃশংসতা থেকে পালিয়ে প্রতিবেশী বিভিন্ন দেশে শরণার্থী হয়েছেন তাদের জীবনমানের উন্নয়নের জন্য অবদান রাখতে আহ্বান জানানো হয়েছে।

এদিকে বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গারা তাদের দেশে ফিরে যাওয়ার ব্যাপারে সেখানে উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করার জন্য ওআইসি মিশনের কাছে অনুরোধ জানিয়েছে।

এ প্রসঙ্গে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা এডুকেশন ডেভেলপমেন্টের সাধারণ সম্পাদক জমির উদ্দিন রেডিও তেহরানকে বলেন, মিয়ানমারে ফেরত যাওয়ার আগে রোহিঙ্গারা তাদের নিরাপত্তা, নাগরিক হিসেবে তাদের অধিকারের নিশ্চয়তা চায়। এ জন্য সর্বপ্রথম সেখানে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী বাহিনী মোতায়েন করার দাবি করেছে তারা। তা ছাড়া, তারা তাদের লুণ্ঠিত মালামাল ফেরত বা ক্ষতিপূরণ দাবি করেছে এবং তাদের নামে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার দাবি করেছেন।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter