ইসলামে সব ধর্মের স্বাধীনতার কথা বলা হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী
jugantor
ইসলামে সব ধর্মের স্বাধীনতার কথা বলা হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৪ অক্টোবর ২০২১, ১৯:১৮:৩৪  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ইসলাম ধর্মে সব ধর্মের স্বাধীনতার কথা বলা হয়েছে। আমাদের সূরা কাফিরুনে স্পষ্ট বলা আছে, লাকুম দ্বীনুকুম ওয়ালিয়া দ্বীন অর্থাৎ যার যার ধর্ম তার তার কাছে। অর্থাৎ ধর্ম পালনে যেন স্বাধীনতা থাকে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর ঢাকেশ্বরী মন্দিরে মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটি আয়োজিত শারদীয় দুর্গাপূজার মহানবমীর অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান। গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠানে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, আমাদের নবী করিম হজরত মুহাম্মদ (সা.) সেটাই বিশ্বাস করতেন। সকল ধর্মাবলম্বী মানুষ তাদের নিজ ধর্ম পালন করবেন। কিছু লোক ধর্মান্ধতায় ভোগে। তারা সবসময়ই একটা সাম্প্রদায়িক দ্বন্দ্বের সৃষ্টি করতে চায়। এটা শুধু আমাদের দেশে মুসলমান হিসেবে না, এটা সব ধর্মেই ধর্মান্ধ শেণিটা আছে। তারা সবসময় গোলমাল বা একটা কিছু করতে চেষ্টা করতে থাকে। সেক্ষেত্রে আমরা সকলে এক হয়ে যদি চলি তাহলে তারা এ ক্ষতি করতে পারবে না।

যে ঘটনা ঘটেছে সে ঘটনায় আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি, আমরা সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছিলাম। এ ব্যাপারে যথযথ পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। যেখানে যেখানে এধরনের ঘটনা ঘটাবে সেখানেই তাদেরকে খুঁজে বের করা হবে। আমরা অতীতেও করেছি এবং আমরা সেটা করতেও পারব। যথাযথ শাস্তি তাদের দিতে হবে। এমন শাস্তি দিতে হবে যাতে ভবিষ্যতে এমন করতে কেউ সাহস না পায়।

ইসলামে সব ধর্মের স্বাধীনতার কথা বলা হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৪ অক্টোবর ২০২১, ০৭:১৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: সংগৃহীত

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ইসলাম ধর্মে সব ধর্মের স্বাধীনতার কথা বলা হয়েছে। আমাদের সূরা কাফিরুনে স্পষ্ট বলা আছে, লাকুম দ্বীনুকুম ওয়ালিয়া দ্বীন অর্থাৎ যার যার ধর্ম তার তার কাছে। অর্থাৎ ধর্ম পালনে যেন স্বাধীনতা থাকে।  

বৃহস্পতিবার রাজধানীর ঢাকেশ্বরী মন্দিরে মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটি আয়োজিত শারদীয় দুর্গাপূজার মহানবমীর অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান। গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠানে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, আমাদের নবী করিম হজরত মুহাম্মদ (সা.) সেটাই বিশ্বাস করতেন। সকল ধর্মাবলম্বী মানুষ তাদের নিজ ধর্ম পালন করবেন। কিছু লোক ধর্মান্ধতায় ভোগে।  তারা সবসময়ই একটা সাম্প্রদায়িক দ্বন্দ্বের সৃষ্টি করতে চায়। এটা শুধু আমাদের দেশে মুসলমান হিসেবে না, এটা সব ধর্মেই ধর্মান্ধ শেণিটা আছে। তারা সবসময় গোলমাল বা একটা কিছু করতে চেষ্টা করতে থাকে।  সেক্ষেত্রে আমরা সকলে এক হয়ে যদি চলি তাহলে তারা এ ক্ষতি করতে পারবে না। 

যে ঘটনা ঘটেছে সে ঘটনায় আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি, আমরা সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছিলাম। এ ব্যাপারে যথযথ পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। যেখানে যেখানে এধরনের ঘটনা ঘটাবে সেখানেই তাদেরকে খুঁজে বের করা হবে। আমরা অতীতেও করেছি এবং আমরা সেটা করতেও পারব। যথাযথ শাস্তি তাদের দিতে হবে। এমন শাস্তি দিতে হবে যাতে ভবিষ্যতে এমন করতে কেউ সাহস না পায়। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন