হাজার হাজার মাদক মামলার নিষ্পত্তি নেই কেন?

  যুগান্তর ডেস্ক    ২৫ মে ২০১৮, ০৮:৪৭ | অনলাইন সংস্করণ

মাদক দ্রব্য
ছবি: বিবিসি

সারা দেশে মাদকবিরোধী বিশেষ অভিযানে নিহতের সংখ্যা ৫০ ছাড়িয়েছে। সারা দেশে আটক হয়েছে কয়েক হাজার মানুষ।

অপরাধ ঠেকাতে সরকার বেআইনি হত্যার পথ বেছে নিয়েছে বলে সমালোচনা উঠতে শুরু করেছে।

বাংলাদেশে মাদক ব্যবসা এবং পাচারের সঙ্গে জড়িত সন্দেহভাজনদের আইনের আওতায় আনার জন্য মাদকবিরোধী আইন রয়েছে।

বাংলাদেশের মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের হিসাব অনুযায়ী, ২০১৭ সালে মাদক আইনে মামলা করা হয়েছে ১১ হাজার ৬১২টি। চলতি বছরের মার্চ মাস পর্যন্ত মামলা হয়েছে তিন হাজার ২৮৯টি।

মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. জামাল উদ্দীন আহমেদ বলছেন, ২০১৭ সালে দুই হাজার ৫৪৪টি মামলার নিষ্পত্তি হয়েছে। এর মধ্যে এক হাজার ১৬টি মামলায় আসামির সাজা হয়েছে। আর আসামি খালাস পেয়েছে এক হাজার ৫২৮টি মামলায়।

ওদিকে সারা দেশে এই বিশেষ অভিযানে গত ১০ দিনে ৪৯ জন নিহত হওয়ার ঘটনার কথা জানিয়েছে মানবাধিকার সংগঠন অধিকার।

মে মাসের ১৫ তারিখ থেকে ২৪ মে পর্যন্ত সারা দেশের এই সংখ্যা দিচ্ছে তারা।

পুলিশের ভাষ্য, নিহতের ঘটনার সবটাই ঘটেছে ‘বন্দুকযুদ্ধে’। এসব কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধ’ নিয়ে যেমন সমালোচনা হচ্ছে, তেমনি মামলা পরিচালনা করার প্রক্রিয়া নিয়ে রয়েছে বিতর্ক।

মানবাধিকার সংগঠন অধিকারের আদিলুর রহমান খান পুরো ব্যবস্থার মধ্যে গাফিলতি রয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন।

তিনি বলেন, পুরো সিস্টেমটাই তো গাফিলতির মধ্যে আছে। এখানে গাফিলতি একটা-দুইটা ক্ষেত্রে না।

তিনি বলেন, মাদকবিরোধী মামলা পরিচালনা করা তো দ্বিতীয় ধাপের ব্যাপার।

আদিলুর রহমান প্রশ্ন রাখেন, প্রথম ধাপে রয়েছে যারা এটার নিয়ন্ত্রণকারী, যারা এর আমদানিকারক কিংবা ব্যবসায়ী তাদের ধরা হচ্ছে না। যারা আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তারা কি নিরপেক্ষভাবে কাজ করছে, নাকি তারা আদিষ্ট হয়ে যা করতে বলা হচ্ছে তাই করছে?

মামলা পরিচালনা এবং নিষ্পত্তি নিয়ে যখন প্রশ্ন উঠেছে, তখন পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে যে মামলার ধরনের কারণেই মাদকের মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি করা সম্ভব।

পুলিশের মুখপাত্র সহেলী ফেরদৌস বলেন, মামলা সঠিকভাবে পরিচালনা না হওয়ার ক্ষেত্রে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কোনো গাফিলতি নেই; বরং যেসব আইন রয়েছে সেটা নিয়ে আলোচনা করা দরকার।

বাংলাদেশের মাদকবিরোধী আইনে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের ব্যবস্থা থাকলেও এর কিছু ত্রুটি এখনও রয়ে গেছে।

এ সম্পর্কে মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. জামাল উদ্দীন আহমেদ বলেন, প্রচলিত আইনের তফসিলে বেশ কিছু বিষয় অন্তর্ভুক্ত নেই। যাদের মাদকের গডফাদার বা মাস্টারমাইন্ড বলা হয়, তাদের আইনে সোপর্দ করার কোনো ব্যবস্থা বর্তমান আইনে নেই।

তিনি বলেন, আমরা আইন সংশোধন করে, যারা মাদকের ব্যবসা করে এবং মাদক তৈরি করে, তাদের আইনের আওতায় আনার জন্য আইনানুগ বিধান তৈরির উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। সূত্র : বিবিসি বাংলা।

ঘটনাপ্রবাহ : মাদকবিরোধী অভিযান ২০১৮

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter