বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল দ্বীপবাসীর উন্নয়ন: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী
jugantor
বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল দ্বীপবাসীর উন্নয়ন: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

  হাতিয়া (নোয়াখালী) প্রতিনিধি  

১৪ জানুয়ারি ২০২২, ২০:৪৬:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী এম মাহবুব আলী বলেছেন, ঢাকায় যদি গাড়ি চলে তাহলে এই হাতিয়া দ্বীপে গাড়ি চলবে। ঢাকায় যদি বিদ্যুৎ থাকে তাহলে এ হাতিয়া দ্বীপেও বিদ্যুৎ থাকবে। সারাবিশ্ব থেকে পর্যটকরা নিঝুম দ্বীপে আসবেন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল দ্বীপবাসীর উন্নয়ন। বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা সেই স্বপ্ন পূরণে নানান উদ্যোগ হাতে নিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, এই দ্বীপকে পর্যটন উপযোগী করার জন্য অনেক উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে অনেক প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। এই সুন্দর দ্বীপ দেখতে পর্যটকরা হেলিকপ্টারে করে আসবেন। এতে জীবনমানের পরিবর্তন হবে। এই দ্বীপের চেহারা বদলে যাবে।

শুক্রবার দুপুরে নোয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার তমরুদ্দি পর্যটন কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে এক সভায় প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এ সময় নোয়াখালী-৬ (হাতিয়া) আসনের সংসদ সদস্য আয়েশা ফেরদৌস বলেন, নিঝুম দ্বীপকে পর্যটনমুখী করার জন্য ভালো ভালো রিসোর্ট নির্মাণ করা জরুরি। আমরা চাই দেশি পর্যটকের পাশাপাশি বিদেশি পর্যটক আসুক এ দ্বীপে। সরকারের সহযোগিতায় এ দ্বীপকে আরও আধুনিক করা যাবে।

সভায় উপস্থিত ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোজাম্মেল হোসেন, বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী (অতিরিক্ত সচিব) জাবেদ আহমেদসহ অনেকে।

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল দ্বীপবাসীর উন্নয়ন: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

 হাতিয়া (নোয়াখালী) প্রতিনিধি 
১৪ জানুয়ারি ২০২২, ০৮:৪৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী এম মাহবুব আলী বলেছেন, ঢাকায় যদি গাড়ি চলে তাহলে এই হাতিয়া দ্বীপে গাড়ি চলবে। ঢাকায় যদি বিদ্যুৎ থাকে তাহলে এ হাতিয়া দ্বীপেও বিদ্যুৎ থাকবে। সারাবিশ্ব থেকে পর্যটকরা নিঝুম দ্বীপে আসবেন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল দ্বীপবাসীর উন্নয়ন। বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা সেই স্বপ্ন পূরণে নানান উদ্যোগ হাতে নিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, এই দ্বীপকে পর্যটন উপযোগী করার জন্য অনেক উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে অনেক প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। এই সুন্দর দ্বীপ দেখতে পর্যটকরা হেলিকপ্টারে করে আসবেন। এতে জীবনমানের পরিবর্তন হবে। এই দ্বীপের চেহারা বদলে যাবে।

শুক্রবার দুপুরে নোয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার তমরুদ্দি পর্যটন কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে এক সভায় প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এ সময় নোয়াখালী-৬ (হাতিয়া) আসনের সংসদ সদস্য আয়েশা ফেরদৌস বলেন, নিঝুম দ্বীপকে পর্যটনমুখী করার জন্য ভালো ভালো রিসোর্ট নির্মাণ করা জরুরি। আমরা চাই দেশি পর্যটকের পাশাপাশি বিদেশি পর্যটক আসুক এ দ্বীপে। সরকারের সহযোগিতায় এ দ্বীপকে আরও আধুনিক করা যাবে। 

সভায় উপস্থিত ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোজাম্মেল হোসেন, বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী (অতিরিক্ত সচিব) জাবেদ আহমেদসহ অনেকে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন