হজযাত্রীদের বিমান ভাড়া অসহনীয়

প্রকাশ : ২৬ মে ২০১৮, ২১:৪৭ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

আসন্ন হজ মৌসুমে বিমান ভাড়া কমানো ও থার্ড ক্যারিয়ার চালুর দাবি জানিয়েছে এজেন্সি মালিকদের সংগঠন হজ এজেন্সীজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব)।

পাশাপাশি ধর্ম মন্ত্রণালয়ের কাছে বকেয়া পাওনা পরিশোধ করার দাবি জানিয়েছে সংগঠনটির নেতারা।

জবাবে বেসামরিক  বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল বলেছেন, বিমান ভাড়া চূড়ান্ত হওয়ায় এ বছর তা সম্ভব নয়। ভবিষ্যতে বিবেচনা করা যেতে পারে। আর থার্ড ক্যারিয়ারের চালুর বিষয়ে ইতিবাচক ইঙ্গিত দিলেও তা পরিষ্কার করে কিছু বলেননি তিনি।

তবে সুষ্ঠু হজ ব্যবস্থাপনার জন্য দেশের ছোট বড় সব রাজনৈতিক দলের সহযোগিতা চেয়ে বিমানমন্ত্রী বলেন, ‘হজ নিয়ে রাজনীতি করা মোটেই উচিত নয়।’

শনিবার রাজধানীর রমনা পুলিশ কনভেনশন সেন্টারে বার্ষিক দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠানে উল্লেখিত ঘটনা ঘটে।

হাব সভাপতি আবদুস ছোবহান ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে ও মহাসচিব এম. শাহাদাত হোসাইন তসলিমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান বজলুল হক হারুন, সদস্য নজিবুল বশর মাইজভান্ডারি, একে এম এ আউয়াল (সাইদুর রহমান), মকবুল হোসেন, মোহাম্মদ আমীর হোসেন, ধর্ম সচিব আনিছুর রহমান, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন সচিব  মহিবুল হক, বাংলাদেশস্থ সৌদি রাষ্ট্রদূত আবদুল্লাহ এইচ. এম আল-মোতাইরি ও হাব সহসভাপতি ইয়াকুব শরাফত প্রমুখ। অনুষ্ঠানে হাবের সদস্যদের সন্তানদের মধ্যে (যারা হাফেজ ও ক্বারী) অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের ক্রেস্ট উপহার দেয়া হয়।

সরকারের উদ্দেশে হাব মহাসচিব শাহাদাত হোসাইন তছলিম বলেন, বর্তমান সরকার হজকে স্বচ্ছ, জবাবদিহিতামূলক ও জনবান্ধব  করতে ই-হজ পদ্ধতি প্রবর্তনসহ নানামুখী প্রশংসনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

বিমান ভাড়া অবশ্যই কমাতে হবে মন্তব্য করে তিনি বলেন, হজযাত্রী পরিবহনে  বর্তমানে যে বিমান ভাড়া বাবদ যে পরিমাণ টাকা আদায় করা হচ্ছে তা অন্যায়, অযৌক্তিক ও জুলুমের পর্যায়ে পড়ে। এবার বিমান গতবারের চেয়ে ১৪ হাজার টাকা বেশি ধরা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ঢাকা-জেদ্দা-ঢাকা বিমান ভাড়ার ক্ষেত্রে একজন সাধারণ যাত্রীর জন্য ৩৬ থেকে ৪০ হাজার টাকা নেয়া হয়।  আর ওমরাহ যাত্রীর ক্ষেত্রে এর পরিমাণ ৪৯ থেকে ৫২ হাজার টাকা রাখা হয়।

একই দূরত্বে হজযাত্রীরে ক্ষেত্রে সেই ভাড়া ১ লাখ ৩৮ হাজার ১৫১ টাকা।

হাব মহাসচিব বলেন, এ বছর হাব কোনও খারাপ সংবাদের উপজীব্য হতে চায় না। কোন কারণে হজ ফ্লাইটের কোন স্লট বাতিল হলে তা পূরণে বিমানের সক্ষমতা নেই। ফলে থার্ড ক্যারিয়ার চালু করা প্রয়োজন।

ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য নজিবুল বশর মাইজভান্ডারি হজযাত্রী বিমান পরিবহনে বিমানভাড়া কমানো উচিত বলে মন্তব্য করে বলেন, সৌদি সরকার বেসরকারি হাজি বুঝে না। তারা বাংলাদেশ সরকারের হজযাত্রী মনে করে।

এসব দাবির বিষয়ে বিমান পরিবহনমন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল বলেছেন এ ব্যাপারে সৌদি সরকার ও বর্তমান সরকারের শীর্ষ মহলে কথাবার্তা চলছে।

চলতি বছরের বিমানভাড়া চূড়ান্ত হয়ে গেছে। আর হজযাত্রী পরিবহনে কোন ব্যতয় ঘটলে নেতাদের দাবি অনুযায়ী বিকল্প ব্যবস্থা (প্রকারান্তরে থার্ড ক্যারিয়ার) গ্রহণ করা হতে পারে বলে তিনি ইঙ্গিত দেন। তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত না হওয়ায় সরাসরি কিছু এখনই বলতে রাজি নন বলে জানান।

বিমান ভাড়া হ্রাস ও থার্ড ক্যারিয়ার চালুর ব্যাপারে ধর্মসচিব আনিছুর রহমান বলেন, চলতি বছরের সব কিছু চূড়ান্ত হয়ে গেছে। এ বছর সম্ভব না হলেও আগামী বছর হাব নেতাদের দাবির ব্যাপারটি ভেবে দেখা হবে। হাবের পাওনা টাকাও পরিশোধ করার আশ্বাস দেন তিনি।

বিমান সচিব মহিবুল হক বলেন, এখন আর কোনো কিছু করা সম্ভব না। এবার যেন হজ ফ্লাইটগুলো সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত হয় সে ব্যাপারে সবার প্রচেষ্টা থাকা প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেন তিনি।