আদালতে ‘দোষ স্বীকার’ করে জবানবন্দি আমির হামজার
jugantor
আদালতে ‘দোষ স্বীকার’ করে জবানবন্দি আমির হামজার

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২১ জুন ২০২১, ২২:১৭:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

মুফতি আমির হামজা

দারুস সালাম থানার সন্ত্রাসবিরোধী আইনের মামলায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন আলোচিত ধর্মীয় বক্তা মুফতি আমির হামজা।

সোমবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসিমের আদালত তার জবানবন্দি রেকর্ড করে কারাগারে পাঠানো নির্দেশ দেন।

এর আগে দুই দিনের রিমান্ড শেষে মুফতি আমির হামজাকে আদালতে হাজির করা হয়। তিনি স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হওয়ায় তা রেকর্ড করার আবেদন করে মামলার তদন্ত সংস্থা কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট।

গত ২৪ মে বিকালে কুষ্টিয়া থেকে আমির হামজাকে গ্রেফতার করে সিটিটিসি ইউনিট।

পরদিন সংসদ ভবনে খোলা তলোয়ার নিয়ে হামলার পরিকল্পনায় অভিযোগে করা মামলায় আদালত তার ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ড শেষে ৩১ মে মুফতি আমির হামজা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এরপর থেকে তিনি কারাগারেই ছিলেন। পরে দারুস সালাম থানার মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে তাকে রিমান্ডে নেয় পুলিশ।

আদালতে ‘দোষ স্বীকার’ করে জবানবন্দি আমির হামজার

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২১ জুন ২০২১, ১০:১৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মুফতি আমির হামজা
মুফতি আমির হামজা। ফাইল ছবি

দারুস সালাম থানার সন্ত্রাসবিরোধী আইনের মামলায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন আলোচিত ধর্মীয় বক্তা মুফতি আমির হামজা। 

সোমবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসিমের আদালত তার জবানবন্দি রেকর্ড করে কারাগারে পাঠানো নির্দেশ দেন। 

এর আগে দুই দিনের রিমান্ড শেষে মুফতি আমির হামজাকে আদালতে হাজির করা হয়। তিনি স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হওয়ায় তা রেকর্ড করার আবেদন করে মামলার তদন্ত সংস্থা কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট। 

গত ২৪ মে বিকালে কুষ্টিয়া থেকে আমির হামজাকে গ্রেফতার করে সিটিটিসি ইউনিট। 

পরদিন সংসদ ভবনে খোলা তলোয়ার নিয়ে হামলার পরিকল্পনায় অভিযোগে করা মামলায় আদালত তার ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ড শেষে ৩১ মে মুফতি আমির হামজা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এরপর থেকে তিনি কারাগারেই ছিলেন। পরে দারুস সালাম থানার মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে তাকে রিমান্ডে নেয় পুলিশ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন