ডা. মুরাদকে পদত্যাগের নির্দেশ নিয়ে যা বললেন তারানা হালিম
jugantor
ডা. মুরাদকে পদত্যাগের নির্দেশ নিয়ে যা বললেন তারানা হালিম

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ০০:২৩:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে পদত্যাগের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সোমবার রাত ৮ টায় ডা. মুরাদ হাসানকে প্রধানমন্ত্রীর এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপাতি তারানা হালিম এ নিয়ে তার ভ্যারিফাইড ফেসবুক পেজে সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকেপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

ওই স্ট্যাটাসে তিনি লিখেছেন, ধন্যবাদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী
মুরাদ হাসান,
-আপনি কর্মক্ষেত্রে যা করেছেন তা conflict of interest ,
-আপনি যে ভাষায় কথা বলেছেন তা বিকৃত রুচির,অশালীন,নারীর প্রতি অবমাননাকর,
-আপনি দলের ও সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষু্ণ্ণ করেছেন,
-শাস্তি আপনার প্রাপ্য ।
রাসুলে করিম (সা:) বলেছেন-
“ভালো মানুষ নারীকে সম্মান করে।”
তাই আপনি দোষী থাকবেন দুনিয়াতে ও আখেরাতে।
আমরা যারা দলকে ভালোবাসি তারা জানি এই সিদ্ধান্ত নেবার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে কঠিন,কঠোর হতে হয়েছে।
কিন্তু বঙ্গবন্ধুকন্যার কাছ থেকে এটাই আশা করি আমরা।
ভবিষ্যতে সব লুটেরা,ঘুষখোর,লম্পটদের বিরুদ্ধে আপনার এমন কঠোর পদক্ষেপ অব্যাহত থাকুক।এই দৃষ্টান্ত যেন সকলের জন্য শিক্ষার কারণ হয়।
যখন টাইপ করছিলাম তখন শিরোনাম দিয়েছিলাম-“এটা অন্যায়” জনাব মুরাদকে উদ্দেশ্য করে।এর মাঝে ফোনে জানলাম ওনাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। তাই শিরোনামটি বদলালাম । লিখলাম-“ধন্যবাদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ।”

প্রসঙ্গত, রোববার রাতে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের একটি ফোনালাপ ফাঁস হওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নতুন করে তোপের মুখে পড়েছেন তিনি।

নারীর প্রতি ‘অবমাননাকর’ ও ‘বর্ণবাদী’ মন্তব্য করে আগে থেকেই তীব্র সমালোচনার মধ্যে আছেন এই প্রতিমন্ত্রী।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার পরিবারের এক সদস্যকে নিয়ে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের ‘নারীবিদ্বেষী’ বক্তব্য নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা সৃষ্টি হয়। এরই মধ্যে ফাঁস হয় একটি ফোনালাপ।

জানা যায়, এই কথোপকথনটি ডা. মুরাদ হাসান ও চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির। ফোনালাপে থাকা চিত্রনায়ক ইমন ইতোমধ্যে সেটি স্বীকারও করেছেন। ফাঁস হওয়া ওই কথোপকথনে তথ্য প্রতিমন্ত্রী মাহিকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়ার পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় তুলে আনার হুমকি দেন। পুরো বক্তব্যে ‘অশ্রাব্য’ কিছু শব্দ উচ্চারিত হয়েছে। বিষয়টি এখন ‘টক অব দ্য কান্ট্রি’।

ডা. মুরাদকে পদত্যাগের নির্দেশ নিয়ে যা বললেন তারানা হালিম

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:২৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে পদত্যাগের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সোমবার রাত ৮ টায় ডা. মুরাদ হাসানকে প্রধানমন্ত্রীর এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপাতি তারানা হালিম এ নিয়ে তার ভ্যারিফাইড ফেসবুক পেজে সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

ওই স্ট্যাটাসে তিনি লিখেছেন, ধন্যবাদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী 
মুরাদ হাসান,
-আপনি কর্মক্ষেত্রে যা করেছেন তা conflict of interest ,
-আপনি যে ভাষায় কথা বলেছেন তা বিকৃত রুচির,অশালীন,নারীর প্রতি অবমাননাকর,
-আপনি দলের ও সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষু্ণ্ণ করেছেন,
-শাস্তি আপনার প্রাপ্য ।
রাসুলে করিম (সা:) বলেছেন-
“ভালো মানুষ নারীকে সম্মান করে।”
তাই আপনি দোষী থাকবেন দুনিয়াতে ও আখেরাতে।
আমরা যারা দলকে ভালোবাসি তারা জানি এই সিদ্ধান্ত নেবার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে কঠিন,কঠোর হতে হয়েছে।
কিন্তু বঙ্গবন্ধুকন্যার কাছ থেকে এটাই আশা করি আমরা।
ভবিষ্যতে সব লুটেরা,ঘুষখোর,লম্পটদের বিরুদ্ধে আপনার এমন কঠোর পদক্ষেপ অব্যাহত থাকুক।এই দৃষ্টান্ত যেন সকলের জন্য শিক্ষার কারণ হয়।
যখন টাইপ করছিলাম তখন শিরোনাম দিয়েছিলাম-“এটা অন্যায়” জনাব মুরাদকে উদ্দেশ্য করে।এর মাঝে ফোনে জানলাম ওনাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। তাই শিরোনামটি বদলালাম । লিখলাম-“ধন্যবাদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ।”
 
প্রসঙ্গত, রোববার রাতে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের একটি ফোনালাপ ফাঁস হওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নতুন করে তোপের মুখে পড়েছেন তিনি। 

নারীর প্রতি ‘অবমাননাকর’ ও ‘বর্ণবাদী’ মন্তব্য করে আগে থেকেই তীব্র সমালোচনার মধ্যে আছেন এই প্রতিমন্ত্রী।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার পরিবারের এক সদস্যকে নিয়ে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের ‘নারীবিদ্বেষী’ বক্তব্য নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা সৃষ্টি হয়। এরই মধ্যে ফাঁস হয় একটি ফোনালাপ। 

জানা যায়, এই কথোপকথনটি ডা. মুরাদ হাসান ও চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির। ফোনালাপে থাকা চিত্রনায়ক ইমন ইতোমধ্যে সেটি স্বীকারও করেছেন। ফাঁস হওয়া ওই কথোপকথনে তথ্য প্রতিমন্ত্রী মাহিকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়ার পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় তুলে আনার হুমকি দেন। পুরো বক্তব্যে ‘অশ্রাব্য’ কিছু শব্দ উচ্চারিত হয়েছে। বিষয়টি এখন ‘টক অব দ্য কান্ট্রি’।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন