মাইন প্রতিরোধী গাড়ির প্রথম চালান ঢাকায়
jugantor
মাইন প্রতিরোধী গাড়ির প্রথম চালান ঢাকায়

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৩ জুলাই ২০২১, ২০:২৪:৩২  |  অনলাইন সংস্করণ

মাইন প্রতিরোধী গাড়ির প্রথম চালান আসল দেশে

মাইন প্রতিরোধী ও চোরাগোপ্তা হামলা সুরক্ষিত ৩১টি ম্যাক্সপ্রো এনআরএপি গাড়ি এবং তিনটি ধাতুনির্মিত শার্ক বোট বাংলাদেশকে হস্তান্তর করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

শুক্রবার ঢাকার মা‌র্কিন দূতাবাস তা‌দের ভে‌রিফা‌য়েড ফেসবু‌ক পেজে এ তথ্য জা‌নি‌য়ে‌ছে।

এতে বলা হয়, জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী সরবরাহে বৃহত্তম দেশ হিসেবে বাংলাদেশের জন্য তাদের বাহিনীর সুরক্ষায় অত্যাধুনিক সরঞ্জাম থাকা জরুরি এবং এ সামরিক প্রস্তুতির লক্ষ্য অর্জনে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করতে অঙ্গীকারবদ্ধ। এরই অংশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র মাইন প্রতিরোধী ও চোরাগোপ্তা হামলা সুরক্ষিত ৩১টি ম্যাক্সপ্রো এনআরএপি গাড়ি এবং তিনটি ধাতুনির্মিত শার্ক বোট বাংলাদেশকে হস্তান্তর করেছে।

দূতাবা‌সের বার্তায় উল্লেখ করা হয়, এ এমআরএপি গাড়িগুলো জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের বিস্ফোরক যন্ত্র থেকে সুরক্ষা দিতে ব্যবহার করা হবে। আর বোটগুলো বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর নদী তীরে অবস্থিত ব্যাটালিয়নের জন্য ব্যবহৃত হবে।

এটি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কেনা মোট ৫০টি এমআরএপি গাড়ি ও ৭টি মেটাল শার্ক বোটের প্রথম চালান। পুরো এ চালানের মূল্য ২৯ মিলিয়ন ডলারেরও বেশি। এর মধ্যে ১৩ মিলিয়ন ডলার যুক্তরাষ্ট্র অনুদান হিসেবে দিয়েছে।

মাইন প্রতিরোধী গাড়ির প্রথম চালান ঢাকায়

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৩ জুলাই ২০২১, ০৮:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মাইন প্রতিরোধী গাড়ির প্রথম চালান আসল দেশে
ছবি: সংগৃহীত

মাইন প্রতিরোধী ও চোরাগোপ্তা হামলা সুরক্ষিত ৩১টি ম্যাক্সপ্রো এনআরএপি গাড়ি এবং তিনটি ধাতুনির্মিত শার্ক বোট বাংলাদেশকে হস্তান্তর করেছে যুক্তরাষ্ট্র। 

শুক্রবার ঢাকার মা‌র্কিন দূতাবাস তা‌দের ভে‌রিফা‌য়েড ফেসবু‌ক পেজে এ তথ্য জা‌নি‌য়ে‌ছে।

এতে বলা হয়, জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী সরবরাহে বৃহত্তম দেশ হিসেবে বাংলাদেশের জন্য তাদের বাহিনীর সুরক্ষায় অত্যাধুনিক সরঞ্জাম থাকা জরুরি এবং এ সামরিক প্রস্তুতির লক্ষ্য অর্জনে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করতে অঙ্গীকারবদ্ধ। এরই অংশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র মাইন প্রতিরোধী ও চোরাগোপ্তা হামলা সুরক্ষিত ৩১টি ম্যাক্সপ্রো এনআরএপি গাড়ি এবং তিনটি ধাতুনির্মিত শার্ক বোট বাংলাদেশকে হস্তান্তর করেছে।

দূতাবা‌সের বার্তায় উল্লেখ করা হয়, এ এমআরএপি গাড়িগুলো জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের বিস্ফোরক যন্ত্র থেকে সুরক্ষা দিতে ব্যবহার করা হবে। আর বোটগুলো বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর নদী তীরে অবস্থিত ব্যাটালিয়নের জন্য ব্যবহৃত হবে।

এটি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কেনা মোট ৫০টি এমআরএপি গাড়ি ও ৭টি মেটাল শার্ক বোটের প্রথম চালান। পুরো এ চালানের মূল্য ২৯ মিলিয়ন ডলারেরও বেশি। এর মধ্যে ১৩ মিলিয়ন ডলার যুক্তরাষ্ট্র অনুদান হিসেবে দিয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর