বিসিএসে প্রশ্নফাঁসের ঘটনা নেই: পিএসসি চেয়ারম্যান
jugantor
বিসিএসে প্রশ্নফাঁসের ঘটনা নেই: পিএসসি চেয়ারম্যান

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৭ মে ২০২২, ১৪:৩৬:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

৪৪তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় কোনো ধরনের প্রশ্নপত্র ফাঁস বা অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) চেয়ারম্যান মো. সোহরাব হোসাইন।

পরীক্ষা চলাকালে শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে রাজধানীর ঢাকা কলেজ কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

এদিন সকাল ১০টায় ঢাকা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল, সিলেট, রংপুর ও ময়মনসিংহ কেন্দ্রে একযোগে ২০০ নম্বরের দুই ঘণ্টার এ পরীক্ষা শুরু হয়। সাড়ে তিন লাখেরও বেশি আবেদনকারীর এ পরীক্ষা শেষ হয় দুপুর ১২টায়।

পিএসসি চেয়ারম্যান বলেন, আমরা যেভাবে প্রস্তুতি নিয়েছি প্রশ্নফাঁসের কোনো সুযোগও নেই। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে বিসিএস এমসিকিউ পরীক্ষার ছয় সেট প্রশ্ন করেছি। আজ সকাল সাড়ে ৯টায় লটারির মাধ্যমে সেট পছন্দ করে প্রিন্ট দিয়ে কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে।

তিনি বলেন, সেট পছন্দ করার ক্ষেত্রে সব সময় আমরা দুজন সম্মানিত ব্যক্তির উপস্থিতিতে লটারি সম্পন্ন করে থাকি। এ বছর অধ্যাপক ড. শওকত আলী স্যার এবং যুগান্তর পত্রিকার সম্পাদক সাইফুল আলমের উপস্থিতিতে লটারি সম্পন্ন হয়েছে।

কোভিড-১৯ মহামারির কারণে পিএসসির নিয়োগ কার্যক্রমে কোনো ভাটা পড়েছে কিনা— এমন প্রশ্নে সোহরাব হোসাইন বলেন, কোভিড চলাকালে আমরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বেশ কিছু কাজ করেছি। পিএসসির অধিকাংশ সদস্যই ষাটোর্ধ্ব বয়সি। মৃত্যুঝুঁকি নিয়েও ৪২তম বিসিএসে চিকিৎসক নিয়োগ নিয়ে কাজ করেছি। আট হাজার নার্স নিয়োগের কাজ করেছি এবং ৪১৯ জন সিনিয়র কনসালটেন্ট নিয়োগের কাজ সম্পন্ন করেছি। এরই ধারাবাহিকতায় আজ ৪৪তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পিএসসির সব কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

বিসিএসে প্রশ্নফাঁসের ঘটনা নেই: পিএসসি চেয়ারম্যান

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৭ মে ২০২২, ০২:৩৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

৪৪তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় কোনো ধরনের প্রশ্নপত্র ফাঁস বা অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) চেয়ারম্যান মো. সোহরাব হোসাইন।

পরীক্ষা চলাকালে শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে রাজধানীর ঢাকা কলেজ কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

এদিন সকাল ১০টায় ঢাকা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল, সিলেট, রংপুর ও ময়মনসিংহ কেন্দ্রে একযোগে ২০০ নম্বরের দুই ঘণ্টার এ পরীক্ষা শুরু হয়। সাড়ে তিন লাখেরও বেশি আবেদনকারীর এ পরীক্ষা শেষ হয় দুপুর ১২টায়।

পিএসসি চেয়ারম্যান বলেন, আমরা যেভাবে প্রস্তুতি নিয়েছি প্রশ্নফাঁসের কোনো সুযোগও নেই। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে বিসিএস এমসিকিউ পরীক্ষার ছয় সেট প্রশ্ন করেছি। আজ সকাল সাড়ে ৯টায় লটারির মাধ্যমে সেট পছন্দ করে প্রিন্ট দিয়ে কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে।

তিনি বলেন, সেট পছন্দ করার ক্ষেত্রে সব সময় আমরা দুজন সম্মানিত ব্যক্তির উপস্থিতিতে লটারি সম্পন্ন করে থাকি। এ বছর অধ্যাপক ড. শওকত আলী স্যার এবং যুগান্তর পত্রিকার সম্পাদক সাইফুল আলমের উপস্থিতিতে লটারি সম্পন্ন হয়েছে।

কোভিড-১৯ মহামারির কারণে পিএসসির নিয়োগ কার্যক্রমে কোনো ভাটা পড়েছে কিনা— এমন প্রশ্নে সোহরাব হোসাইন বলেন, কোভিড চলাকালে আমরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বেশ কিছু কাজ করেছি। পিএসসির অধিকাংশ সদস্যই ষাটোর্ধ্ব বয়সি। মৃত্যুঝুঁকি নিয়েও ৪২তম বিসিএসে চিকিৎসক নিয়োগ নিয়ে কাজ করেছি। আট হাজার নার্স নিয়োগের কাজ করেছি এবং ৪১৯ জন সিনিয়র কনসালটেন্ট নিয়োগের কাজ সম্পন্ন করেছি। এরই ধারাবাহিকতায় আজ ৪৪তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পিএসসির সব কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন