সমুদ্রে অচল নৌকায় ভাসছিল অসহায় ৩০ রোহিঙ্গা
jugantor
সমুদ্রে অচল নৌকায় ভাসছিল অসহায় ৩০ রোহিঙ্গা

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৭ এপ্রিল ২০২১, ১৭:৫৭:১৫  |  অনলাইন সংস্করণ

অসহায় রোহিঙ্গাদের উদ্ধার করে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড। ছবি: সংগৃহীত

কক্সবাজার থেকে দালালের মাধ্যমে মালয়েশিয়া পাড়ি দেয়ার জন্য সমুদ্র পথে রওনা দিয়েছিল ৩০ রোহিঙ্গা। কিন্তু বিপদগ্রস্ত রোহিঙ্গারা সমুদ্রের মাঝপথে গিয়ে পড়লো আরও বড় বিপদে। ডাকাত দল তাদের কাছে থাকা সব মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায়। আর যাওয়ার সময় নৌকার ইঞ্জিনটি বিকল করে দেয়। যার ফলে একদিনেরও বেশি সময় সমুদ্রে ভাসতে থাকে ওই নৌকা।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৬টায় বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড তাদের উদ্ধার করে।

কোস্টগার্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড স্টেশান বাহারছড়া কর্তৃক বড় ডেইলপাড়া ঘাট এলাকায় সমুদ্রে অচল বোটে ভাসমান অবস্থায় ৩০ জন রোহিঙ্গা নাগরিককে উদ্ধার করা হয়। তাদের মধ্যে ২০ জন নারী, ৫ জন পুরুষ ও ৫ জন শিশু রয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড সদর দপ্তরের মিডিয়া কর্মকর্তা লে. কমান্ডার আমিরুল হক যুগান্তরকে বলেন, উদ্ধারকৃত রোহিঙ্গারা গত ২৩ এপ্রিল ২০২১ তারিখ বাহারছড়া মেরিন ড্রাইভ এলাকার বড়ডেল ঘাট থেকে একটি নৌকায় করে মালয়েশিয়া যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হয়। গত ২৫ এপ্রিল রাতে সমুদ্রে অবস্থানকালীন সময় তারা ডাকাতদের কবলে পড়ে, এসময় ডাকাতদল তাদের মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায় এবং নৌকার ইঞ্জিনটি বিকল করে দেয়।

এরপর নৌকাটি নিয়ন্ত্রণহীনভাবে সমুদ্রে ভাসতে থাকে। ওই খবরের ভিত্তিতে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড স্টেশান বাহারছড়ার উদ্ধারকারী দল দ্রুত ঘটনাস্থলে যায় এবং রোহিঙ্গাদের অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

তিনি বলেন, উদ্ধারকৃত রোহিঙ্গারা জানান দালালের মাধ্যমে তারা মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য রওনা হয়েছিল। তবে প্রকৃত দালালের নাম তারা কেউ বলতে পারেনি। উদ্ধারকৃত রোহিঙ্গাদের বিষয়ে RRRC (Refugee Relief and Repatriation Commissioner) এর সঙ্গে সমন্বয়ের মাধ্যমে পরবর্তী কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের এখতিয়ারভুক্ত এলাকাসমূহে আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ, ডাকাতি দমন ও জননিরাপত্তা নিশ্চিতের পাশাপাশি উপকূলীয় অঞ্চলের উদ্ধার অভিযানে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড এর নিয়মিত অভিযান অব্যাহত রয়েছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।

সমুদ্রে অচল নৌকায় ভাসছিল অসহায় ৩০ রোহিঙ্গা

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৭ এপ্রিল ২০২১, ০৫:৫৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
অসহায় রোহিঙ্গাদের উদ্ধার করে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড। ছবি: সংগৃহীত
অসহায় রোহিঙ্গাদের উদ্ধার করে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড। ছবি: সংগৃহীত

কক্সবাজার থেকে দালালের মাধ্যমে মালয়েশিয়া পাড়ি দেয়ার জন্য সমুদ্র পথে রওনা দিয়েছিল ৩০ রোহিঙ্গা।  কিন্তু বিপদগ্রস্ত রোহিঙ্গারা সমুদ্রের মাঝপথে গিয়ে পড়লো আরও বড় বিপদে। ডাকাত দল তাদের কাছে থাকা সব মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায়।  আর যাওয়ার সময় নৌকার ইঞ্জিনটি বিকল করে দেয়। যার ফলে একদিনেরও বেশি সময় সমুদ্রে ভাসতে থাকে ওই নৌকা।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৬টায় বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড তাদের উদ্ধার করে।

কোস্টগার্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড স্টেশান বাহারছড়া কর্তৃক বড় ডেইলপাড়া ঘাট এলাকায় সমুদ্রে অচল বোটে ভাসমান অবস্থায় ৩০ জন রোহিঙ্গা নাগরিককে উদ্ধার করা হয়। তাদের মধ্যে ২০ জন নারী,  ৫ জন পুরুষ ও ৫ জন শিশু রয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড সদর দপ্তরের মিডিয়া কর্মকর্তা লে. কমান্ডার আমিরুল হক যুগান্তরকে বলেন, উদ্ধারকৃত রোহিঙ্গারা গত ২৩ এপ্রিল ২০২১ তারিখ বাহারছড়া মেরিন ড্রাইভ এলাকার বড়ডেল ঘাট থেকে একটি নৌকায় করে মালয়েশিয়া যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হয়।  গত ২৫ এপ্রিল রাতে সমুদ্রে অবস্থানকালীন সময় তারা ডাকাতদের কবলে পড়ে, এসময় ডাকাতদল তাদের মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায় এবং নৌকার ইঞ্জিনটি বিকল করে দেয়।

এরপর নৌকাটি নিয়ন্ত্রণহীনভাবে সমুদ্রে ভাসতে থাকে।  ওই খবরের ভিত্তিতে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড স্টেশান বাহারছড়ার উদ্ধারকারী দল দ্রুত ঘটনাস্থলে যায় এবং রোহিঙ্গাদের অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

তিনি বলেন, উদ্ধারকৃত রোহিঙ্গারা জানান দালালের মাধ্যমে তারা মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য রওনা হয়েছিল।  তবে প্রকৃত দালালের নাম তারা কেউ বলতে পারেনি। উদ্ধারকৃত রোহিঙ্গাদের বিষয়ে RRRC (Refugee Relief and Repatriation Commissioner) এর সঙ্গে সমন্বয়ের মাধ্যমে পরবর্তী কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের এখতিয়ারভুক্ত এলাকাসমূহে আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ, ডাকাতি দমন ও জননিরাপত্তা নিশ্চিতের পাশাপাশি উপকূলীয় অঞ্চলের উদ্ধার অভিযানে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড এর নিয়মিত অভিযান অব্যাহত রয়েছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রোহিঙ্গা বর্বরতা