বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ‘দাদু ভাইয়ের’ যে কবিতা আলোচিত হয়েছিল 
jugantor
বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ‘দাদু ভাইয়ের’ যে কবিতা আলোচিত হয়েছিল 

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১০ অক্টোবর ২০২১, ১৪:২৫:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

দেশ স্বাধীন হওয়ার পর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে একটি কবিতা লিখেছিলেন শিশুসাহিত্যিক, ছড়াকার, শিশু সংগঠক ও নাট্যকার রফিকুল হক ‘দাদু ভাই’। সেই সময় তার কবিতাটি বেশ আলোচিত হয়েছিল।

১৯৭২ সাল দেশে প্রত্যাবর্তনের পর চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু লন্ডন যান। তার দেশে ফিরে আসা উপলক্ষ্যে সেই সময়ের বহুল প্রচারিত দৈনিক ‘পূর্বদেশ’ একটি বিশেষ সংখ্যা বের করে।

ওই পত্রিকার প্রথম পাতায় বঙ্গবন্ধুর ছবির সঙ্গে ‘ঘরে ফিরা আইসো বন্ধু’ শিরোনামে একটি কবিতা ছাপা হয়। রফিকুল হকের লেখা ওই কবিতা খুবই আলোচিত হয়।

দাদু ভাইয়ের লেখা সেই কবিতাটি পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো—

ঘরে ফিরা আইসো বন্ধু
পাইতা থুইছি পিঁড়া
জলপান যে করতে দেব
ইরি ধানের চিঁড়া।

শালি ধানের চিড়া ছিল
বিন্নি ধানের খই
কোথায় পাবো শবরীকলা
গামছা বাঁধা দই!

জান মেরেছে খান পশুরা
বর্গী সেজে ফের
আগুন জ্বেলে খাক করেছে
দেশটা আমাদের।

প্রাণের বন্ধু ঘরে আইলা
বসতে দিমু কিসে;
বুকের মধ্যে তোমার বাণী
রক্তে আছে মিশে।

বঙ্গবন্ধু তোমার আসন
বাংলাদেশের মাটি
মনের মধ্যে পাতা আছে
প্রীতির শীতলপাটি।

প্রসঙ্গত রোববার বেলা পৌনে ১১টার দিকে রাজধানীর মুগদার নিজ বাসায় মারা যান দৈনিক যুগান্তরের ফিচার এডিটর প্রবীণ সাংবাদিক রফিকুল হক দাদু ভাই। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর।

রফিকুল হক বার্ধক্যজনিত নানা জটিলতায় ভুগছিলেন। গত বছর পর পর দুবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি।

সুস্থ হয়ে কর্মস্থল যুগান্তরে যোগ দিলেও বার্ধক্যসহ নানা জটিলতায় প্রায় ছয় মাস আগে মুগদার বাসায় পুরোপুরি শয্যাশায়ী হয়ে পড়েন তিনি। মৃত্যুর আগে তিনি স্ট্রোক করেন।

রফিকুল হকের জন্ম ১৯৩৭ সালের ৮ জানুয়ারি। তার গ্রামের বাড়ি রংপুরের কামালকাচনায়। তার দুই ছেলে এক মেয়ে। বড় ছেলে দেশের বাইরে থাকেন।

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ‘দাদু ভাইয়ের’ যে কবিতা আলোচিত হয়েছিল 

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১০ অক্টোবর ২০২১, ০২:২৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দেশ স্বাধীন হওয়ার পর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে একটি কবিতা লিখেছিলেন শিশুসাহিত্যিক, ছড়াকার, শিশু সংগঠক ও নাট্যকার রফিকুল হক ‘দাদু ভাই’। সেই সময় তার কবিতাটি বেশ আলোচিত হয়েছিল। 

১৯৭২ সাল দেশে প্রত্যাবর্তনের পর চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু লন্ডন যান। তার দেশে ফিরে আসা উপলক্ষ্যে সেই সময়ের বহুল প্রচারিত দৈনিক ‘পূর্বদেশ’ একটি বিশেষ সংখ্যা বের করে। 

ওই পত্রিকার প্রথম পাতায় বঙ্গবন্ধুর ছবির সঙ্গে ‘ঘরে ফিরা আইসো বন্ধু’ শিরোনামে একটি কবিতা ছাপা হয়। রফিকুল হকের লেখা ওই কবিতা খুবই আলোচিত হয়।

দাদু ভাইয়ের লেখা সেই কবিতাটি পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো—

ঘরে ফিরা আইসো বন্ধু
পাইতা থুইছি পিঁড়া
জলপান যে করতে দেব
ইরি ধানের চিঁড়া।

শালি ধানের চিড়া ছিল
বিন্নি ধানের খই
কোথায় পাবো শবরীকলা
গামছা বাঁধা দই!

জান মেরেছে খান পশুরা
বর্গী সেজে ফের
আগুন জ্বেলে খাক করেছে
দেশটা আমাদের। 

প্রাণের বন্ধু ঘরে আইলা
বসতে দিমু কিসে;
বুকের মধ্যে তোমার বাণী
রক্তে আছে মিশে।

বঙ্গবন্ধু তোমার আসন
বাংলাদেশের মাটি
মনের মধ্যে পাতা আছে
প্রীতির শীতলপাটি।

প্রসঙ্গত রোববার বেলা পৌনে ১১টার দিকে রাজধানীর মুগদার নিজ বাসায় মারা যান দৈনিক যুগান্তরের ফিচার এডিটর প্রবীণ সাংবাদিক রফিকুল হক দাদু ভাই। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর।
 
রফিকুল হক বার্ধক্যজনিত নানা জটিলতায় ভুগছিলেন। গত বছর পর পর দুবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি। 

সুস্থ হয়ে কর্মস্থল যুগান্তরে যোগ দিলেও বার্ধক্যসহ নানা জটিলতায় প্রায় ছয় মাস আগে মুগদার বাসায় পুরোপুরি শয্যাশায়ী হয়ে পড়েন তিনি। মৃত্যুর আগে তিনি স্ট্রোক করেন।

রফিকুল হকের জন্ম ১৯৩৭ সালের ৮ জানুয়ারি। তার গ্রামের বাড়ি রংপুরের কামালকাচনায়। তার দুই ছেলে এক মেয়ে। বড় ছেলে দেশের বাইরে থাকেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন