সমৃদ্ধ সমাজব্যবস্থায় কুরআন শিক্ষা ও আদর্শের বিকল্প নেই: অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি
jugantor
নুরুল ইসলাম ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের কুরআন বিতরণ
সমৃদ্ধ সমাজব্যবস্থায় কুরআন শিক্ষা ও আদর্শের বিকল্প নেই: অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৪ আগস্ট ২০২১, ২২:৩০:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

নুরুল ইসলাম ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এতিম ও হাফেজ শিক্ষার্থীদের মাঝে কুরআন শরিফ বিতরণ অনুষ্ঠানে

যমুনা গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা নুরুল ইসলামের সহধর্মিণী ও বর্তমান চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি বলেছেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম। পবিত্র কুরআন শান্তি, সম্প্রীতি ও মানবতাবোধের শিক্ষা দেয়। সন্ত্রাসবাদ, উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদের সঙ্গে ইসলামের কোনো সম্পর্ক নেই। তাই পবিত্র কুরআনের শাশ্বত শিক্ষা ও আদর্শের প্রচার এবং প্রসারে নিজের সাধ্য অনুসারে চষ্টো করা মুসলমান হিসাবে আমাদের প্রত্যেকের দায়িত্ব।

দৈনিক যুগান্তরের প্রধান কার্যালয়ের হলরুমে শনিবার নুরুল ইসলাম ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এতিম ও হাফেজ শিক্ষার্থীদের মাঝে কুরআন শরিফ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম বলেন, আজকের অস্থির ও অশান্ত পৃথিবীতে পুনরায় শানি্তর সুবাতাস প্রবাহিত করতে হলে পবিত্র কুরআনের নির্দেশনা অনুসারে আমাদের জীবন পরিচালনা করতে হবে। সমাজের সব শ্রেণির মানুষের মাঝে শান্তি, শৃঙ্খলা, সাম্য, মৈত্রী, ভ্রাতৃত্ববোধ ও দেশপ্রেমের চেতনা জাগ্রত করতে পবিত্র কুরআনের অতুলনীয় শিক্ষা ও মহানবি (সা.)-এর পবিত্র জীবনাদর্শ অনুসরণ করতে হবে। মুসলমান হিসাবে আমাদের কুরআনের আদর্শ মেনে চলার চষ্টো করতে হবে। আমাদের এই ফাউন্ডেশনের মূল উদ্দেশ্য হলো-যাদের সামর্থয নেই, তাদের হাতে কুরআন তুলে দেওয়া।

তিনি বলেন, মানুষ মাত্রই ভুল করে। নুরুল ইসলাম যদি কোনো ভুল করে থাকেন, তাহলে আপনারা তাকে ক্ষমা করে দেবেন। আল্লাহ তঁার সান্নিধ্যে তাকে (নুরুল ইসলাম) যেন একটা ঘর করে দেন। হাসরের দিন তিনি যেন জান্নাতবাসীদের কাতারে দাঁড়ান। আল্লাহর কাছে এই আমাদের প্রার্থনা।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন দৈনিক যুগান্তরের সম্পাদক ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি সাইফুল আলম, উপসম্পাদক এহসানুল হক, আহমেদ দীপু ও বিএম জাহাঙ্গীর।

সাইফুল আলম বলেন, কুরআন বিতরণসহ নানা কার্যক্রমের মাধ্যমে নুরুল ইসলাম ফাউন্ডেশন অত্যন্ত মহৎ উদ্যোগ নিয়েছে। এদেশে বহু লোক আছেন, যারা শত শত কোটি টাকার মালিক। তবে কজন ‘নুরুল ইসলাম ফাউন্ডেশন'-এর মতো ফাউন্ডেশন করেছেন। নুরুল ইসলাম জীবদ্দশায় নিজ এলাকায় বহু মসজিদ করেছেন এবং নানাভাবে মুসলি্লদের সাহায্য করেছেন।

তিনি বলেন, পবিত্র কুরআনে ১১৪টি সুরা আছে। এগুলো আমাদের জানা প্রয়োজন। আমরা মুসলমান। আমাদের এক আল্লাহ ও এক কুরআনে বিশ্বাস রাখতে হবে।

আহমেদ দীপু বলেন, ইসলাম একটি পূর্ণাঙ্গ ও সুশৃঙ্খল জীবনব্যবস্থা। আপনারা কুরআনের আয়াত সহি ও শুদ্ধভাবে পড়বেন এবং তরজমাসহ মুখস্ত করবেন। নুরুল ইসলাম ফাউন্ডেশনের এই মহত্ উদ্যোগ আল্লাহ যেন কবুল করে নেন।

এহসানুল হক বলেন, ইসলাম হলো সুন্দর জীবনের নির্দেশনা। ইসলাম মেনে চললে আমাদের আর কিছুই লাগবে না। এটা জীবনের পূর্ণাঙ্গ দর্শন। প্রয়াত চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের আত্মার মাগফিরাত কামনা কের তিনি বলেন, আপনারা সবাই তার জন্য দোয়া করবেন। আল্লাহ যেন তাকে (নুরুল ইসলাম) বেহশত নসিব করেন।

বিএম জাহাঙ্গীর বলেন, কুরআন আমাদের পথপ্রদর্শক এবং পরিপূর্ণ জীবনব্যবস্থা। এ অনুসারে চলতে পারলে ইহকাল ও পরকাল সুন্দর হবে। আমাদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম পৃখিবী ছেড়ে চলে গেছেন। একদিন আমরাও চলে যাব। আল্লাহ যেন তাকে (নুরুল ইসলাম) বেহেশত নসিব করেন।

অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ফাউন্ডেশনের প্রকল্প পরিচালক মাওলানা তোফায়েল গাজালি। তিনি জানান, এ ফাউন্ডেশনের অধীনে মসজিদ, মক্তব ও এতিমখানা নির্মাণ, ধর্মীয় গ্রন্থ, হজ প্রশিক্ষণ, ত্রাণ বিতরণ, ব্লাড ব্যাংক ও বেওয়ারিশ লাশ দাফনের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। অনুষ্ঠান শেষে প্রয়াত নুরুল ইসলামের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া মোনাজাত করা হয়।

নুরুল ইসলাম ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের কুরআন বিতরণ

সমৃদ্ধ সমাজব্যবস্থায় কুরআন শিক্ষা ও আদর্শের বিকল্প নেই: অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৪ আগস্ট ২০২১, ১০:৩০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
নুরুল ইসলাম ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এতিম ও হাফেজ শিক্ষার্থীদের মাঝে কুরআন শরিফ বিতরণ অনুষ্ঠানে
নুরুল ইসলাম ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এতিম ও হাফেজ শিক্ষার্থীদের মাঝে কুরআন শরিফ বিতরণ করছেন অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি। ছবি: যুগান্তর

যমুনা গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা নুরুল ইসলামের সহধর্মিণী ও বর্তমান চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি বলেছেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম। পবিত্র কুরআন শান্তি, সম্প্রীতি ও মানবতাবোধের শিক্ষা দেয়। সন্ত্রাসবাদ, উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদের সঙ্গে ইসলামের কোনো সম্পর্ক নেই। তাই পবিত্র কুরআনের শাশ্বত শিক্ষা ও আদর্শের প্রচার এবং প্রসারে নিজের সাধ্য অনুসারে চষ্টো করা মুসলমান হিসাবে আমাদের প্রত্যেকের দায়িত্ব।

দৈনিক যুগান্তরের প্রধান কার্যালয়ের হলরুমে শনিবার নুরুল ইসলাম ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এতিম ও হাফেজ শিক্ষার্থীদের মাঝে কুরআন শরিফ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম বলেন, আজকের অস্থির ও অশান্ত পৃথিবীতে পুনরায় শানি্তর সুবাতাস প্রবাহিত করতে হলে পবিত্র কুরআনের নির্দেশনা অনুসারে আমাদের জীবন পরিচালনা করতে হবে। সমাজের সব শ্রেণির মানুষের মাঝে শান্তি, শৃঙ্খলা, সাম্য, মৈত্রী, ভ্রাতৃত্ববোধ ও দেশপ্রেমের চেতনা জাগ্রত করতে পবিত্র কুরআনের অতুলনীয় শিক্ষা ও মহানবি (সা.)-এর পবিত্র জীবনাদর্শ অনুসরণ করতে হবে। মুসলমান হিসাবে আমাদের কুরআনের আদর্শ মেনে চলার চষ্টো করতে হবে। আমাদের এই ফাউন্ডেশনের মূল উদ্দেশ্য হলো-যাদের সামর্থয নেই, তাদের হাতে কুরআন তুলে দেওয়া।

তিনি বলেন, মানুষ মাত্রই ভুল করে। নুরুল ইসলাম যদি কোনো ভুল করে থাকেন, তাহলে আপনারা তাকে ক্ষমা করে দেবেন। আল্লাহ তঁার সান্নিধ্যে তাকে (নুরুল ইসলাম) যেন একটা ঘর করে দেন। হাসরের দিন তিনি যেন জান্নাতবাসীদের কাতারে দাঁড়ান। আল্লাহর কাছে এই আমাদের প্রার্থনা।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন দৈনিক যুগান্তরের সম্পাদক ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি সাইফুল আলম, উপসম্পাদক এহসানুল হক, আহমেদ দীপু ও বিএম জাহাঙ্গীর।

সাইফুল আলম বলেন, কুরআন বিতরণসহ নানা কার্যক্রমের মাধ্যমে নুরুল ইসলাম ফাউন্ডেশন অত্যন্ত মহৎ উদ্যোগ নিয়েছে। এদেশে বহু লোক আছেন, যারা শত শত কোটি টাকার মালিক। তবে কজন ‘নুরুল ইসলাম ফাউন্ডেশন'-এর মতো ফাউন্ডেশন করেছেন। নুরুল ইসলাম জীবদ্দশায় নিজ এলাকায় বহু মসজিদ করেছেন এবং নানাভাবে মুসলি্লদের সাহায্য করেছেন। 

তিনি বলেন, পবিত্র কুরআনে ১১৪টি সুরা আছে। এগুলো আমাদের জানা প্রয়োজন। আমরা মুসলমান। আমাদের এক আল্লাহ ও এক কুরআনে বিশ্বাস রাখতে হবে।

আহমেদ দীপু বলেন, ইসলাম একটি পূর্ণাঙ্গ ও সুশৃঙ্খল জীবনব্যবস্থা। আপনারা কুরআনের আয়াত সহি ও শুদ্ধভাবে পড়বেন এবং তরজমাসহ মুখস্ত করবেন। নুরুল ইসলাম ফাউন্ডেশনের এই মহত্ উদ্যোগ আল্লাহ যেন কবুল করে নেন।

এহসানুল হক বলেন, ইসলাম হলো সুন্দর জীবনের নির্দেশনা। ইসলাম মেনে চললে আমাদের আর কিছুই লাগবে না। এটা জীবনের পূর্ণাঙ্গ দর্শন। প্রয়াত চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের আত্মার মাগফিরাত কামনা কের তিনি বলেন, আপনারা সবাই তার জন্য দোয়া করবেন। আল্লাহ যেন তাকে (নুরুল ইসলাম) বেহশত নসিব করেন।

বিএম জাহাঙ্গীর বলেন, কুরআন আমাদের পথপ্রদর্শক এবং পরিপূর্ণ জীবনব্যবস্থা। এ অনুসারে চলতে পারলে ইহকাল ও পরকাল সুন্দর হবে। আমাদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম পৃখিবী ছেড়ে চলে গেছেন। একদিন আমরাও চলে যাব। আল্লাহ যেন তাকে (নুরুল ইসলাম) বেহেশত নসিব করেন।

অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ফাউন্ডেশনের প্রকল্প পরিচালক মাওলানা তোফায়েল গাজালি। তিনি জানান, এ ফাউন্ডেশনের অধীনে মসজিদ, মক্তব ও এতিমখানা নির্মাণ, ধর্মীয় গ্রন্থ, হজ প্রশিক্ষণ, ত্রাণ বিতরণ, ব্লাড ব্যাংক ও বেওয়ারিশ লাশ দাফনের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। অনুষ্ঠান শেষে প্রয়াত নুরুল ইসলামের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া মোনাজাত করা হয়।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন