‘পুলিশের সাংগঠনিক কাঠামোতে ৮২৫৮৩ পদ সৃজন করেছি’
jugantor
‘পুলিশের সাংগঠনিক কাঠামোতে ৮২৫৮৩ পদ সৃজন করেছি’

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৩ জানুয়ারি ২০২২, ১২:০৪:২৩  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমরা বাংলাদেশ পুলিশের বেতনভাতাসহ নানা সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করেছি। ২০০৯ সালে সরকার গঠন করার পর পুলিশের সাংগঠনিক কাঠামোতে ৮২ হাজার ৫৮৩টি পদ সৃজন করেছি।

রোববার সকাল ১০টায় রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ লাইন্স মাঠে পুলিশ সপ্তাহ-২০২২ উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা কমিউনিটি পুলিশ জনগণের সঙ্গে সম্পৃক্ত করে দেশের আইনশৃঙ্খলা জানমাল রক্ষা করার ব্যবস্থা নিয়েছি। আমরা শিল্প পুলিশ করে দিয়েছি।

পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট জাতির জনক হত্যার ঘটনা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের বাসায় সেদিন যখন আক্রমণ চালায় তখন এসবি সিদ্দিকুর রহমান এতে বাধা দিয়েছিল। তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়। আরও অনেক পুলিশ সদস্য সেদিন আহত হন। আমি তাদের স্মরণ করি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৮১ সালে আওয়ামী লীগ আমাকে সভাপতি নির্বাচিত করে। আমি দেশে ফিরে এসে দেখি খুনি-দোসররা ক্ষমতায়। আমরা ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে দেখলাম, তখন পুলিশের বাজেট ছিল মাত্র ৪০০ কোটি টাকা। সেটিকে আমরা ৮০০ কোটি টাকা করে দিয়েছিলাম। পুলিশের বেতন-রেশন বৃদ্ধি করেছি। ট্রাস্ট ফান্ড গঠন করি। পুলিশের জন্য ঝুঁকি ভাতা আমরা প্রণয়ন করি।
‘দক্ষ পুলিশ, সমৃদ্ধ দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ স্লোগানে এবার শুরু হয়েছে ‘পুলিশ সপ্তাহ-২০২২’।
সকালে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল অনুষ্ঠানস্থলে এসে দৃষ্টিনন্দন প্যারেড পরিদর্শন করেন।

বার্ষিক পুলিশ প্যারেডে অধিনায়ক হিসেবে নেতৃত্ব দেন পুলিশ সুপার মো. ছালেহ উদ্দিন। তার নেতৃত্বে বিভিন্ন কন্টিনজেন্টের পুলিশ সদস্যরা প্যারেডে অংশ নিয়েছেন।

‘পুলিশের সাংগঠনিক কাঠামোতে ৮২৫৮৩ পদ সৃজন করেছি’

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৩ জানুয়ারি ২০২২, ১২:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ফাইল ছবি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমরা বাংলাদেশ পুলিশের বেতনভাতাসহ নানা সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করেছি। ২০০৯ সালে সরকার গঠন করার পর পুলিশের সাংগঠনিক কাঠামোতে ৮২ হাজার ৫৮৩টি পদ সৃজন করেছি।

রোববার সকাল ১০টায় রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ লাইন্স মাঠে পুলিশ সপ্তাহ-২০২২ উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা কমিউনিটি পুলিশ জনগণের সঙ্গে সম্পৃক্ত করে দেশের আইনশৃঙ্খলা জানমাল রক্ষা করার ব্যবস্থা নিয়েছি। আমরা শিল্প পুলিশ করে দিয়েছি। 

পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট জাতির জনক হত্যার ঘটনা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের বাসায় সেদিন যখন আক্রমণ চালায় তখন এসবি সিদ্দিকুর রহমান এতে বাধা দিয়েছিল। তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়। আরও অনেক পুলিশ সদস্য সেদিন আহত হন। আমি তাদের স্মরণ করি। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৮১ সালে আওয়ামী লীগ আমাকে সভাপতি নির্বাচিত করে। আমি দেশে ফিরে এসে দেখি খুনি-দোসররা ক্ষমতায়। আমরা ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে দেখলাম, তখন পুলিশের বাজেট ছিল মাত্র ৪০০ কোটি টাকা। সেটিকে আমরা ৮০০ কোটি টাকা করে দিয়েছিলাম। পুলিশের বেতন-রেশন বৃদ্ধি করেছি। ট্রাস্ট ফান্ড গঠন করি। পুলিশের জন্য ঝুঁকি ভাতা আমরা প্রণয়ন করি।
‘দক্ষ পুলিশ, সমৃদ্ধ দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ স্লোগানে এবার শুরু হয়েছে ‘পুলিশ সপ্তাহ-২০২২’।
সকালে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল অনুষ্ঠানস্থলে এসে দৃষ্টিনন্দন প্যারেড পরিদর্শন করেন।

বার্ষিক পুলিশ প্যারেডে অধিনায়ক হিসেবে নেতৃত্ব দেন পুলিশ সুপার মো. ছালেহ উদ্দিন। তার নেতৃত্বে বিভিন্ন কন্টিনজেন্টের পুলিশ সদস্যরা প্যারেডে অংশ নিয়েছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন