নিবন্ধনধারী ৪৮৩ জনকে নিয়োগের নির্দেশ 
jugantor
নিবন্ধনধারী ৪৮৩ জনকে নিয়োগের নির্দেশ 

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৯ জুন ২০২২, ১৩:২৪:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) ১৪তম নিবন্ধনধারী ৪৮৩ জনকে নিয়োগের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বুধবার ৪টি পৃথক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি কাশেফা হোসেন ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

উত্তীর্ণদের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়োগ দিতে শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান, শিক্ষা সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের দ্রুত সময়ের মধ্যে পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে আদেশে।

এদিন আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনিরুজ্জামান আসাদ ও আইনজীবী ফারুক হোসেন।

গত বছর জাকির হোসেন নামে এক নিবন্ধনধারীসহ ৪৮৩ জন হাইকোর্টে রিটটি করেন। চতুর্দশ নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ওই প্রার্থীদের নিয়োগ দিতে কেন সুপারিশ করা হবে না-তা জানতে চেয়ে এরপর রুল দেয় আদালত। সেই রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে বুধবার রায় দিলেন হাইকোর্ট।

২০১৮ সালের নভেম্বরে চতুর্দশ নিবন্ধন পরীক্ষার চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হয়। তাতে স্কুল-২ পর্যায়ে ৫৫৪ জন, স্কুল পর্যায়ে ১৪ হাজার ১৭৮ জন এবং কলেজ পর্যায়ে ৩ হাজার ৫৮০ জন উত্তীর্ণ হন।

এর আগে গত ১ জুন বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের ত্রয়োদশ নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ আড়াই হাজার প্রার্থীকে নিয়োগের নির্দেশ দিয়ে আরেকটি রায় দেন হাইকোর্ট।

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার মান উন্নয়নে এসব প্রতিষ্ঠানে যোগ্য ও মানসম্পন্নদের শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দিতে প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষক নিবন্ধন সনদ দেয় এনটিআরসিএ। ২০০৫ সাল থেকে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ এই পরীক্ষা নেওয়া শুরু করে।

নিবন্ধনধারী ৪৮৩ জনকে নিয়োগের নির্দেশ 

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৯ জুন ২০২২, ০১:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) ১৪তম নিবন্ধনধারী ৪৮৩ জনকে নিয়োগের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বুধবার ৪টি পৃথক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি কাশেফা হোসেন ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

উত্তীর্ণদের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়োগ দিতে শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান, শিক্ষা সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের দ্রুত সময়ের মধ্যে পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে আদেশে।

এদিন আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনিরুজ্জামান আসাদ ও আইনজীবী ফারুক হোসেন।

গত বছর জাকির হোসেন নামে এক নিবন্ধনধারীসহ ৪৮৩ জন হাইকোর্টে রিটটি করেন। চতুর্দশ নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ওই প্রার্থীদের নিয়োগ দিতে কেন সুপারিশ করা হবে না-তা জানতে চেয়ে এরপর রুল দেয় আদালত। সেই রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে বুধবার রায় দিলেন হাইকোর্ট।

২০১৮ সালের নভেম্বরে চতুর্দশ নিবন্ধন পরীক্ষার চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হয়। তাতে স্কুল-২ পর্যায়ে ৫৫৪ জন, স্কুল পর্যায়ে ১৪ হাজার ১৭৮ জন এবং কলেজ পর্যায়ে ৩ হাজার ৫৮০ জন উত্তীর্ণ হন।

এর আগে গত ১ জুন বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের ত্রয়োদশ নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ আড়াই হাজার প্রার্থীকে নিয়োগের নির্দেশ দিয়ে আরেকটি রায় দেন হাইকোর্ট।

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার মান উন্নয়নে এসব প্রতিষ্ঠানে যোগ্য ও মানসম্পন্নদের শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দিতে প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষক নিবন্ধন সনদ দেয় এনটিআরসিএ। ২০০৫ সাল থেকে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ এই পরীক্ষা নেওয়া শুরু করে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন