‘দুষ্কৃতকারীদের গ্রেফতারে প্রয়োজনে চিরুনি অভিযান’
jugantor
‘দুষ্কৃতকারীদের গ্রেফতারে প্রয়োজনে চিরুনি অভিযান’

  রংপুর ব্যুরো ও পীরগঞ্জ প্রতিনিধি  

২০ অক্টোবর ২০২১, ১০:৩৮:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

‘দুষ্কৃতকারীদের গ্রেফতারে প্রয়োজনে চিরুনি অভিযান’

দুষ্কৃতকারীদের গ্রেফতার করতে প্রয়োজনে চিরুনি অভিযান চালানো হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

মঙ্গলবার রাতে রংপুরের পীরগঞ্জের রামনাথপুর ইউনিয়নের বড়করিমপুর কসবা মাঝিপাড়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হিন্দু সম্প্রদায়ের ঘর-বাড়ি পরিদর্শন শেষে এ কথা বলেন তিনি।

পরে স্থানীয় বটেরহাট ডিএস দাখিল মাদ্রাসা মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী।

তিনি বলেন, এ ঘটনায় জড়িত অনেককেই গ্রেফতার করা হয়েছে। সহসাই তাদের মুখোশ উন্মোচিত হবে। যারা সাম্প্রদায়িক রাজনীতি করে, যারা হিন্দু সম্প্রদায়কে ভোট কেন্দ্রে যেতে বাধা দেয় কিংবা ভোট কেন্দ্রে না যাওয়ার পরামর্শ দেয়, ভোট আসলেই যারা ভারতবিরোধী স্লোগান দেয় তারাই এ সমস্ত ঘটনা ঘটিয়েছে। এই বিএনপি-জামায়াত ধর্মান্ধ গোষ্ঠীর চক্র তারাই এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

পীরগঞ্জের হিন্দুপল্লীতে হামলার ঘটনায় হামলাকারীদের প্রসঙ্গ তুলে ধরে তিনি বলেন, ৭১-এর রাজাকারেরা যেমন করত, তাদেরই পরবর্তী বংশধর এরা। আর এদের লালন করে, পোষণ করে বিএনপি-জামায়াত। সুতরাং এদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- অ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া ও আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন শফিক। এ সময় রংপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তুষার কান্তি মণ্ডল, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব রাশেক রহমান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোফাজ্জল হোসেন বাদল মাস্টারসহ জেলা, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

পরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিটি পরিবারকে ২০ কেজি করে চাল ও ৫ হাজার করে নগদ টাকা বিতরণ করা হয়।

ড. হাছান মাহমুদ আরও বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে স্বাধীন হওয়া এ দেশ সবার। কিন্তু ওই সময় একটি চক্র স্বাধীনতার বিরোধিতা করে। তারা এ দেশের সম্প্রীতি পছন্দ করে না। যারা দেশের শান্তি, শৃঙ্খলা, সম্প্রীতি ও অগ্রগতি রোধ করতে চায় তারাই দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা চালিয়েছে। হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ খ্রিস্টানের এ দেশ সবার।


‘দুষ্কৃতকারীদের গ্রেফতারে প্রয়োজনে চিরুনি অভিযান’

 রংপুর ব্যুরো ও পীরগঞ্জ প্রতিনিধি 
২০ অক্টোবর ২০২১, ১০:৩৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
‘দুষ্কৃতকারীদের গ্রেফতারে প্রয়োজনে চিরুনি অভিযান’
ছবি: সংগৃহীত

দুষ্কৃতকারীদের গ্রেফতার করতে প্রয়োজনে চিরুনি অভিযান চালানো হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

মঙ্গলবার রাতে রংপুরের পীরগঞ্জের রামনাথপুর ইউনিয়নের বড়করিমপুর কসবা মাঝিপাড়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হিন্দু সম্প্রদায়ের ঘর-বাড়ি পরিদর্শন শেষে এ কথা বলেন তিনি।

পরে স্থানীয় বটেরহাট ডিএস দাখিল মাদ্রাসা মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী। 

তিনি বলেন, এ ঘটনায় জড়িত অনেককেই গ্রেফতার করা হয়েছে। সহসাই তাদের মুখোশ উন্মোচিত হবে। যারা সাম্প্রদায়িক রাজনীতি করে, যারা হিন্দু সম্প্রদায়কে ভোট কেন্দ্রে যেতে বাধা দেয় কিংবা ভোট কেন্দ্রে না যাওয়ার পরামর্শ দেয়, ভোট আসলেই যারা ভারতবিরোধী স্লোগান দেয় তারাই এ সমস্ত ঘটনা ঘটিয়েছে। এই বিএনপি-জামায়াত ধর্মান্ধ গোষ্ঠীর চক্র তারাই এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

পীরগঞ্জের হিন্দুপল্লীতে হামলার ঘটনায় হামলাকারীদের প্রসঙ্গ তুলে ধরে তিনি বলেন, ৭১-এর রাজাকারেরা যেমন করত, তাদেরই পরবর্তী বংশধর এরা। আর এদের লালন করে, পোষণ করে বিএনপি-জামায়াত। সুতরাং এদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- অ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া ও আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন শফিক। এ সময় রংপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তুষার কান্তি মণ্ডল, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব রাশেক রহমান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোফাজ্জল হোসেন বাদল মাস্টারসহ জেলা, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও  সহযোগী সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। 

পরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিটি পরিবারকে ২০ কেজি করে চাল ও ৫ হাজার করে নগদ টাকা বিতরণ করা হয়।

ড. হাছান মাহমুদ আরও বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে স্বাধীন হওয়া এ দেশ সবার। কিন্তু ওই সময় একটি চক্র স্বাধীনতার বিরোধিতা করে। তারা এ দেশের সম্প্রীতি পছন্দ করে না। যারা দেশের শান্তি, শৃঙ্খলা, সম্প্রীতি ও অগ্রগতি রোধ করতে চায় তারাই দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা চালিয়েছে। হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ খ্রিস্টানের এ দেশ সবার।

 
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন