ইভ্যালিকে লাভজনক করার চেষ্টা করব: বিচারপতি মানিক
jugantor
ইভ্যালিকে লাভজনক করার চেষ্টা করব: বিচারপতি মানিক

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৮ অক্টোবর ২০২১, ২০:০১:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালিকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের জন্য চেষ্টা করবেন বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির সদ্য গঠিত বোর্ডের চেয়ারম্যান আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক।

সোমবার তাৎক্ষণিক একপ্রতিক্রিয়ায় তিনি এ কথা জানান।

ইভ্যালিকে একটি লাভজনক বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের চেষ্টা করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, আমি মাত্র খবর পেলাম আমাকে চেয়ারম্যান করা হয়েছে। এখনো আমি জিনিসটা পুরোপুরি বুঝে উঠতে পারিনি। কমিটির অন্য যে চারজন সদস্য রয়েছেন তাদের সঙ্গে কথা বলতে হবে। বিজ্ঞ চার সদস্য যদি একমত হন, তাহলে আমরা সবাই মিলে ইভ্যালিকে একটি লাভজনক বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের জন্য চেষ্টা করব।

সাবেক এ বিচারপতি আরও বলেন, যারা এখানে টাকা লগ্নি করেছেন, যাদের পয়সা হারিয়ে যাওয়ার একটা সম্ভাবনা শুরু হয়েছিল। তাদের পয়সা যতখানি সম্ভব রক্ষা করে ফেরত দেওয়ার ব্যবস্থা করা। এ বিষয়গুলো ভাবতে পারছি, পরে সবার সঙ্গে আলাপ করে বিস্তারিত জানাব।

এর আগে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির ব্যবস্থাপনার জন্য আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিককে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের বোর্ড গঠন করে দেন হাইকোর্ট। বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ বোর্ড গঠন করেন।

বোর্ডের অন্য সদস্যরা হলেন- সাবেক সচিব মোহাম্মদ রেজাউল আহসান, মাহবুব কবীর মিলন, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট ফখরুদ্দিন আহম্মেদ, আইনজীবী ব্যারিস্টার খান মোহাম্মদ শামীম আজিজ।

ইভ্যালিকে লাভজনক করার চেষ্টা করব: বিচারপতি মানিক

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৮:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক
আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক। ছবি: সংগৃহীত

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালিকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের জন্য চেষ্টা করবেন বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির সদ্য গঠিত বোর্ডের চেয়ারম্যান আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক।

সোমবার তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি এ কথা জানান। 

ইভ্যালিকে একটি লাভজনক বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের চেষ্টা করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, আমি মাত্র খবর পেলাম আমাকে চেয়ারম্যান করা হয়েছে। এখনো আমি জিনিসটা পুরোপুরি বুঝে উঠতে পারিনি। কমিটির অন্য যে চারজন সদস্য রয়েছেন তাদের সঙ্গে কথা বলতে হবে। বিজ্ঞ চার সদস্য যদি একমত হন, তাহলে আমরা সবাই মিলে ইভ্যালিকে একটি লাভজনক বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের জন্য চেষ্টা করব।

সাবেক এ বিচারপতি আরও বলেন, যারা এখানে টাকা লগ্নি করেছেন, যাদের পয়সা হারিয়ে যাওয়ার একটা সম্ভাবনা শুরু হয়েছিল। তাদের পয়সা যতখানি সম্ভব রক্ষা করে ফেরত দেওয়ার ব্যবস্থা করা। এ বিষয়গুলো ভাবতে পারছি, পরে সবার সঙ্গে আলাপ করে বিস্তারিত জানাব।

এর আগে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির ব্যবস্থাপনার জন্য আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিককে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের বোর্ড গঠন করে দেন হাইকোর্ট। বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ বোর্ড গঠন করেন।

বোর্ডের অন্য সদস্যরা হলেন- সাবেক সচিব মোহাম্মদ রেজাউল আহসান, মাহবুব কবীর মিলন, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট ফখরুদ্দিন আহম্মেদ, আইনজীবী ব্যারিস্টার খান মোহাম্মদ শামীম আজিজ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন